জরুরি প্রয়োজনে রেমডেসিভির ব্যবহারের অনুমতি দিলো ভারত

Send
বিদেশ ডেস্ক
প্রকাশিত : ২০:২০, জুন ০২, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ২২:৩১, জুন ০২, ২০২০

করোনার চিকিৎসায় শর্তসাপেক্ষে রেমডেসিভির ওষুধ প্রয়োগের ছাড়পত্র দিয়েছে ভারতের সর্বোচ্চ ওষুধ নিয়ন্ত্রক সংস্থা (সিডিএসসিও)। ‘জরুরি প্রয়োজনে’ কোভিড উপসর্গ রয়েছে এমন ব্যক্তি বা করোনা পজিটিভ ব্যক্তির শরীরে এই ওষুধ প্রয়োগ করা যাবে। ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা রয়টার্সের প্রতিবেদন থেকে এ তথ্য জানা গেছে।

প্রতীকী ছবিকরোনাভাইরাস আক্রান্তদের চিকিৎসার জন্য এখন পর্যন্ত কোনও অনুমোদিত ওষুধ নেই। বিশ্বের বিভিন্ন দেশ কার্যকরী ওষুধ নিয়ে গবেষণা করছে। যুক্তরাষ্ট্রের ন্যাশনাল ইনস্টিটিউটস অব হেলথও বেশ কয়েকটি ওষুধ নিয়ে পরীক্ষা চালাচ্ছে। এরই একটি হলো রেমডেসিভির। গিলিয়াড সায়েন্সেস-এর তৈরি এ ওষুধটি ইবোলার বিরুদ্ধে পরীক্ষা করা হলেও এতে সফলতা এসেছিলো খুবই কম। তবে বিভিন্ন পশুর শরীরে চালানো বেশ কয়েকটি পরীক্ষায় দেখা গেছে, কোভিড-১৯, সার্স ও মার্সসহ করোনাভাইরাস সংক্রান্ত সংক্রমণ প্রতিরোধ ও চিকিৎসায় এ ওষুধ কার্যকর। করোনা আক্রান্তদের শরীরে রেমডেসিভিরের ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল চালিয়ে গিলিয়াড সায়েন্স দাবি করে, এই ওষুধ দ্রুত কাজ করছে। ফেব্রুয়ারিতে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা জানায়, রেমডেসিভির ওষুধটির সম্ভাবনা আছে।

অবশেষে করোনা চিকিৎসায় জরুরি প্রয়োজনে এ ওষুধ ব্যবহারের অনুমতি দিয়েছে ভারতও। সোমবার (১ জুন) ভারতের ওষুধ নিয়ন্ত্রক কর্তৃপক্ষের প্রধান ডা. ভি জি সোমানি বলেন, ‘১ জুন থেকে জরুরি ব্যবহারের শর্তে রোগীদের ৫ ডোজ করে রেমডেসিভির দেওয়ার অনুমতি দেওয়া হয়েছে।’

সোমবার গিলিয়াড সায়েন্সের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, কোভিড-১৯-এ মাঝারি মাত্রার আক্রান্তদের ৫ দিন রেমডেসিভির দেওয়ার পর তাদের কিছুটা উন্নতি হয়েছে বলে দেখা গেছে। তবে যারা ১০ দিন টানা ওষুধটি সেবন করেছেন তাদের অবস্থা আশানুরূপ ভালো হয়নি।

/এফইউ/এমওএফ/

সম্পর্কিত

লাইভ

টপ