ভারতে বিমান দুর্ঘটনায় আহত ১২৭ জন হাসপাতালে, ১৫ জনের অবস্থা গুরুতর

Send
বিদেশ ডেস্ক
প্রকাশিত : ১৪:৪৫, আগস্ট ০৮, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ১৪:৫২, আগস্ট ০৮, ২০২০

ভারতে শুক্রবারের বিমান দুর্ঘটনায় এ পর্যন্ত ১৮ জনের মৃত্যুর ব্যাপারে নিশ্চিত হওয়া গেছে। দেশটির বেসামরিক বিমানমন্ত্রী হারদিপ সিং পুরিকে উদ্ধৃত করে সংবাদ সংস্থা এএনআই জানিয়েছে, দুর্ঘটনায় আহত ১২৭ জনকে হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। এদের মধ্যে ১৫ জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক।  

দুবাই থেকে ফিরছিল এয়ার ইন্ডিয়া এক্সপ্রেসের বিমানটি। করোনাভাইরাস মহামারির সময়ে বিভিন্ন দেশ থেকে ভারতীয় নাগরিকদের ফিরিয়ে আনার অংশ হিসেবেই এটি কোঝিকোরে বিমানবন্দরে পৌঁছায়। রানওয়েতে নামতে গিয়ে পিছলে বিমানটি দুই টুকরা হয়ে যায়।

বিমানটিতে মোট ১৭৪ জন প্রাপ্তবয়স্ক যাত্রী, ১০ শিশু এবং পাঁচ জন কেবিন ক্রু ছিলেন। এ ঘটনায় দুই পাইলটসহ অন্তত ১৮ জন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন শতাধিক আরোহী। ভারতের বেসামরিক বিমান চলাচলবিষয়ক মন্ত্রী হারদিপ সিং পুরি জানিয়েছেন, ঘটনার কারণ অনুসন্ধানে তদন্ত শুরু হয়েছে।

স্থানীয় সংবাদমাধ্যমে প্রচারিত ফুটেজের বর্ণনা দিয়ে কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আলজাজিরা জানিয়েছে, আহতদেরকে স্ট্রেচারে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। তাদেরকে ঘিরে ছিলেন মাস্ক পরা স্বাস্থ্যকর্মীরা। 

৩৪ বছর বয়সী যাত্রী রনজিত পানানগার বিমান বিধ্বস্তের ঘটনায় আহত হয়েছেন। হাসপাতালের বিছানায় শুয়ে অভিজ্ঞতার বর্ণনা দিতে গিয়ে ফরাসি বার্তা সংস্থা এএফপিকে তিনি বলেন, ‘বিমান বিধ্বস্ত হওয়ার পর জরুরি দরজাটি খুলে দেওয়া হয়েছিল এবং আমি নিজেকে কোনোরকমে সেখান থেকে বের করতে পেরেছি। বিমানের সামনের দিকের অংশ একেবারে নাই হয়ে গেছে। আমি জানি না কিভাবে বেঁচে গেলাম,  তবে আমি কৃতজ্ঞ। আমার শরীর এখনও কাঁপছে।’

কেরালা রাজ্যের জ্যেষ্ঠ পুলিশ কর্মকর্তা আব্দুল করিম জানান, আহতদের মধ্যে অন্তত ১৫ জনের অবস্থা গুরুতর।

রাজ্যের জরুরি ব্যবস্থাপনাবিষয়ক বিভাগের এক কর্মকর্তা বলেন, ‘জ্বালানি লিক হয়েছিল, এটা অলৌকিক ঘটনা যে বিমানটিতে আগুন ধরে যায়নি। সেরকম কিছু হলে অনেক বেশি প্রাণহানি হতে পারতো।’

এক বছর আগে একই বিমান বন্দরে একইরকমের দুর্ঘটনা থেকে অল্পের জন্য রক্ষা পেয়েছিল এয়ার ইন্ডিয়া এক্সপ্রেসের বিমান। তখন অবতরণের সময় বিমানটির লেজের অংশে আঘাত লেগেছিল। তবে ওই ঘটনায় বিমানের ১৮০ যাত্রীর কেউই হতাহত হয়নি।

/এফইউ/বিএ/

লাইভ

টপ