শতাধিক তিমির প্রাণ বাঁচালেন অস্ট্রেলিয়ার উদ্ধারকর্মীরা

Send
বিদেশ ডেস্ক
প্রকাশিত : ২২:৩৭, সেপ্টেম্বর ২৬, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ২২:৩৭, সেপ্টেম্বর ২৬, ২০২০

অস্ট্রেলিয়ার উপকূলে আটকা পড়া শত শত তিমির মধ্য থেকে মোট ১০৮টিকে সাগরে ফেরত পাঠিয়েছেন উদ্ধারকারীরা। সমুদ্র বিশেষজ্ঞদের ধারণা তাসমানিয়ার পশ্চিম উপকূলে আর কোনও জীবিত তিমি আটকা পড়ে নেই। তবে ওই উপকূলে মারা যাওয়া শত শত তিমির মরদেহ নিয়ে কী করা হবে তানিয়ে নতুন আশঙ্কা তৈরি হয়েছে। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসির প্রতিবেদন থেকে এসব তথ্য জানা গেছে।

গত কয়েক দিনে অস্ট্রেলিয়ার তানজানিয়ার উপকূলে আটকা পড়ে প্রায় ৩৫০টি তিমির মৃত্যু হয়েছে। রেকর্ড সংখ্যায় মারা যাওয়া এই প্রাণীগুলো মূলত পাইলট তিমি। বিপুল সংখ্যক এই প্রাণীগুলোর মরদেহ নিয়ে বিপাকে পড়েছে অস্ট্রেলীয় কর্তৃপক্ষ। শুক্রবার পরীক্ষামূলকভাবে প্রথমবারের মতো ১৫টি তিমিকে সাগরে সমাহিত করা হয়েছে। এই প্রক্রিয়া সফল হলে বাকিগুলোর বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

শনিবার তাসমানিয়া কর্তৃপক্ষের এক বিবৃতিতে বেঁচে থাকা ১০৮টি তিমিকে সাগরে ফেরত পাঠানোর কথা নিশ্চিত করা হয়েছে। পাঁচ দিন ধরে উদ্ধারকারী দলের কঠোর পরিশ্রমের ফলে এসব তিমির প্রাণ বাঁচানো সম্ভব হয়েছে বলে ওই বিবৃতিতে দাবি করা হয়েছে।

সরকারি ওই বিবৃতিতে বলা হয়েছে, তিমির মরদেহগুলো সরানোর উদ্যোগ শুরু হয়েছে। তবে এতে বেশ কয়েকদিন সময় লাগতে পারে। আর তা বাতাস, স্রোত এবং অন্যান্য পরিস্থিতির ওপর নির্ভর করবে।

ঠিক কী কারণে তিমিগুলো তীরে এসেছিল তা জানা যায়নি। তবে আটকা পড়ার সংখ্যায় রেকর্ড এটি। এর আগে ১৯৩৫ সালে এই অঙ্গরাজ্যের পশ্চিম উপকূলে ২৯৪টি তিমি আটকা পড়ে। আর ১৯৯৬ সালে পশ্চিম অস্ট্রেলিয়ায় আটকা পড়ে ৩২০টি তিমি।

/জেজে/

লাইভ

টপ