ভেনেজুয়েলা ছাড়লেন ব্যর্থ সামরিক অভ্যুত্থানের নেতা লোপেজ

Send
বিদেশ ডেস্ক
প্রকাশিত : ১৫:৫২, অক্টোবর ২৫, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ২২:৪১, অক্টোবর ২৫, ২০২০

ভেনেজুয়েলার সরকারবিরোধী অ্যাকটিভিস্ট লিওপোলদো লোপেজ দেশ ছেড়েছেন। শনিবার (২৪ অক্টোবর) কারাকাসে স্প্যানিশ রাষ্ট্রদূতের বাসভবন থেকে বের হয়ে ভিনদেশে পাড়ি জমান তিনি। ২০১৯ সালে ভেনেজুয়েলার প্রেসিডেন্ট নিকোলাস মাদুরোর বিরুদ্ধে সামরিক অভ্যুত্থান প্রচেষ্টা ব্যর্থ হওয়ার পর স্প্যানিশ রাষ্ট্রদূতের আশ্রয়ে ছিলেন তিনি। লোপেজের দল পপুলার উইল পার্টি জানিয়েছে, বিদেশের মাটিতে বসেই কাজ চালিয়ে যাবেন তাদের নেতা। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম দ্য গার্ডিয়ানের প্রতিবেদন থেকে এসব তথ্য জানা গেছে। পারিবারিক সূত্রকে উদ্ধৃত করে ফরাসি বার্তা সংস্থা এএফপি জানিয়েছে, লোপেজ শুক্রবার (২৩ অক্টোবর) সীমান্ত পাড়ি দিয়ে কলম্বিয়ায় চলে গেছেন।

কয়েক বছর ধরেই সোশ্যালিস্ট প্রেসিডেন্ট মাদুরোকে উৎখাতে ব্যর্থ প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন কারাকাসের সাবেক মেয়র লিওপোলদো লোপেজ। আর তা করতে গিয়ে প্রায় সাত বছর ধরে কখনও কারাবাস, কখনও গৃহবন্দিত্ব আবার কখনও বিদেশি দূতাবাসের আশ্রয়ে থাকতে হয়েছে ৪৯ বছর বয়সী এ নেতাকে। দেশত্যাগের পর শনিবার রাতে এক বিবৃতিতে লোপেজ লিখেছেন, ‘আমরা থেমে যাবো না। ভেনেজুয়েলার নাগরিক হিসেবে আমাদের সবার স্বাধীনতা নিশ্চিত করার জন্য দিন-রাত কাজ করে যাবো।’ তিনি আরও জানান, সামনের দিনগুলোতে ভেনেজুয়েলায় গণতান্ত্রিক পরিবর্তন আনতে যে পরিকল্পনা করা হয়েছে তার বিস্তারিত ঘোষণা করা হবে।

পপুলার উইল পার্টি জানিয়েছে, দেশের কল্যাণে এবং ভেনেজুয়েলার স্বাধীনতার জন্য লড়াই করতে দেশত্যাগের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন লোপেজ। এক বিবৃতিতে তারা লিখেছে, ‘সাত বছর ধরে ভেনেজুয়েলায় নিপীড়নের শিকার হওয়া ও অন্যায়ভাবে কারারুদ্ধ জীবন কাটানোর পরও সব ভেনেজুয়েলানের মতো করেই লোপেজও পুরোপুরি মুক্ত হতে পারেননি। যতক্ষণ পর্যন্ত দেশে একনায়কতন্ত্র থাকবে, ততক্ষণ পর্যন্ত মানবাধিকার লঙ্ঘিত হবে।’

লোপেজের দেশত্যাগের ব্যাপারে ভেনেজুয়েলা কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি। স্প্যানিশ রাষ্ট্রদূতের বাসভবনের বাইরে মোতায়েনকৃত কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা ভেদ করে কীভাবে এ নেতা দেশ ছাড়লেন তাও স্পষ্ট হওয়া যায়নি।

ভেনেজুয়েলার যুক্তরাষ্ট্র সমর্থিত বিরোধী নেতা জুয়ান গুইদোর সঙ্গে ঘনিষ্ঠতা রয়েছে লোপেজের। সহিংস রাজনৈতিক বিক্ষোভ প্ররোচিত করার অভিযোগে ২০১৪ সালে লোপেজ গ্রেফতার হয়েছিলেন। তবে তিনি বারবার ওই অভিযোগ অস্বীকার করলেও তাকে সামরিক কারাগারে ১৪ বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়। ২০১৭ সালে লোপেজকে গৃহবন্দি করা হয়। বিরোধী দলের সমর্থনপুষ্ট নিরাপত্তা এজেন্টেরা গত বছর তাকে মুক্ত করলেও তিনি গৃহবন্দি ছিলেন।

পরে ভেনেজুয়েলার একটি আদালত লোপেজের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করে। বলা হয়, গৃহবন্দির শর্ত লঙ্ঘন করায় তাকে ১৪ বছর কারাদণ্ডের বাকি সময় জেলে কাটাতে হবে। এমন অবস্থায় লোপেজ স্প্যানিশ রাষ্ট্রদূতের বাসভবনে আশ্রয় নেন।

/এফইউ/বিএ/এমওএফ/

লাইভ

টপ