রাঙামাটি, খাগড়াছড়ি ও বান্দরবানে বঙ্গবন্ধু জাতীয় অ্যাডভেঞ্চার উৎসব

Send
জার্নি রিপোর্ট
প্রকাশিত : ১৫:১৫, জানুয়ারি ১০, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ২১:০৪, জানুয়ারি ১১, ২০২০

বঙ্গবন্ধু জাতীয় অ্যাডভেঞ্চার উৎসবজাতির জনক শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবর্ষ উপলক্ষে দেশের তিন পার্বত্য জেলায় আয়োজন করা হয়েছে বঙ্গবন্ধু জাতীয় অ্যাডভেঞ্চার উৎসব। শনিবার (১১ জানুয়ারি) সকালে কাপ্তাইয়ের কর্ণফুলী কলেজ প্রাঙ্গণে এর উদ্বোধন হবে। পাঁচদিনের এই আয়োজন চলবে ১৫ জানুয়ারি পর্যন্ত।

জানা গেছে– রাঙামাটিতে কায়াকিং, রোপ কোর্স, হাইকিং, ট্রেকিং ও সেইলিং; খাগড়াছড়িতে ট্রেইল রান, হাইকিং, মাউন্টেন বাইক, কেভ ডিসকভারি ও টিম বিল্ডিং এবং বান্দরবানে রয়েছে জিপ লাইন, ট্রেকিং, কায়াকিং ও ক্যানিওনিং। যৌথভাবে এর আয়োজন করেছে পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ড ও বাংলাদেশ অ্যাডভেঞ্চার ফাউন্ডেশন।

উৎসবে অংশ নিতে বাংলাদেশে এসেছেন বিশ্বখ্যাত অভিযাত্রী ফ্রান্সের অ্যান কুমেয়ার। একাই বৈঠা নিয়ে ছোট্ট নৌযানে আটলান্টিক মহাসাগর পাড়ি দিয়েছেন তিনি। তার সম্মানে বৃহস্পতিবার (৯ জানুয়ারি) রাজধানীর একটি পাঁচতারকা হোটেলে নৈশভোজ আয়োজন করে উৎসবের ট্রাভেল পার্টনার ক্যালেন্ডার ট্যুরস অ্যান্ড ট্রাভেল লিমিটেড। নিজের একটি প্রতিকৃতি উপহার হিসেবে পেয়েছেন তিনি। এখানে ছিলেন পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের চেয়ারম্যান নব বিক্রম কিশোর ত্রিপুরা, ঢাকায় নিযুক্ত ফ্রান্সের রাষ্ট্রদূত জ্যঁ মারিন শ্যঁসহ অনেকে।

অ্যান কুমেয়ারকে প্রতিকৃতি উপহার দিচ্ছেন শাহরিয়ার জামান সুমনক্যালেন্ডার ট্যুরস অ্যান্ড ট্রাভেল লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক শাহরিয়ার জামান সুমন বলেন, ‘এটি শুধু একটি উৎসব নয়, সবার জন্য লাইফটাইম এক্সপেরিয়েন্স। উৎসবটির মাধ্যমে অংশগ্রহণকারীরা পাহাড়, মনোরম প্রকৃতি ও সবুজের সমারোহ উপভোগ করবেন।’

ভারত ও নেপালের প্রখ্যাত অভিযাত্রীরা উৎসবে অংশ নিতে আসছেন। তাদের মধ্যে উল্লেখযোগ্য এভারেস্ট জয়ী দেবরাজ দত্ত, গনেশ চন্দ্র গেনা, নেপাল মাউন্টেইনিয়ারিং অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি সান্তা বীর লারমা। এছাড়া থাকবেন অ্যাডভেঞ্চার বিশেষজ্ঞ বিশ্বরাজ থাপালিয়া।

সমাপনী আয়োজনে প্রখ্যাত অভিযাত্রীকে পুরস্কার ও একজনকে আজীবন সম্মাননা দেওয়া হবে। প্রতিদিন সকাল ১০টায় শুরু হয়ে নানান আয়োজন থাকবে সন্ধ্যা সাড়ে ৬টা অবধি।

/জেএইচ/
টপ