করোনায় বন্ধ হয়ে যাচ্ছে শতবর্ষী হোটেল

Send
জার্নি ডেস্ক
প্রকাশিত : ১৩:৩২, অক্টোবর ১৩, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ১৩:৩২, অক্টোবর ১৩, ২০২০





রুজভেল্ট হোটেলযুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কে অবস্থিত রুজভেল্ট হোটেল ১৯২৪ সাল থেকে ইতিহাসের সাক্ষী। প্রায় শতবর্ষী বিলাসবহুল হোটেলটি বন্ধ হয়ে যাচ্ছে। করোনাভাইরাস মহামারির কারণে লোকসানের মুখে পড়ে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হলো।

আমেরিকার প্রেসিডেন্ট থিওডোর রুজভেল্টের নামে হোটেলটির নামকরণ হয়েছে। নিউইয়র্ক সিটির বিখ্যাত এই স্থাপনা ১৯৪৮ সালে হয়ে উঠেছিল গভর্নর টমাস ডিউয়ির প্রেসিডেন্ট পদের নির্বাচনি সদরদফতর।
মার্টিন স্করসেজির 'দ্য আইরিশ ম্যান'সহ বেশকিছু ছবির প্রেক্ষাপটে ছিল রুজভেল্ট হোটেল। এছাড়া 'মেইড ইন ম্যানহাটন', 'ম্যালকম এক্স' ও 'ওয়াল স্ট্রিট' ছবিতে এটি দেখা গেছে।
১৯২৯ সালের থার্টি ফার্স্ট নাইটে রুজভেল্ট হোটেল গ্রিলে আমেরিকান-কানাডিয়ান বেহালাশিল্পী গাই লোম্বার্ডো বাজিয়েছিলেন পুরনো বছরকে বিদায় জানানোর বিখ্যাত গান 'অল্ড ল্যাং সিন'। সেই থেকে যুক্তরাষ্ট্রে প্রতিবছর এই আয়োজন মহাধুমধামে উদযাপন করা হয়।
টাইমস স্কয়ার এবং গ্র্যান্ড সেন্ট্রাল টার্মিনাল থেকে কয়েক মিনিটের দূরত্বে অবস্থিত হোটেলটির স্থাপত্য দুর্দান্ত। কিন্তু এটি আর ইতিহাস বয়ে বেড়াবে না।
পাকিস্তান ইন্টারন্যাশনাল এয়ারলাইনসের মালিকানাধীন রুজভেল্ট হোটেলের দরজা এ বছরের শেষপ্রান্তে চিরতরে বন্ধ হয়ে যাচ্ছে।
আমেরিকান সংবাদমাধ্যম সিএনএনকে হোটেলটির একজন মুখপাত্র বলেন, 'কোভিড-১৯ রোগের প্রাদুর্ভাবের কারণে সৃষ্ট নজিরবিহীন অনিশ্চয়তার কারণে এই সপ্তাহে রুজভেল্ট হোটেলের মালিকরা হোটেলটি বন্ধ করার কঠিন সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। আমাদের সহযোগীদের ইতোমধ্যে বিষয়টি অবহিত করা হয়েছে। নিউইয়র্ক সিটির বেশিরভাগ হোটেলের মতো রুজভেল্টে অতিথি তেমন পাওয়া যাচ্ছে না। তাই এটি বছর শেষের আগেই বন্ধ করে দেওয়া হবে। ভবনটি নিয়ে আপাতত কোনও পরিকল্পনা নেই।'
করোনাভাইরাসের কারণে বিশ্বজুড়ে হসপিটালিটি শিল্পে ধস নেমেছে। যুক্তরাষ্ট্রের অনেক হোটেল বন্ধ হয়ে গেছে গত ছয় মাসে। চাকরি হারিয়েছেন হাজার হাজার কর্মী।
আমেরিকার শ্রম পরিসংখ্যান ব্যুরোর তথ্যানুযায়ী, দেশটিতে হসপিটালিটি শিল্পে গত এপ্রিলে ৭৫ লাখ মানুষ বেকার হয়েছে। এর মধ্যে কেবল অর্ধেক কর্মীকে চাকরিতে ফেরত নেওয়া হয়েছে।
আমেরিকান হোটেল লজিং অ্যাসোসিয়েশনের সমীক্ষায় দেখা গেছে, সরকারি সহায়তা না পেলে যুক্তরাষ্ট্রের ৭৪ শতাংশ হোটেলে আরও কর্মী ছাঁটাই হবে।

/জেএইচ/
টপ