যত্নে থাকুক ল্যাপটপ

Send
আনিকা আলম
প্রকাশিত : ১৭:৪৫, ফেব্রুয়ারি ২৩, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ১৭:৪৫, ফেব্রুয়ারি ২৩, ২০২০

নিত্যদিনের সঙ্গী প্রিয় ল্যাপটপ দীর্ঘদিন ভালো রাখতে চাই সঠিক যত্ন। ল্যাপটপের অন্যতম প্রধান শত্রু ধুলো। তবে ল্যাপটপ পরিষ্কার করার সময় সতর্ক থাকতে হবে। জেনে নিন প্রয়োজনীয় টিপস।

  • ল্যাপটপ পরিষ্কার করার জন্য প্রথমেই পাওয়ার অফ করে নিন। ল্যাপটপের আলগা ধুলো নরম সুতির কাপড় দিয়ে মুছে নিন। কিবোর্ড পরিষ্কার করার উপযোগী ব্রাশ ব্যবহার করতে পারেন। এছাড়া কমপ্রেসড এয়ার ক্যানও ব্যবহার করা যায়। কিবোর্ডে ময়লা খুব বেশি থাকলে হোয়াইট ভিনেগারে মাইক্রোফাইবারের কাপড় ডুবিয়ে আলতো করে মুছে নিন। সবচেয়ে ভালো হয় কেনার সময়ই কিবোর্ড প্রোটেক্টর লাগিয়ে নিলে। কখনও ল্যপটপ পানি বা গ্লাস ক্লিনার দিয়ে মুছবেন না।
  • ল্যাপটপ খুব তাড়াতাড়ি গরম হয়ে যায়। তাই ল্যাপটপের এয়ারভেন্ট যেন পরিষ্কার থাকে সেদিকে খেয়াল রাখুন। মাঝেমধ্যে নরম ব্রাশ দিয়ে ভেন্ট পরিষ্কার করুন।
  • খুব গরম জায়গা, হিটার কিংবা রান্নঘরের কাছাকাছি ল্যাপটপ রাখবেন না। বন্ধ গাড়ির তাপমাত্রাও বেশি থাকে। তাই গাড়িতে দীর্ঘক্ষণ ল্যাপটপে ফেলে রাখবেন না। বিছানায় বা বালিশের উপর ল্যাপটপ রেখে ব্যবহার না করাই ভালো। কারণ অনেক ল্যাপটপেরই নীচের দিকে এয়ার ভেন্ট থাকে।
  • ল্যাপটপে কাজ করার সময় চা, কফি বা ঠাণ্ডা পানীয় থাকলে সাবধান থাকুন। ল্যাপটপে অনেক ছোট ছোট যন্ত্রাংশ থাকে। অসাবধানে তরল পদার্থ ল্যাপটপে পড়ে গেলে এই পার্টসগুলোর ক্ষতি হতে পারে। শর্ট সার্কিট হওয়াও অসম্ভব নয়।
  • ল্যাপটপ এক জায়গা থেকে অন্য জায়গায় সরিয়ে নেওয়ার সময় ডিসপ্লে ধরে তুলবেন না। ল্যাপটপের নীচের অংশ ধরে সরান। কারণ ল্যাপটপের নীচের অংশের ভার বেশি থাকে। তাই সবসময় ডিসপ্লে ধরে সরালে ল্যাপটপের জয়েন্ট আলগা হয়ে যেতে পারে। ল্যাপটপের উপর মোটা বই বা ভারী কিছু রাখবেন না। এতে ডিসপ্লে বা কিবোর্ডের ক্ষতি হতে পারে। 
  • ল্যাপটপে সারাতে দেওয়ার আগে গুরুত্বপূর্ণ তথ্যগুলোর ব্যাকআপ অবশ্যই নিয়ে রাখুন।
  • ল্যাপটপ নিয়ে ট্র্যাভেল করার সময় ল্যাপটপ কভার এবং উপযুক্ত ল্যাপটপ ব্যাগ ব্যবহার করুন। এতে ধুলো, ময়লা, স্ত্র্যাচ বা হঠাৎ আঘাত লাগা থেকে ল্যাপটপ নিরাপদ থাকবে।
  • ল্যাপটপে অ্যান্টিভাইরাস সফটওয়্যার ব্যবহার করুন। নানা ধরনের ওয়েব পেজ খোলা, পেনড্রাইভে ফাইল ট্রান্সফার করা ইত্যাদি নানা কারণে ল্যাপটপ ভাইরাসে আক্রান্ত হতে পারে। ভাইরাস গুরুত্বপূর্ণ তথ্য পাচার করা, সফটওয়্যারের ক্ষতি কর সহ নানা বিপদ ডেকে আনতে পারে। অনলাইনে ফ্রি অ্যান্টিভাইরাসও পাওয়া যায়। তবে সেগুলো ইনস্টল করার আগে ভালো করে সেই সম্পর্কে জেনে নিন। অনেকসময় এই ধরনের অ্যান্টিভাইরাসেও ভাইরাস থাকে।   
  • বছরে একবার কোনও নির্ভরযোগ্য সার্ভিস সেন্টার থেকে ল্যাপটপ সার্ভিসিং করিয়ে নিন। এতে ল্যাপটপ অনেকদিন ভালো থাকবে।
/এনএ/

লাইভ

টপ