যত্নে থাকুক শখের শাড়ি

Send
মেহনাজ বিনতে ওয়াহিদ
প্রকাশিত : ২১:৩৯, আগস্ট ২৬, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ২১:৪৬, আগস্ট ২৬, ২০২০

শাড়ির রাখার তাকে যেমন থাকে নিত্য ব্যবহারের শাড়ি, তেমনি জামদানি-মসলিনের মতো শাড়িগুলোও থাকে। এক এক ধরনের শাড়ির যত্ন এক এক রকম। জেনে নিন দীর্ঘদিন শাড়ি ভালো রাখতে চাইলে কোন শাড়ির যত্ন কীভাবে নেবেন।

  • তাঁত, কটন ও লিনেনের শাড়ি প্রথমবার ধোয়ার আগে খনিজ লবণ মিশ্রিত পানিতে ১০ মিনিট ভিজিয়ে রাখুন। এতে রঙ দীর্ঘস্থায়ী হবে।
  • লিনেন, জর্জেট বা শিফনের শাড়ি নরম ডিটারজেন্টে শ্যাম্পু মিশিয়ে হাতে কাচুন। ওয়াশিং মেশিনে ডেলিকেট মোডেও কাচতে পারেন। তবে নিংড়ে পানি ঝরাবেন না। রোদে না দিয়ে ছায়ায় শুকান এই ধরনের শাড়ি।
  • সুতি ও লিনেন শাড়ি হালকা ভাঁজ করে কাঠের হ্যাঙারে ঝুলিয়ে রাখুন।
  • শিফন ও জর্জেট শাড়িতে সেফটিপিন আটকাবেন না।
  • জামদানি শাড়ি একই ভাঁজে দীর্ঘদিন রাখবেন না। এতে ভাঁজের অংশ ফেটে যেতে পারে। কাপড় পেঁচানোর রোলারে পেঁচিয়ে রাখুন জামদানি শাড়ি। মাঝে মাঝে রোদে দেবেন।
  • জামদানি শাড়ি ড্রাই ওয়াশ করান। অনেকদিন ব্যবহারে যদি শাড়ি নরম হয়ে যায় তাহলে কাটা করিয়ে নিন।
  • সিল্কের শাড়ির ঔজ্জ্বল্য ফেরাতে পাঁচ লিটার পানিতে পাঁচ চামচ সাদা ভিনিগার মিশিয়ে নিন। এই দ্রবণে পাঁচ মিনিট শাড়ি ভিজিয়ে রাখুন। তারপর পানি দিয়ে হালকা হাতে ধুয়ে পানি ঝরিয়ে নিন। তোয়ালেতে শাড়িটা চেপে পানি শুষে ছায়ায় মেলে দিন। 
  • টাঙ্গাইলের সুতির শাড়ি আয়তাকারে ছোট ছোট ভাঁজ করে রাখতে পারেন। মাঝেমধ্যে উপরের শাড়ি নিচে এবং নিচের শাড়ি উপরে— এভাবে উল্টেপাল্টে দেবেন।
  • সুতির শাড়ি হালকা মাড় দিয়ে ইস্ত্রি করলে ভালো থাকবে। 
  • নেট, সিল্ক আর জরির কাজের শাড়ি আলমারিতে ঠেসে রাখবেন না অথবা হ্যাঙারে ঝোলাবেন না। তাতে জরির কাজ, এমব্রয়ডারি নষ্ট হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে। প্লাস্টিকের ব্যাগে শাড়ি রাখলেও সূক্ষ্ম কাজগুলো কালচে হয়ে যাবে। আলমারিতে নরম কাপড়ের ঢেকে রাখুন এ ধরনের শাড়ি। বেনারসি, তসর, কাঞ্জিভরম ধরনের সিল্ক শাড়িও এভাবেই রাখবেন।
  • হ্যাঙারে দুটো শাড়ি একসাথে রাখবেন না।
  • শাড়ির উপর নরম সুতির কাপড় রেখে মাঝারি তাপে ইস্ত্রি করুন এবং অবশ্যই উল্টো দিক থেকে।
  • শাড়ির উপর সরাসরি সুগন্ধি স্প্রে করবেন না।
  • ছত্রাক থেকে বাঁচতে আলমারিতে সিলিকা জেলের প্যাকেট রাখুন।
/এনএ/

লাইভ

টপ