লাইভ: থাই গুহায় দ্বিতীয় দিনের উদ্ধার অভিযান

বিদেশ ডেস্ক
প্রকাশিত : ০৮:৫৪, জুলাই ১০, ২০১৮

সারাংশ

২৩ জুন বিকালে ১১ থেকে ১৬ বছর বয়সী ১২ ফুটবলার ও তাদের ২৫ বছর বয়সী কোচ থাইল্যান্ডের উত্তর অংশের প্রদেশ চিয়াং রাইয়ের ‘থাম লুয়াং নায় নন’ গুহায় প্রবেশ করে। বৃষ্টির পানি জমে যাওয়ায় সেখানে আটকে পড়ে তারা। নয়দিন পর তাদের সন্ধান পাওয়া যায়। রবিবার তাদের উদ্ধারে গুহায় প্রবেশ করেন ডুবুরিরা। 

  • দুই সপ্তাহ আগে বৃষ্টির কারণে গুহায় ভেতরে আটকা পড়ে কিশোররা ও তাদের কোচ।
  • ১২ কিশোর ফুটবলার ও তাদের কোচকে উদ্ধারে স্থানীয় সময় রবিবার সকাল ১০টায় অভিযান শুরু হয়।
  • রবিবার রাতে উদ্ধার অভিযান ১০ ঘণ্টার জন্য স্থগিত করা হয়।
  • রবিবার গুহা থেকে বের করে নিয়ে আসা ৪ কিশোরের স্বাস্থ্য ভালো।
  • সোমবার স্থানীয় সময় দুপুর ১১টায় শুরু হয় দ্বিতীয় দিনের উদ্ধার অভিযান।
১৮:৩১, জুলাই ০৯, ২০১৮

দ্বিতীয় দিনে আরও ৪ কিশোর উদ্ধার, ফের অভিযান স্থগিত: সিএনএন

বিদেশ ডেস্ক

থাইল্যান্ডের গুহায় আটকে পড়াদের মধ্যে আরও ৪ জনকে জীবিত উদ্ধারের পর সোমবারের অভিযান সমাপ্ত করা হয়েছে। এ নিয়ে এখন পর্যন্ত গুহা থেকে মোট ৮ জনকে উদ্ধার করা হয়েছে। গুহায় এখনও রয়েছে ৪ কিশোর ও তাদের কোচ। উদ্ধার অভিযানে সংশ্লিষ্ট এক প্রত্যক্ষদর্শীর বরাত দিয়ে এ খবর জানিয়েছে মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনএন। তবে সরকারিভাবে অভিযান স্থগিত ও উদ্ধারকৃতদের সংখ্যা ও অবস্থা সম্পর্কে কোনও তথ্য জানানো হয়নি।

ব্রিটিশ বার্তা সংস্থাও প্রত্যক্ষদর্শীদের বরাত দিয়ে সোমবার ৪ জনকে উদ্ধারের কথা জানিয়েছে। তবে আরেক ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম দ্য গার্ডিয়ান ৩ জনকে উদ্ধারের কথা জানিয়ে চতুর্থজনের বিষয়ে নিশ্চিত হওয়ার চেষ্টা করার কথা লিখেছিল প্রথমে। পরে চতুর্থজনকে উদ্ধারের কথা জানায়।


 

উদ্ধার অভিযান নিয়ে বাংলা ট্রিবিউনের লাইভ কাভারেজ পড়ুন: থাই গুহায় উদ্ধার অভিযান


 

উল্লেখ্য, গত ২৩ জুন ফুটবল অনুশীলন শেষে ২৫ বছর বয়সী কোচসহ ওই ১২ কিশোর ফুটবলার গুহাটির ভেতরে ঘুরতে গিয়েছিল। কিন্তু বৃষ্টিতে গুহার প্রবেশমুখ বন্ধ হয়ে যাওয়ায় তারা আর বের হতে পারেনি। এরপর টানা ৯ দিন নিখোঁজ থাকার পর গত ২ জুলাই গুহার ভেতরে জীবিত অবস্থায় তাদের শনাক্ত করেন ডুবুরিরা। রবিবার (৮ জুলাই) থাইল্যান্ড সরকার তাদের উদ্ধারে দেশি-বিদেশি বিশেষজ্ঞদের নিয়ে স্মরণকালের সবচেয়ে বড় উদ্ধার অভিযান শুরু করে।

রবিবার চার কিশোরকে উদ্ধারের পর স্থগিত হওয়া অভিযান সোমবার স্থানীয় সময় ১১টায় শুরু হয়। অভিযানের বিষয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে অভিযান প্রধান নারোংসাক ওসোথানাকর্ন জানিয়েছেন, শিগগিরই ভালো খবর পাওয়ার আশা করছেন তারা। তিনি জানান, গতকালের মতোই আজকের পরিস্থিতি ভালো। তেমন কোনও পরিবর্তন ছাড়াই গতকালের টিম গুহায় প্রবেশ করেছে। পানির উচ্চতা আশঙ্কাজনক নয়। গতকালের বৃষ্টি গুহার ভেতরে পানির উচ্চতাকে প্রভাবিত করেনি।

এদিকে, অভিযান সম্পর্কে সরকারি তথ্য পাওয়ার বিষয়ে মার্কিন বার্তা সংস্থা অ্যাসোসিয়েটেড প্রেস (এপি) জানিয়েছে, উদ্ধার অভিযান ও উদ্ধার হওয়া কিশোরদের সম্পর্কে কোনও সরকারি কর্মকর্তাই অন দ্য রেকর্ড কথা বলতে চাইছেন না। গুহার মুখ থেকে অ্যাম্বুলেন্সের চলে যাওয়ার বিষয়ে রবিবার রাতেও কোনও কর্মকর্তা কিছু জানাননি।

সোমবার দুপুরে অভিযান সংশ্লিষ্ট উচ্চপদস্থ সরকারি ও সামরিক কর্মকর্তাদের অনেকবার ফোন করলেও তারা কোনও সাড়া দেননি।

এর আগে রবিবার উদ্ধারকৃত ৪ কিশোর হাসপাতালে পোঁছার কয়েক ঘণ্টা পরে সরকারিভাবে উদ্ধারের তথ্য নিশ্চিত করা হয়েছিল।

 

১৮:১৯, জুলাই ০৯, ২০১৮

দ্বিতীয় দিনের উদ্ধার অভিযান সমাপ্ত: সিএনএন

প্রত্যক্ষদর্শীদের বরাত দিয়ে মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনএন জানিয়েছে, গুহা থেকে আটকে পড়াদের উদ্ধারে দ্বিতীয় দিনের অভিযান সমাপ্ত করা হয়েছে। এতে করে রবিবার শুরু হওয়া উদ্ধার অভিযান আবারও স্থগিত করা হলো।

সোমবার দ্বিতীয় দিনের অভিযানে চার জনকে উদ্ধারের বিষয়টি জানিয়েছে সিএনএন ও রয়টার্স। এ নিয়ে দুই দিনের অভিযানে ৮ জনকে উদ্ধার করা হলো। গুহায় এখনও রয়েছেন ৫ জন। ধারণা করা হচ্ছে এদের মধ্যে ৪ কিশোর ও তাদের কোচ রয়েছেন। তবে সরকারিভাবে এখন পর্যন্ত সোমবারের অভিযানে উদ্ধারকৃতদের সংখ্যা নিশ্চিত করা হয়নি।

১৮:০৭, জুলাই ০৯, ২০১৮

৮ম কিশোর উদ্ধার: রয়টার্স ও সিএনএন

প্রত্যক্ষদর্শীদের বরাত দিয়ে বার্তা সংস্থা রয়টার্স ও সংবাদমাধ্যম সিএনএন ৮ম ব্যক্তিকে উদ্ধারের কথা জানিয়েছে। আরেক ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম দ্য গার্ডিয়ান, এই তথ্য নিশ্চিত হওয়ার চেষ্টা করছে। সরকারিভাবে এখন পর্যন্ত কোনও ব্যক্তিকে উদ্ধারের কথা জানানো হয়নি।

এই খবর সঠিক হলে সোমবার উদ্ধার হওয়া ব্যক্তির সংখ্যা দাঁড়াবে ৪ জনে। এর আগে রবিবার আরও ৪ জনকে উদ্ধার করা হয়েছিল। গুহায় থাকা ব্যক্তির সংখ্যা দাঁড়াবে ৫ জনে। 

১৮:০১, জুলাই ০৯, ২০১৮

অভিযান সম্পর্কে সরকারি তথ্য পাওয়া কঠিন: এপি

মার্কিন বার্তা সংস্থা অ্যাসোসিয়েটেড প্রেস (এপি) জানিয়েছে, উদ্ধার অভিযান ও উদ্ধার হওয়া কিশোরদের সম্পর্কে কোনও সরকারি কর্মকর্তাই অন দ্য রেকর্ড কথা বলতে চাইছেন না। গুহা মুখ থেকে অ্যাম্বুলেন্সের চলে যাওয়ার বিষয়ে রবিবার রাতেও কোনও কর্মকর্তা কিছু জানাননি।

সোমবার দুপুরে অভিযানে সংশ্লিষ্ট উচ্চ পদস্থ সরকারি ও সামরিক কর্মকর্তাদের অনেকবার ফোন করলেও তারা কোনও সাড়া দেননি।

এর আগে রবিবার উদ্ধারকৃত ৪ কিশোর হাসপাতালে পোঁছার কয়েক ঘণ্টা পরে সরকারিভাবে উদ্ধারের তথ্য নিশ্চিত করা হয়েছিল।

১৭:৪৫, জুলাই ০৯, ২০১৮

আরও দুই কিশোর উদ্ধার: রয়টার্স, সিএনএন

প্রত্যক্ষদর্শীদের বরাত দিয়ে ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা রয়টার্স ও মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনএন জানিয়েছে, গুহা থেকে স্ট্রেচারে করে আরও দুই কিশোরকে উদ্ধার করা হয়েছে। তাদেরকে ৬ষ্ঠ ও ৭ম কিশোর বলে চিহ্নিত করা হচ্ছে। যদি এই খবর নিশ্চিত হয় তাহলে এ পর্যন্ত ৭ জন কিশোরকে গুহা থেকে উদ্ধার করা হলো। গুহায় এখনও রয়েছে ৫ কিশোর ও তাদের কোচ।

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম দ্য গার্ডিয়ান উদ্ধার টিমের এক সূত্রের বরাত দিয়ে ৬ষ্ঠ কিশোর উদ্ধার হওয়ার খবর জানিয়েছে।

সরকারিভাবে সোমবারের অভিযানে কাউকে উদ্ধারের কথা নিশ্চিত করা হয়নি।



১৭:৩৫, জুলাই ০৯, ২০১৮

হাসপাতালে পৌঁছেছে ৫ম কিশোর

সোমবার শুরু হওয়া দ্বিতীয় দিনের অভিযানে উদ্ধার হওয়া প্রথম কিশোরকে হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে। মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনএন এখবর জানিয়েছে। রবিবারে শুরু হওয়া অভিযানে এখন পর্যন্ত ৫জনকে উদ্ধার করা হলো। গুহায় এখনও রয়েছে ৭ কিশোর ও তাদের কোচ।

১৬:৫৩, জুলাই ০৯, ২০১৮

৬ষ্ঠ কিশোরও কিছুক্ষণের মধ্যে বের হবে: আল জাজিরা

সূত্রের বরাত দিয়ে কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল জাজিরা জানিয়েছে, এক কিশোরকে গুহা থেকে বের করা হয়েছে। সে এখন হাসপাতালের কাছাকাছি। আরেকটি কিশোর গুহা মুখের কাছাকাছি চলে এসেছে। কিছুক্ষনের মধ্যেই বের করা হবে। এছাড়া আরও দুই কিশোরও খুব দূরে নয়। তবে সরকারিভাবে এখনও তা নিশ্চিত করা হয়নি।

১৬:২৯, জুলাই ০৯, ২০১৮

থাই টেলিভিশনের অ্যাম্বুলেন্স থেকে হেলিকপ্টারে তোলার ফুটেজ

থাইল্যান্ডের স্থানীয় টেলিভিশন চ্যানেল টিবিএস একটি ফুটেজ প্রচার করছে। এতে দেখা যাচ্ছে একটি অ্যাম্বুলেন্স থেকে কাউকে হেলিকপ্টারে তোলা হচ্ছে। বিভিন্ন সংবাদমাধ্যম প্রত্যক্ষদর্শীদের বরাত দিয়ে সোমবারের অভিযানে প্রথম ও পুরো অভিযানে ৫ম কিশোরকে উদ্ধারের কথা বলা হচ্ছে। ধারণা করা হচ্ছে, ৫ম কিশোরকেই অ্যাম্বুলেন্স থেকে হেলিকপ্টারে তোলা হয়েছে। তবে সরকারিভাবে এখনও তা নিশ্চিত করা হয়নি।

 

১৫:৫৬, জুলাই ০৯, ২০১৮

পঞ্চম কিশোর উদ্ধার: সিএনএন

মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনএন প্রত্যক্ষদর্শীর বরাত দিয়ে জানিয়েছে, সোমবার অভিযান শুরু হওয়ার পর পঞ্চম কিশোরকে গুহা থেকে উদ্ধার করা হয়েছে। স্থানীয় সময় বিকাল ৪টা ২৭ মিনেটে ওই কিশোরকে গুহা মুখে দেখা যায়। তবে সরকারিভাবে এখবর এখনও নিশ্চিত করা হয়নি।

প্রত্যক্ষদর্শীদের বরাত দিয়ে ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা রয়টার্সও জানিয়েছে, সোমবার অভিযান শুরু হওয়ার প্রথম ব্যক্তিকে গুহা থেকে বের করে স্ট্রেচারে অ্যাম্বুলেন্সে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

গুহার প্রবেশ মুখ পুলিশ কর্ডন করে রেখেছে

১৪:৫৯, জুলাই ০৯, ২০১৮

আটকে পড়াদের জন্য শিশুদের ভালোবাসা

গুহায় আটকে পড়া এক কিশোর স্থানীয় ব্যান ওয়েইঙ্গফেন স্কুলের শিক্ষার্থী। এই স্কুলের ক্ষুদে শিক্ষার্থীরা আটকে পড়া কিশোরদের প্রতি নিজেদের ভালোবাসার বহিঃপ্রকাশ ঘটিয়েছে। স্কুলে তারা বিভিন্ন ছবি, ভালোবাসা চিহ্ন হৃদয় ও সুন্দর সুন্দর কার্টুন এঁকেছে এবং তা টানিয়ে দেওয়া হয়েছে।

১৪:৪২, জুলাই ০৯, ২০১৮

সংবাদমাধ্যমের কাভারেজ ও আচরণে কর্তৃপক্ষের অভিযোগ

উদ্ধার অভিযান নিয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে অভিযানের যৌথ কমান্ড সেন্টারের সমন্বয়ক নারোংসাক বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমের রবিবারের কাভারেজ ও আচরণ নিয়ে অভিযোগ করেছেন। তিনি জানিয়েছেন, কোনও একটি সংবাদমাধ্যমের পক্ষ থেকে অভিযানস্থলের উপর দিয়ে ড্রোন উড়ানো হয়েছে। অনেকেই নাকি পুলিশের রেডিও আড়িপেতে শুনেছেন।

নারোংসাক বলেন, এটা একেবারেই ভুল।

উদ্ধার হওয়া চার কিশোরের পরিবারকে কাঁচের দরজার মধ্য দিয়ে তাদের দেখানোর ব্যবস্থা করার বিষয়টি বিবেচনা করা হচ্ছে বলেও জানিয়েছেন নারোংসাক।

১৪:৪১, জুলাই ০৯, ২০১৮

শক্তিশালী ও স্বাস্থ্যবান কিশোরদের আগে বের করা হবে

দ্য গার্ডিয়ানের খবরে বলা  হয়েছে সংবাদ সম্মেলনে কর্মকর্তাদের প্রশ্ন করা হয়েছিল, কোন কিশোরদের আগে বের করা হবে? জবাবে বলা হয়, যারা একেবারে প্রস্তুত ও সবদিক দিয়ে সুস্থ আছে তাদের প্রথমে বের করে নিয়ে আসা হবে।

কর্মকর্তারা আরও জানান, সংবাদ সম্মেলন শুরু হওয়ার প্রায় ৫ ঘণ্টার মধ্যে প্রথম কিশোরকে বের করে নিয়ে আসা হতে পারে। অর্থাৎ স্থানীয় সময় সাড়ে সাতটা থেকে সাড়ে আটটার মধ্যে প্রথম কিশোরকে নিয়ে আসা হবে।

১৪:১৬, জুলাই ০৯, ২০১৮

‘পরিস্থিতি গতকালের মতোই ভালো’

উদ্ধার অভিযানের প্রধান সমন্বয়ক নারোংসাক ওসাটানাকর্ন বলেছেন, গতকালের মতোই আজকের পরিস্থিতি ভালো। তেমন কোনও পরিবর্তন ছাড়াই গতকালের টিম গুহায় প্রবেশ করেছে।
নারোংসাক আরও বলেন, পানির উচ্চতা আশঙ্কাজনক নয়। গতকালের বৃষ্টিতে গুহার ভেতরে পানির উচ্চতাকে প্রভাবিত করেনি।

১৩:৪৩, জুলাই ০৯, ২০১৮

গুহা মুখে ফিরে এসেছে অ্যাম্বুলেন্স

গুহা মুখে অন্তত ৫টি অ্যাম্বুলেন্স পুনরায় ফিরে এসেছে। ডুবুরিরা ৮ কিশোর ও তাদের কোচকে উদ্ধারে গুহায় প্রবেশ করার পর অ্যাম্বুলেন্সগুলো অবস্থান নেয়।

রবিবার রাতে চার কিশোরকে উদ্ধারের পর অক্সিজেন ট্যাংক পূর্ণ করার জন্য অভিযান স্থগিত করা হয়। সোমবার সকালে প্রস্তুতি নিয়ে পুনরায় অভিযানে নেমেছেন ডুবুরিরা।

সিএনএন সাংবাদিক জো শেলি'র টুইট-

 

১৩:৩৩, জুলাই ০৯, ২০১৮

দ্বিতীয় দিনের অভিযান শুরু

গুহায় আটকে পড়া অবশিষ্ট ৮ কিশোর ও তাদের কোচকে বের করে নিয়ে আসার জন্য স্থগিত হওয়া উদ্ধার অভিযান সোমবার পুনরায় শুরু হয়েছে। থাইল্যান্ডের এক নৌবাহিনী কর্মকর্তা মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনএনকে অভিযান শুরুর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

নৌবাহিনী কর্মকর্তা বলেন, অভিযান শুরু হয়েছে। এই মুহূর্তে তা চলছে। রবিবার অভিযানে অংশ নেওয়া ডুবুরিরা আজকের অভিযানে অংশ নিচ্ছেন।

১২:১২, জুলাই ০৯, ২০১৮

এ পর্যন্ত যা জানা গেছে

দ্বিতীয় উদ্ধার অভিযান: থাইল্যান্ডের গুহায় আটকে পড়া অবশিষ্ট আট কিশোর ও তাদের কোচকে বের করে নিয়ে আসার অভিযান সোমবার শুরু হবে

নাটকীয় উদ্ধার: রবিবার রাতে চার কিশোরকে বের করে নিয়ে আসার পর উদ্ধারকর্মীরা ১০ ঘণ্টার জন্য অভিযান স্থগিত করেন। শতাধিক অক্সিজেন ট্যাংক পূর্ণ করার জন্য এই সময় নেওয়া হয়।

দীর্ঘ অভিযান: আঠারোজন বিশেষজ্ঞ ডুবুরি রবিবার সকালে গুহায় প্রবেশ করেন। নয় ঘণ্টা পর তারা কিশোরদের নিয়ে বের হন। বের হয়ে আসা কিশোরদের নাম এখনও প্রকাশ করেনি কর্তৃপক্ষ। তারা এখন হাসপাতালে রয়েছে।

ভিআইপিদের আগমন: সোমবার উদ্ধার অভিযান তদারকির জন্য উদ্ধারস্থলে উপস্থিত হবেন থাইল্যান্ডের প্রধানম্নত্রী প্রাইয়ুথ চ্যান-ও-চা।

নতুন আপডেট পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে তা এখানে যুক্ত করা হবে।

১১:৪৮, জুলাই ০৯, ২০১৮

দ্বিতীয় দিনের উদ্ধার অভিযান শুরু হয়নি

রবিবার প্রথম দিনের স্থগিত হওয়া উদ্ধার অভিযান সোমবার বাংলাদেশ সময় ১১ টা ৪৫ মিনিটেও শুরু হয়নি। প্রথম দিন গুহা থেকে চার শিশুকে বের করে নিয়ে আসা হয়েছে। এখনও গুহায় রয়েছে ৮ শিশু ও তাদের কোচ। মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনএন এখবর জানিয়েছে।

রবিবার কর্মকর্তারা জানিয়েছিলেন ১০ ঘণ্টার জন্য উদ্ধার অভিযান স্থগিত করা হয়েছে। এই সময়ের মধ্যে অক্সিজেন ট্যাংকগুলো ভরা হবে।

০৯:৫৫, জুলাই ০৯, ২০১৮

আরও অক্সিজেনের অপেক্ষায় উদ্ধারকারীরা

থাইল্যান্ডের গুহায় আবার অভিযান শুরুর অপেক্ষায় রয়েছেন উদ্ধারকারীরা। মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনএন জানিয়েছে, তাদের অপেক্ষা অক্সিজেনপূর্ণ সিলিন্ডারের। শিশুদের ভেতর থেকে বের করে নিয়ে আসতে যে পরিমাণ অক্সিজেনের সিলিন্ডার দরকার তা এখনও প্রস্তুত নয়। থাই নিউজ এজেন্সি জানিয়েছিল, ডুবুরিরা অক্সিজেনের সিলিন্ডার বহন করবেন আর সেখান থেকে নিঃশ্বাস নেওয়ার জন্য প্রয়োজনীয় অক্সিজেন পাবে তাদের সঙ্গে থাকা শিশুরা। গুহায় এখনও ৮ শিশু ও তাদের কোচ আটকে রয়েছেন।

 

০৯:৩০, জুলাই ০৯, ২০১৮

বাকি আট শিশু ও কোচকে উদ্ধারে ‘শিগগির’ নতুন অভিযান

বিদেশ ডেস্ক

থাইল্যান্ডের গুহায় আটকে পড়া শিশুদের মধ্যে চারজনকে জীবিত অবস্থায় বের করে আনা গেলেও এখনও ভেতরে থেকে গেছে আট শিশু ও তাদের কোচ। উদ্ধারকারী কর্তৃপক্ষকে উদ্ধৃত করে ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম গার্ডিয়ান জানিয়েছে, ‘শিগগির’ তাদের উদ্ধারে নতুন অভিযান শুরু হবে। সোমবার (৯ জুলাই) সকাল সাতটা থেকে বিকাল ৫টা পর্যন্ত যেকোনও সময়েই অভিযান শুরু হতে পারে বলে জানা গেছে।

স্কুবা ডাইভিং করে যেভাবে গুহা থেকে শিশুদের উদ্ধার করে আনা হচ্ছে
গত ২৩ জুন ফুটবল অনুশীলন শেষে ২৫ বছর বয়সী কোচসহ ওই ১২ কিশোর ফুটবলার গুহাটির ভেতরে ঘুরতে গিয়েছিল। কিন্তু বৃষ্টিতে গুহার প্রবেশমুখ বন্ধ হয়ে যাওয়াতে তারা আর বাইরে বের হতে পারেনি। এরপর থেকে টানা ৯ দিন নিখোঁজ থাকার পর গত ২ জুলাই গুহার ভেতরে জীবিত অবস্থায় তাদেরকে শনাক্ত করে ডুবুরিরা। রবিবার (৮ জুলাই) থাইল্যান্ড সরকার তাদের উদ্ধারে দেশি-বিদেশি বিশেষজ্ঞদের নিয়ে স্মরণকালের সবচেয়ে বড় উদ্ধার অভিযান শুরু করে। 

উদ্ধার অভিযানের প্রথম দিনে রবিবার প্রথম দফায় এরইমধ্যে বের হয়ে এসেছে চার শিশু। অপর আট শিশু ও তাদের কোচকে তিন ধাপে বের করে আনার পরিকল্পনা রয়েছে উদ্ধারকারী কর্তৃপক্ষের। সোমবার নতুন অভিযানের মধ্য দিয়ে প্রতি দফায় ৩ জনকে বাইরে বের করে আনার চেষ্টা করা হবে। অভিযান শুরুর সুনির্দিষ্ট সময় জানা না গেলেও ঘটনাস্থলে থাকা প্রতিবেদককে উদ্ধৃত করে গার্ডিয়ানের প্রতিবেদনে বলা হয়, সোমবার স্থানীয় সময় সকাল ৭টা থেকে বিকাল ৫টার মধ্যে যেকোনও সময় অভিযান শুরু হওয়ার কথা। নির্দিষ্ট করে কিছু বলা হয়নি। শুধু জানানো হয়েছে, ‘শিগগিরই’ অভিযান শুরু হবে। উদ্ধার প্রচেষ্টার সমন্বয়ককে উদ্ধৃত করে গার্ডিয়ান জানায়, একটি অভিযান থেকে ফেরার পর ডুবুরিদেরকে ১০ থেকে ২০ ঘণ্টা বিশ্রাম নিতে হয় ও প্রস্তুত হতে হয়।

থাই গুহা
সব মিলে ৯০ জন ডুবুরি উদ্ধার প্রচেষ্টার সঙ্গে যুক্ত আছেন। মূল অভিযানে অংশ নিচ্ছেন ১৩ জন বিদেশি ডুবুরি ও ৫ জন থাই নেভি সিলের সদস্য। সংশ্লিষ্ট একজন সেনা কর্মকর্তা গার্ডিয়ানকে জানিয়েছেন, গুহার ভেতরে এখন পানি কম। এজন্য সাঁতরে পার হওয়ার পরিকল্পনা করা হয়েছিল,এমন কিছু অংশ হেঁটেই পার হতে পেরেছে উদ্ধার হওয়া চার শিশু। তারা যে স্থানটিতে আশ্রয় নিয়েছিল তা গুহার প্রবেশ মুখ থেকে প্রায় ৪ কিলোমিটার ভেতরে। গুহাটি ১০ কিলোমিটার দীর্ঘ।

আটকে পড়া শিশুদের কেউ সাঁতার জানতো না। তাদের উদ্ধারে বিদেশ থেকে বিশেষভাবে প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত ডুবুরিদের ডেকে আনা হয়েছিল। শিশুদের উদ্ধার প্রক্রিয়ায় থাই সেনাবাহিনীর একজন সাবেক ডুবুরি প্রাণ হারিয়েছেন। সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন,উদ্ধার অভিযানে ব্যবহার করার জন্য অক্সিজেন সিলিন্ডার বসানোর কাজ করতে গিয়ে তিনি জ্ঞান হারান। পরে তার মৃত্যু হয়।

 

০৯:২১, জুলাই ০৯, ২০১৮

চার থাই শিশু চিকিৎসাধীন, এখনই যেতে পারছে না পরিবারের কাছে

বিদেশ ডেস্ক

থাইল্যান্ডের ‘থাম লুয়াং নায় নন’ গুহা থেকে গতকাল উদ্ধারকৃত ৪ শিশুকে চিয়াং রাই প্রদেশের প্রাচানুকরোহ হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। শিশুদের সেখানে নিয়ে যাওয়ার আগেই হাসপাতালটি পরিদর্শনে গিয়েছিলেন থাইল্যান্ডের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সচিব জেসাদা চোকেদামরংসুক। তখন তিনি জানিয়েছিলেন, হাসপাতালে আনার পর বেশ কিছু সময় শিশুদের তাদের পরিবারের সঙ্গে দেখা করার সুযোগ হবে না। বার্তাসসংস্থা সিএনএন জানিয়েছে, এমন সিদ্ধান্তের কারণ শিশুরা কোনও রোগে সংক্রমিত হয়েছে কি না তা নিবিড়ভাবে পর্যবেক্ষণ করা। ওই শিশুরা যেমন ভুগেছে অক্সিজেন স্বল্পতায়, তেমন অপুষ্টিতে। শারীরিক ক্ষতির পাশাপাশি, দীর্ঘদিন অন্ধকার প্রকোষ্ঠে আটকে থাকার কারণে মানসিক দিক দিয়েও ক্ষতি হয়ে থাকতে পারে তাদের। তবে ৯ জুলাই মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনএন জানিয়েছে, দূর থেকে শিশুদের দেখার ব্যবস্থা করে দেওয়া হবে। পরিবারের সদস্যরা তাদের জড়িয়ে ধরতে না পারলেও অন্তত চোখের দেখা দেখতে পারবেন।

স্বাস্থ সচিব আগেই জানিয়েছিলেন, যেহেতু গুহার ভেতরে তারা দীর্ঘদিন ছিল, সেহেতু তাদেরকে প্রাথমিকভাবে চিকিৎসকরা দিন দুয়েক পর্যবেক্ষণে রাখবেন। তারপর আরও ৭ দিন তাদের চিকিৎসা চলবে। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের দেওয়া একটি বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ‘প্রথম লক্ষ্য হচ্ছে এটা নিশ্চিত করা যে শিশুরা ও তাদের পরিবারের সদস্যরা যেন নিরাপদ থাকে। তারা যে গুহার ভেতরে ছিল তাতে বিষাক্ত পোকামাকড় থাকার কথা আর সেখান থেকে তারা শিশুরা রোগে আক্রান্ত হয়ে থাকতে পারে।’

কোচসহ ফুটবল খেলোয়াড় শিশুরা প্রায় দুই সপ্তাহ আটকে ছিল গুহার ৪ কিলোমিটার  ভেতরে। তারা গুহাতে থাকা অবস্থাতেই জানা গিয়েছিল, অক্সিজেন স্বল্পতার কথা। যেখানে স্বাভাবিকভাবে গুহার ভেতরে ২১ শতাংশ অক্সিজেন থাকার কথা বাতাসে সেখানে অক্সিজেনের পরিমাণ নেমে এসেছিল ১৫ শতাংশে। ফলে উদ্ধারকৃত শিশুদের দীর্ঘ সময় অক্সিজেন স্বল্পতায় কাটাতে হয়েছে।

 


উদ্ধার অভিযান নিয়ে বাংলা ট্রিবিউনের লাইভ কাভারেজ পড়ুন: থাই গুহায় উদ্ধার অভিযান


 

উদ্ধারকৃত শিশুরা গুহার ভেতরে ছিল গত ২৩ জুন থেকে। এ সময় তাদেরকে অপুষ্টিতে ভুগতে হয়েছে। তাছাড়া গুহা থেকে বের হওয়ার সময় তাদের পানিতে ডুবে সাঁতার দিয়ে বের হতে হয়েছে ডুবুরিদের সঙ্গে। অথচ ওই শিশুরা সাঁতারই জানেনা। আর বের হওয়ার পথে এমন অনেক স্থান ছিল যেখান দিয়ে একজনের বেশি মানুষের বের হয়ে আসা কষ্টকর।

উদ্ধার প্রক্রিয়া চলার সময় থেকেই চিকিৎসকরা তাদের স্বাস্থ্যের ওপর নজর রাখছিলেন। গুহার ভেতর সাঁতরে তাদের কাছে পৌঁছাবার জন্য অস্ট্রেলিয়া থেকে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছিল চিকিৎসক রিচার্ড হ্যারিসকে। তিনি গুহার ভেতরে সাঁতরে শিশুদের কাছে পৌঁছেছিলেন তাদের চিকিৎসা দেওয়ার জন্য।

কানাডার সংবাদমাধ্যম সিবিসিকে চিকিৎসক পিটার লিন বলেছেন, শিশুদের শারীরিক ক্ষতির পাশাপাশি মানসিক চিকিৎসারও দরকার হতে পারে। এমন ঘটনাগুলোতে ভুক্তভোগীদের মধ্যে ‘পোস্ট ট্রমাটিক স্ট্রেস ডিজঅর্ডার’ দেখা দেয়।

২২:৩৩, জুলাই ০৮, ২০১৮

চারজনকে উদ্ধারের পর অভিযান স্থগিত

বিদেশ ডেস্ক

থাইল্যান্ডের ‘থাম লুয়াং নায় নন’ গুহা থেকে রবিবার চার শিশুকে উদ্ধারের পর ১০ ঘণ্টার জন্য অভিযান স্থগিত করা হয়েছে। আগামীকাল সোমবার সকাল থেকে আবারও উদ্ধার তৎপরতা শুরু হবে। অভিযানের প্রধান নারংসাক ওসোটানাকোরন এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানিয়েছেন।

নারংসাক ওসোটানাকোরন জানান, স্থানীয় সময় বিকাল ০৫:৪০ মিনিটে গুহা থেকে প্রথম শিশুটিকে উদ্ধার করা হয়। উদ্ধারকৃত চারজনকেই হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। নতুন করে অভিযানের প্রস্তুতির জন্য ১০ ঘণ্টা সময় প্রয়োজন। সোমবার সকাল থেকে ফের উদ্ধার তৎপরতা শুরু হবে।

তিনি জানান, উদ্ধার অভিযানে অংশ নেওয়া ৯০ ডুবুরির মধ্যে ৫০ জন বিদেশি। বাকি ৪০ জন থাইল্যান্ডের নাগরিক।

সংশ্লিষ্ট একজন সেনা কর্মকর্তা গার্ডিয়ানকে জানিয়েছেন, গুহার ভেতরে এখন পানি কম। এজন্য সাঁতরে পার হওয়ার পরিকল্পনা করা হয়েছিল, এমন কিছু অংশ হেঁটেই পার হতে পেরেছে শিশুরা। গুহার ভেতরে এখনও আট শিশু ও তাদের ২৫ বছর বয়সী ফুটবল কোচ রয়েছেন। তারা যে স্থানটিতে আশ্রয় নিয়েছিলেন তা গুহার প্রবেশ মুখ থেকে ৪ কিলোমিটার ভেতরে। গুহাটি ১০ কিলোমিটার দীর্ঘ।

ওই শিশুদের কেউ সাঁতার জানতো না। তাদের উদ্ধারে বিদেশ থেকে বিশেষভাবে প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত ডুবুরিদের ডেকে আনা হয়েছিল। শিশুদের উদ্ধার প্রক্রিয়ায় থাই সেনাবাহিনীর একজন সাবেক ডুবুরি প্রাণ হারিয়েছেন। সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন, উদ্ধার অভিযানে ব্যবহার করার জন্য অক্সিজেন সিলিন্ডার বসানোর কাজ করতে গিয়ে তিনি জ্ঞান হারান। পরে তার মৃত্যু হয়।

 


 

উদ্ধার অভিযান নিয়ে বাংলা ট্রিবিউনের লাইভ কাভারেজ পড়ুন: থাই গুহায় উদ্ধার অভিযান


 

২২:৩০, জুলাই ০৮, ২০১৮

থাইল্যান্ডের অভিযানে চীনা রোবট, ব্রিটিশ ডুবুরি, অস্ট্রেলীয় চিকিৎসক, মার্কিন সেনা

বিদেশ ডেস্ক

১২ শিশুকে গুহা থেকে উদ্ধারের জন্য থাইল্যান্ডের প্রতি সহায়তার হাত বাড়িয়ে দিয়েছে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়। দেশটিতে এখন কাজ করছে বিভিন্ন দেশের বিশেষজ্ঞরা। একদিকে যেমন রয়েছেন গুহার ভেতর সাঁতারে বিশেষ পারদর্শী অস্ট্রেলীয় চিকিৎসক তেমনি রয়েছেন পানির নিচে কাজ করতে পারা রোবট সঙ্গে আনা চীনা উদ্ধারকর্মীরা। সেখানে উপস্থিত হয়েছেন ব্রিটিশ ডুবুরি ও মার্কিন বিমান বাহিনীর সদস্যরাও। থাইল্যান্ডে কাজ করা একজন বেলজিয়ান নাগরিকও এক পর্যায়ে থাই উদ্ধার কর্মীদের সঙ্গী হয়েছিলেন।

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প এক টুইটার বার্তায় জানিয়েছেন, আটকে পড়া ১২ শিশ ও তাদের কোচকে গুহা থেকে বের করে আনতে যে উদ্ধার তৎপরতা চলছে তাতে যুক্তরাষ্ট্র সহায়তা করছে। ট্রাম্প তার টুইটে উল্লেখ করেছেন, যুক্তরাষ্ট্র থাইল্যান্ড সরকারের সঙ্গে অত্যন্ত গভীরভাবে কাজ চালিয়ে যাচ্ছে। সিঙ্গাপুরভিত্তিক সংবাদমাধ্যম স্ত্রেইট টাইমস লিখেছে, ওই উদ্ধার অভিযানে যুক্তরাষ্ট্রের ৩০ জন সেনা সদস্য যুক্ত হয়েছেন। জাপানের ওকিনাওয়া দ্বীপে মোতায়েন থাকা মার্কিন বিমান বাহিনীর ১৭ জন উদ্ধারকারী সদস্যকে থাইল্যান্ডে পাঠানো হয়েছে। তারা ২৮ জুন সেখানে উপস্থিত হয়েছেন।

গুহায় আটকে পড়া ১২ ফুটবল খেলোয়াড় শিশু ও তাদের কোচকে উদ্ধারে বিদেশি সহায়তা প্রেরণের কথা উল্লেখ করে মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনএন জানিয়েছে, যুক্তরাষ্ট্র ছাড়াও যুক্তরাজ্য, চীন, অস্ট্রেলিয়া, জাপান, লাওস ও মিয়ানমার সরকার থাইল্যান্ডকে সহায়তা করেছে। তাছাড়া অনেক বেসরকারি বিদেশি প্রতিষ্ঠান যন্ত্রপাতি দিয়ে সহায়তা করতে চেয়েছে উদ্ধারকারীদের।

অস্ট্রেলিয়ার পক্ষ থেকে গুহার ভেতর সাঁতারে দক্ষ একজন চিকিৎসককে পাঠানোর কথা উল্লেখ করেছেন দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী জুলিয়া বিশপ। রিচার্ড হ্যারিস নামের ওই চিকিৎসকই শিশুদের কাছে পৌঁছে তাদের স্বাস্থ্যের বিষয় দেখভাল করেছেন।

 


উদ্ধার অভিযান নিয়ে বাংলা ট্রিবিউনের লাইভ কাভারেজ পড়ুন: থাই গুহায় উদ্ধার অভিযান


 


ব্রিটিশ ডুবুরি জন ভোলানথেন ও রিক স্ট্যান্টন থাইল্যান্ড সরকার ও ব্রিটিশ গুহা বিশেষজ্ঞ রবার্ট হারপারের অনুরোধে তারা উদ্ধার তৎপরতায় যুক্ত হয়েছেন। এই দুইজন ২০১০ সালে ফ্রান্সের একটি গুহায় চালানো উদ্ধার তৎপরতায় অংশ নিয়েছিলেন। বিবিসি জানিয়েছে, স্ট্যান্টন ২০০৪ সালেও এরকম এক উদ্ধার তৎপরতায় অংশ নিয়েছিলেন। ওই ঘটনায় মেক্সিকোর এক গুহা থেকে ১৩ ব্রিটিশ নাগরিককে উদ্ধার করা হয়।

আর জুন মাসের ২৯ তারিখে চীনা বিশেষজ্ঞদের দলটি উপস্থিত হয়েছে থাইল্যান্ডে। ৬ জনের চীনা দলটি তাদের সঙ্গে নিয়ে এসেছে উদ্ধার তৎপরতায় ব্যবহৃত রোবট ও উচ্চ প্রযুক্তির ত্রিমাত্রিক চিত্র তৈরির যন্ত্রপাতি।

থাইল্যান্ডে সাঁতারের স্কুল চালান এমন একজন বেলজিয়ান নাগরিক বেন রেমেন্যান্ট জানিয়েছেন, তিনি ২ জুলাই ৮ ঘণ্টা গুহার পানিতে উদ্ধার তৎপরতায় ছিলেন।

১৯:২৯, জুলাই ০৮, ২০১৮

গুহা থেকে উদ্ধার ৪ শিশু, বাকি আরও ৮ শিশু ও কোচ

বিদেশ ডেস্ক

থাইল্যান্ডের ‘থাম লুয়াং নায় নন’ গুহা থেকে এ পর্যন্ত মোট চার শিশুকে উদ্ধার করা হয়েছে। বাকিদের উদ্ধারের প্রক্রিয়া চলছে। রয়টার্সের খবরে প্রথমে অসমর্থিত সূত্রের বরাত দিয়ে ছয়জনকে উদ্ধারের কথা বলা হলেও পরে সংশোধিত প্রতিবেদনে চারজনকে উদ্ধারের কথা বলা হয়। উদ্ধারকৃতদের চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। তাদের মধ্যে একজনকে বিশেষ পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছে। প্রাদেশিক গভর্নর জানিয়েছেন, ১০ ঘণ্টা পর পুনরায় উদ্ধার অভিযান শুরু হবে। 

গার্ডিয়ানকে সংশ্লিষ্ট সেনা কর্মকর্তা জানিয়েছিলেন, গুহার ভেতরে এখন পানি কম। এজন্য কিছুটা অংশ, যা সাঁতরে পার হওয়ার পরিকল্পনা করা হয়েছিল, তা হেঁটেই পার হতে পেরেছে শিশুরা। গুহার ভেতরে এখনও আট শিশু ও তাদের ২৫ বছর বয়সী ফুটবল কোচ রয়েছেন। তারা যে স্থানটিতে আশ্রয় নিয়েছিলেন তা গুহার প্রবেশ মুখ থেকে ৪ কিলোমিটার ভেতরে। গুহাটি ১০ কিলোমিটার দীর্ঘ।

ওই শিশুদের কেউ সাঁতার জানতো না। তাদের উদ্ধারে বিদেশ থেকে বিশেষভাবে প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত ডুবুরিদের ডেকে আনা হয়েছিল। শিশুদের উদ্ধার প্রক্রিয়ায় থাই সেনাবাহিনীর একজন সাবেক ডুবুরি প্রাণ হারিয়েছেন। সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন, উদ্ধার অভিযানে ব্যবহার করার জন্য অক্সিজেন সিলিন্ডার বসানোর কাজ করতে গিয়ে তিনি জ্ঞান হারান। পরে তার মৃত্যু হয়।


উদ্ধার অভিযান নিয়ে বাংলা ট্রিবিউনের লাইভ কাভারেজ পড়ুন: থাই গুহায় উদ্ধার অভিযান


 

১৮:৩৩, জুলাই ০৮, ২০১৮

থাই গুহা থেকে অবশেষে ৪ শিশু উদ্ধার, নেওয়া হচ্ছে হাসপাতালে

বিদেশ ডেস্ক

থাই সেনাবাহিনীর একটি সূত্র জানিয়েছে, গুহার ভেতরে আটকে পড়া শিশুদের মধ্যে ৪ জনকে উদ্ধার করা হয়েছে। উদ্ধারকৃতদের হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। উদ্ধারের পর তাদের চিকিৎসা দেওয়ার জন্য আগে থেকেই অ্যাম্বুলেন্স ও হেলিকপ্টার প্রস্তুত করে রাখা হয়েছিল। সংবাদমাধ্যম আল জাজিরা জনিয়েছে, দুটি অ্যাম্বুলেন্সকে ঘটনাস্থল থেকে রওনা হতে দেখা গেছে। ২৩ জুন থাইল্যান্ডের স্থানীয় সময় বিকালে ১১ থেকে ১৬ বছর বয়সী ১২ ফুটবলার ও তাদের ২৫ বছর বয়সী কোচ থাইল্যান্ডের উত্তর অংশের প্রদেশ চিয়াং রাইয়ের ‘থাম লুয়াং নায় নন’ গুহায় প্রবেশ করেন। পরে বৃষ্টির পানিতে গুহা থেকে বের হওয়ার পথ ভেসে গেলে তারা নিরাপদ স্থানের সন্ধানে গুহার আরও ভেতরের দিকে চলে যাতে বাধ্য হয়। ৯ দিন পর তাদের অবস্থান শনাক্ত করে উদ্ধার তৎপরতা শুরু করে থাই কর্তৃপক্ষ।

 


উদ্ধার অভিযান নিয়ে বাংলা ট্রিবিউনের লাইভ কাভারেজ পড়ুন: থাই গুহায় উদ্ধার অভিযান


 

শিশুদের পরিবারের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, তাদের ফুটবল কোচ অনুশীলনের পর কখনও তাদেরকে সাঁতারের জন্য নিয়ে যেতেন, আবার কখনও ভ্রমণে। এমনই একদিন ছিল গত ২৩ জুন, যেদিন তারা গুহার ভেতরে ঢুকেছিল। তবে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে কেউ কেউ বলেছেন, কোচের উচিত হয়নি ১১ থেকে ১৬ বছর বয়সী ওই শিশুদের নিয়ে থাম লুয়াং নাং নন গুহায় ঢোকা। কারণ বর্ষাকালে যে গুহা পানি পূর্ণ হয়ে যায় সে বিষয়ে সতর্কতা জানিয়ে গুহার মুখে সাইনবোর্ড টাঙানো আছে। তবে শিশুদের পরিবারগুলোর পক্ষ থেকে কোচকে অপরাধবোধে ভুগতে নিষেধ করা হয়েছে। তারা মনে করেন না, এতে কোচের দোষ আছে।

১৮:১৯, জুলাই ০৮, ২০১৮

প্রথম ৩ জন উদ্ধার

সংবাদমাধ্যম আল জাজিরা জানিয়েছে, থাই গুহায় আটকে পড়া ১২ শিশু ও তাদের কোচের মধ্যে ৩ জনকে উদ্ধার করা হয়েছে। থাইল্যান্ডের একটি সেনাসূত্র আল জাজিরাকে এ খবর নিশ্চিত করেছে।

১৭:৫৪, জুলাই ০৮, ২০১৮

গুহার ৪ কিলোমিটার ভেতরে যে কারণে গিয়েছিল ছেলেরা

বিদেশ ডেস্ক

থাইল্যান্ডের গুহায় আটকে পড়া ফুটবল খেলোয়াড় ছেলেদের নিয়ে সবার কৌতূহল: তারা কেন গুহার অতটা ভেতরে গিয়েছিল? কানাডার সংবাদমাধ্যম গ্লোবাল নিউজ জানিয়েছে, অতটা ভেতরে তারা যেতে চায়নি। বৃষ্টির পানিতে গুহার বের হওয়ার পথ ডুবে যাওয়ায় তারা নিরাপদ আশ্রয়ের জন্য ভেতরে দিকে যেতে বাধ্য হয়েছিল। যত গুহার ভেতরে পানি বেড়েছে তত তাদের সরে যেতে হয়েছে।

১০ কিলোমিটার দীর্ঘ থাম লুয়াং নাং নন গুহার ৪ কিলোমিটার ভেতরে এখন তাদের অবস্থান। গুহা থেকে বের হওয়ার অনেক স্থানে পানি জমে আছে। তাদের সাঁতরে বের হতে হবে সেখান থেকে। প্রথমে তাদের স্কুবা ডাইভিং শেখানোর চেষ্টা করা হয়েছিল। এখন পরিকল্পনা করা হয়েছে, ডুবুরিরা তাদের সঙ্গে করে নিয়ে বের হবেন। থাই নিউজ এজেন্সির প্রকাশিত ইলাস্ট্রেশনে দেখানো হয়েছে, ডুবুরিদের অক্সিজেন সিলিন্ডার থেকে শিশুদের পানির নিচে অক্সিজেন সরবরাহ করা হবে।

শিশুদের পরিবারের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, তাদের ফুটবল কোচ অনুশীলনের পর কখনও তাদের সাঁতারের জন্য নিয়ে যেতেন, আবার কখনও ভ্রমণে। এমনই একদিন ছিল গত ২৩ জুন, যেদিন তারা গুহার ভেতরে ঢুকেছিল।


উদ্ধার অভিযান নিয়ে বাংলা ট্রিবিউনের লাইভ কাভারেজ পড়ুন: থাই গুহায় উদ্ধার অভিযান



তবে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে কেউ কেউ বলেছেন, কোচের উচিত হয়নি ১১ থেকে ১৬ বছর বয়সী ওই শিশুদের নিয়ে থাম লুয়াং নাং নন গুহায় ঢোকা। কারণ, বর্ষাকালে যে গুহা পানিপূর্ণ হয়ে যায় সে বিষয়ে সতর্কতা জানিয়ে গুহার মুখে সাইনবোর্ড টানানো আছে। তবে শিশুদের পরিবারগুলোর পক্ষ থেকে কোচকে অপরাধবোধে ভুগতে নিষেধ করা হয়েছে। তারা মনে করেন না এতে কোচের দোষ আছে।

১৭:০৪, জুলাই ০৮, ২০১৮

ছেলেরা গুহা থেকে যেভাবে সাঁতরে বের হবে

বিদেশ ডেস্ক

গুহা থেকে ছেলেদের সাঁতরেই বের হতে হবে। তাদের গুহা থেকে বের হওয়ার প্রক্রিয়ার ওপর একটি ইলাস্ট্রেশন প্রকাশ করেছে থাই নিউজ এজেন্সি। ছবিতে দেখা যাচ্ছে, এক ডুবুরির সঙ্গে একটি ছেলেদের বেঁধে রাখা হয়েছে। আর ডুবুরির অক্সিজেন সিলিন্ডার থেকে তাকে অক্সিজেন সরবরাহ করা হচ্ছে। ডুবুরিদের যাতে পথ ভুল না হয়ে যায় সেজন্য দড়ি বেঁধে রাখা হয়েছে। ওই দড়ি ধরে ধরে তারা সামনে এগোবেন।

 

২৩ জুন থাইল্যান্ডের স্থানীয় সময় বিকালে ১১ থেকে ১৬ বছর বয়সী ১২ ফুটবলার ও তাদের ২৫ বছর বয়সী কোচ থাইল্যান্ডের উত্তর অংশের প্রদেশ চিয়াং রাইয়ের ‘থাম লুয়াং নায় নন’ গুহায় প্রবেশ করেন। তাদের উদ্ধারে থাইল্যান্ডের স্থানীয় ডুবুরিরা ছাড়াও কাজ করছেন গুহার ভেতরে সাঁতারে বিশেষভাবে পারদর্শী বিদেশি সাঁতারুরা। সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন, উন্মুক্ত জলে সাঁতার কাটা আর গুহার অন্ধকারে ছোট পরিসরে সাঁতার কাটা এক বিষয় নয়। গুহার ভেতরে সাঁতরে উদ্ধার তৎপরতা চালানোর জন্য তারা বিশেষভাবে দক্ষ।
যুক্তরাজ্যভিত্তিক সংবাদমাধ্যম গার্ডিয়ান লিখেছে, আজ সকালে সেখানে প্রচুর বৃষ্টিপাত হয়েছে। প্রতিবারের বৃষ্টিপাতে উদ্ধার তৎপরতার সঙ্গে সংশ্লিষ্টদের চোখে-মুখে আতঙ্ক ফুটে উঠতে দেখা গেছে। তবে আশার কথা বৃষ্টিপাত খুব বেশিক্ষণ স্থায়ী হয়নি। ঘন্টাখানেক ধরে বৃসটি হলেও তা মুশলধারে ছিল না। এখন উদ্ধার ওই পাহাড় ও তার আশেপাশের এলাকায় তেমন পানি নেই।


উদ্ধার অভিযান নিয়ে বাংলা ট্রিবিউনের লাইভ কাভারেজ পড়ুন: থাই গুহায় উদ্ধার অভিযান



ঘটনাস্থলে উপস্থিত একজন ইসরায়েলি ডুবুরি রাফায়েল আরৌশ মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনএনকে বলেছেন, ‘মুখ্য বিষয় হচ্ছে গতি। উদ্ধার পরিকল্পনায় হঠাটি যেকোনও পরিবর্তন আনার দরকার হতে পারে। হয়তো আজকের মধ্যেই সবাইকে বের করে আনার সিদ্ধান্ত দিয়ে দেওয়া হবে।’

তার ভাষ্য, গুহাটি চুনাপাথরের। গুহার ভেতরে পানি ঢোকার অনেক পথ রয়েছে। বৃষ্টিপাতের কারণে তাই গুহার ভেতর পানি ঢুকতেই থাকবে, যা উধার তৎপরতার জন্য ভালো কিছু নয়।   এতে এমনকি পুরো উদ্ধার তৎপরতাই হুমকির মুখে পড়তে পারে।

১৬:৩০, জুলাই ০৮, ২০১৮

পাহাড়ি ওই এলাকার মডেল দেখলেন সাংবাদিকরা

ফুটবলার শিশুরা যে গুহায় আটকে রয়েছে তার আশেপাশের পাহাড়ি এলাকার একটি মডেল দেখা গেছে স্থানীয় একটি সরকারি অফিসে। প্লাস্টিকের মডেলটি দেখে সাংবাদিকরা এলাকাটির সার্বিক গঠন বুঝতে পারছেন। অনুলিপিটি রয়েছে ফং ফা সাব-ডিসট্রিক্ট অফিসে। উদ্ধার তৎপরতা অংশ হিসেবে আজ সকালে সাংবাদিকদের ওই অফিসে অবস্থান নেওয়ার অনুরোধ করা হয়েছে।

১৬:০৫, জুলাই ০৮, ২০১৮

গুহার ভেতরে ১৫ বছরে পা দিলো প্রাজাক সুতাম

ছবিটি কিশোর প্রাজাক সুতাম, গুহায় আটকে পড়া একজনের। জুলাই মাসের ১ তারিখে সে ১৫ বছরে পা দেয়। ব্রিটিশ ডুবুরি তাকে ও তার বন্ধুদের যেদিন খুঁজে পান তার আগের দিনই ছিল সুতামের জন্মদিন।

প্রাজাক সুতাম

প্রাজাকের চাচি সিএনএনকে জানান, জন্মদিন নিয়ে এখনও কোনও পরিকল্পনা করা হয়নি। তাকে দেখার জন্যই মুখিয়ে আছেন তিনি।

চাচি সালিসা প্রমজাক বলেন, প্রতিটি সেকেন্ড আমি তার অপেক্ষায় আছি। আমি তাকে দেখতে চাই, আলিঙ্গন করতে চাই।

প্রাজাকের দাদি কিওখাম চান্তাফোনও তাকে কাছে পাওয়ার জন্য উন্মুখ হয়ে আছেন। বলেন, বলতে চাই পৃথিবীতে আমি তোমাকে অনেক বেশি ভালোবাসি। তোমাকে খুব বেশি মনে পড়ছে। 

১৫:৪৪, জুলাই ০৮, ২০১৮

স্বজনদের উদ্বিগ্ন অপেক্ষা

আটকে পড়া কিশোরদের স্বজনদের জন্য এই দিনটি ছিল বহুল প্রতীক্ষিত। একই সঙ্গে উদ্বেগও কাজ করছে তাদের মনে। রবিবার সিএনএন গুহায় আটকে পড়া পিরাপাত সমপিয়াংযাইয়ের বাড়িতে যায়। সেখানে তার আত্মীয়দের টেলিভিশনের পর্দায় চোখ রেখে বসে থাকতে দেখা গেছে। যেদিন কিশোররা নিখোঁজ হয় ওইদিনই পিরাপাত ১৬ বছরে পদার্পণ করে। অনুসন্ধানের সময় পরিবার জানায়, তার জন্মদিনের কেকটিতে কেউ স্পর্শ করেনি। তাদের আশা সে ফিরে এসে সবার সঙ্গে কেক কাটবে। 

স্বজনদের উদ্বিগ্ন অপেক্ষা

১৫:৪২, জুলাই ০৮, ২০১৮

গুহা মুখে নতুন অক্সিজেন ক্যানিস্টার সরবরাহ

গুহা মুখে সব ধরনের প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা আরোপের আগ মুহূর্তে অক্সিজেন ক্যানিস্টার নিয়ে একটি ট্রাক পৌঁছায়

 

১৫:৩৫, জুলাই ০৮, ২০১৮

প্রথমে বের হবে কিশোর স্যাম, সবশেষে কোচ

বিদেশ ডেস্ক

গুহার ভেতরে অবস্থান করছে দেশি ও আন্তর্জাতিক দক্ষ ডুবুরি দল। গুহার বাইরে প্রস্তুত রয়েছে ট্রলি। উদ্ধারকৃতদের ওই ট্রলিতে করেই নেওয়া হবে নিকটস্থ হাসপাতালে। উদ্ধার তৎপরতায় সংশ্লিষ্ট এক সূত্রের বরাত দিয়ে প্রভাবশালী ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম দ্য গার্ডিয়ান জানিয়েছে, পৃথক কয়েকটি দলে ভাগ করে আটকে পড়াদের বের করে আনার চেষ্টা হবে। ১৪ বছরের কিশোর স্যামকে বের করে আনা হবে সবার আগে, সবশেষে বের হবেন কোচ একাপল চান্থাওং।


গত ২৩ জুন ফুটবল অনুশীলন শেষে ২৫ বছর বয়সী কোচসহ ওই ১২ কিশোর ফুটবলার গুহাটির ভেতরে ঘুরতে গিয়েছিল। কিন্তু বৃষ্টিতে গুহার প্রবেশমুখ বন্ধ হয়ে যাওয়াতে তারা আর বাইরে বের হতে পারেনি। এরপর থেকে টানা ৯ দিন নিখোঁজ থাকার পর গত ২ জুলাই গুহার ভেতরে জীবিত অবস্থায় তাদেরকে শনাক্ত করে ডুবুরিরা। রবিবার (৮ জুলাই) থাইল্যান্ড সরকার তাদের উদ্ধারে দেশি-বিদেশি বিশেষজ্ঞদের নিয়ে স্মরণকালের সবচেয়ে বড় উদ্ধার অভিযান শুরু করেছে।


 

উদ্ধার অভিযান নিয়ে বাংলা ট্রিবিউনের লাইভ কাভারেজ পড়ুন: থাই গুহায় উদ্ধার অভিযান


 

বিবিসির একজন প্রতিবেদক জানিয়েছেন, ১৫ দিন ধরে গুহায় আটকে থাকা কিশোরদেরকে নিয়ে ফেরার পথে গুহার একটি জায়গায় কিছুক্ষণ বিশ্রাম নেওয়া হবে। পরে সেখান থেকে শেষ দফা যাত্রায় তাদেরকে বাইরে বের করে আনা হবে। বাইরে বের করে আনার পর সোজা হাসপাতালে পাঠানো হবে কিশোরদের। আরেক ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম দ্য গার্ডিয়ানের খবরে বলা হয়েছে, অভিযানের শুরুতে পানির নিচ দিয়ে সংকীর্ণ পথ পাড়ি দিতে হবে কিশোরদের, যেটিকে সবচেয়ে ঝুঁকিপূর্ণ বলে মনে করা হচ্ছে। উদ্ধার অভিযানে কিশোরদের বের করে আনার সময় থেকে তাদের দীর্ঘ সময় অক্সিজেন মাস্ক পরে পানির নিচে ডুব দিতে হবে। 

২৩ জুন থেকে থাই গুহায় আটকা পড়ে আছে এ শিশুরা
গুহার প্রবেশপথ থেকে ‘তৃতীয় চেম্বার’ বা অভিযান শুরুর এলাকার দিকে যেতে হলে দেড় কিলোমিটার পথ পাড়ি দিতে হবে উদ্ধারকারীদের। এ পুরো পথটুকু পুরোপুরি শুকনো নয়, তবে বেশিরভাগটাই হেঁটে পার হওয়া যাবে। আর ‘তৃতীয় চেম্বার’ থেকে শিশুদের কাছে পৌঁছাতে হলে তাদেরকে যেতে হবে আরও ১.৭ কিলোমিটার। এক সূত্র ব্যাংকক পোস্টকে জানিয়েছে, আটকে পড়া ফুটবলারদের চারটি দলে ভাগ করা হবে। প্রথম দলে থাকবে চারজন। আর দ্বিতীয়, তৃতীয় ও চতুর্থ দলটিতে থাকবে তিনজন করে। বের হয়ে আসার সময় প্রত্যেক শিশুকেই খুব কাছ দেখে পাহারা দেবে দুইজন করে ডুবুরি। উদ্ধারকারী কর্তৃপক্ষের তথ্য অনুযায়ী, শুরুতে বের হতে যাওয়া চার শিশুর মধ্যে সবার আগে বের হবে ১৪ বছর বয়সী আদুল ‘দুল’ স্যাম। আটকে পড়া ফুটবল দলটির কোচ বের হবেন সবার শেষে।
থাই নেভি সিলস-এর ফেসবুক পেজে উদ্ধার প্রচেষ্টার একটি ছবি পোস্ট করা হয়েছে। স্থানীয় ও আন্তর্জাতিক উদ্ধারকারীরা কিভাবে একত্রিত হয়ে গত ১৫ দিন ধরে আটকে পড়া শিশুদের উদ্ধারে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন, সে চিত্রই ফুটে উঠেছে ছবিতে। থাই ভাষায় ছবির বর্ণনা দেওয়া হয়েছে। গুগল ট্রান্সলেটে তা ভাষান্তর করলে দাঁড়ায়, ‘আমরা....থাই ও আন্তর্জাতিক দল মিলে যৌথভাবে ওয়াইল্ড বোয়ার ফুটবল দলকে বাড়িতে ফিরিয়ে নিতে কাজ করছি।’ ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম গার্ডিয়ানের প্রতিবেদন থেকে জানা যায়, আটকে পড়া শিশুদের উদ্ধারের পর তাদেরকে চিয়াংগ্রাই প্রাচানুকরোহ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হবে। গুহা থেকে হাসপাতালটির দূরত্ব প্রায় ৬০ মাইল। গুহার প্রধান প্রবেশপথের বাইরে কয়েকটি ট্রলি প্রস্তুত রাখা হয়েছে।

গত ২ জুলাই দুজন ব্রিটিশ ডুবুরি গুহার বেশ কয়েক কিলোমিটার ভেতরে গিয়ে আটকে পড়া কিশোর ফুটবলার ও তাদের কোচকে শনাক্ত করতে সক্ষম হয়। এরপর থেকে তাদেরকে খাবার ও চিকিৎসা সেবা দেওয়া হচ্ছে। সরবরাহ করা হচ্ছে অক্সিজেন।

 

১৪:৫৫, জুলাই ০৮, ২০১৮

থাইল্যান্ডের সেই গভীর গুহায় ভার্চুয়াল ভ্রমণ (ভিডিও)

বিদেশ ডেস্ক

থাইল্যান্ডের গভীর গুহায় আটকে পড়া কিশোর ফুটবলারদের উদ্ধারে সর্বাত্মক প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে কর্তৃপক্ষ। ৮ জুলাই রবিবার দিনটিকেই মোক্ষম সময় হিসেবে বিবেচনায় নিয়ে এরইমধ্যে উদ্ধার অভিযান শুরুর ঘোষণা দিয়েছে কর্তৃপক্ষ। ১৩ জন উচ্চপ্রশিক্ষিত বিদেশি ও পাঁচজন থাই নেভি উদ্ধারকারী ডাইভার এ অভিযানে অংশ নিয়েছেন। একে একে সব কিশোরকে বের করে আনতে তিন-চার দিন সময় লাগতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে। উদ্ধারকারীরা এ অভিযানকে ‘হয় এখনই, নয়তো কখনোই নয়’ হিসেবে বর্ণনা করেছেন। 


 

উদ্ধার অভিযান নিয়ে বাংলা ট্রিবিউনের লাইভ কাভারেজ পড়ুন: থাই গুহায় উদ্ধার অভিযান


 

গুহায় আটকে পড়া ১২ কিশোর ফুটবলার ও তাদের কোচকে ঠিক কী উপায়ে বের করে আনা হবে, সে ব্যাপারে এখনও কিছু জানানো হয়নি। তবে ধারণা করা হচ্ছে, গুহার ভেতর গভীর পানিতে ডুবুরিদের সহায়তায় এবং অল্প পানিতে হেঁটে তাদেরকে বের করে আনা হবে।আটকে পড়া কিশোরদের উদ্ধারে উদ্ধারকারীরা ঠিক কী ধরনের বাধার সম্মুখীন হচ্ছেন, এক ভার্চুয়াল উপস্থাপনার মধ্য দিয়ে তা হাজির করার চেষ্টা করেছেন মার্কিন সম্প্রচারমাধ্যম সিএনএন-এর সাংবাদিক টম ফোরম্যান।





গত ২৩ জুন ফুটবল অনুশীলন শেষে ২৫ বছর বয়সী কোচসহ ওই ১২ কিশোর ফুটবলার গুহাটির ভেতরে ঘুরতে গিয়েছিল। কিন্তু বৃষ্টিতে গুহার প্রবেশমুখ বন্ধ হয়ে যাওয়াতে তারা আর বাইরে বের হতে পারেনি। এরপর থেকে টানা ৯ দিন নিখোঁজ ছিল তারা। থাইল্যান্ড সরকার তাদের উদ্ধারে দেশি-বিদেশি বিশেষজ্ঞদের নিয়ে স্মরণকালের সবচেয়ে বড় উদ্ধার অভিযান শুরু করে। গত ৩ জুলাই দুজন ব্রিটিশ ডুবুরি গুহার বেশ কয়েক কিলোমিটার ভেতরে গিয়ে প্রথম তাদের খুঁজে পান। এরপর তাদেরকে খাবার ও চিকিৎসা সেবা দেওয়া হচ্ছে। সরবরাহ করা হচ্ছে অক্সিজেন। 

১৪:৫১, জুলাই ০৮, ২০১৮

শুরু হয়েছে তুমুল বৃষ্টি

গুহা থেকে এক মাইল দূরে প্রেস সেন্টারে তুমুল বৃষ্টি শুরু হয়েছে। তবে গুহা থেকে সেচে পানি কমানো অব্যাহত রয়েছে।

 

১৪:৩০, জুলাই ০৮, ২০১৮

খুদে সাব-মেরিন ছাড়াই চলবে থাই কিশোরদের উদ্ধার অভিযান?

বিদেশ ডেস্ক

থাইল্যান্ডের গুহায় আটকে পড়া কিশোরদের উদ্ধারের সময় পানিপূর্ণ সরু পথ পাড়ি দিতে খুদে সাবমেরিন তৈরি করে দেওয়ার প্রস্তাব দিয়েছিলেন মার্কিন ধনকুবের ও  উদ্যোক্তা অ্যালন মুস্ক। নিজের রকেট কোম্পানি থেকে পানির নিচ দিয়ে চলা সাব-মেরিনের খুদে একটি সংস্করণ বানিয়ে দিতে চেয়েছিলেন তিনি। তবে রবিবার সকালে ওই সাবমেরিন ছাড়াই বিশেষজ্ঞ দেশি-বিদেশি ডুবুরিদের নিয়ে উদ্ধার অভিযান শুরু করে থাই কর্তৃপক্ষ। অভিযান শুরুর পর টুইটার বার্তায় মুস্ক ‘গভীর প্রতিভাবান ডুবুরি দলের’ সাফল্য কামনা করেছেন। প্রভাবশালী ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম দ্য গার্ডিয়ানের খবরে আশঙ্কা প্রকাশ করা হয়েছে, এই টুইটের মাধ্যমে উদ্ধার অভিযানে অ্যালন মুস্কের সম্পৃক্ততার ইতি ঘটেছে।
২৩ জুন থাইল্যান্ডের স্থানীয় সময় বিকালে ১১ থেকে ১৬ বছর বয়সী ১২ ফুটবলার ও তাদের ২৫ বছর বয়সী কোচ থাইল্যান্ডের উত্তর অংশের প্রদেশ চিয়াং রাইয়ের ‘থাম লুয়াং নায় নন’ গুহায় প্রবেশ করেন। বৃষ্টির পানি জমে যাওয়ায় গুহাটিতে আটকে পড়ে তারা। নয়দিন পর তাদের সন্ধান পাওয়া গেলেও উদ্ধার নিয়ে নানা শঙ্কা দেখা দেয়। বৃষ্টির পানি জমে যাওয়ায় শনিবার এই উদ্ধার তৎপরতা স্থগিত করা হয়।


 

উদ্ধার অভিযান নিয়ে বাংলা ট্রিবিউনের লাইভ কাভারেজ পড়ুন: থাই গুহায় উদ্ধার অভিযান


 

এদিন রাতে একের পর এক টুইট করে অ্যালন মুস্ক অভিযানে সহায়তার প্রস্তাব দেন। এসব টুইটে তিনি জানান,  লস এঞ্জেলসে তার রকেট কোম্পানি স্পেস এক্স একটি খুদে সাব মেরিন তৈরি করে দিতে পারে। এটা তৈরি করতে লাগবে আট ঘণ্টা আর থাইল্যান্ডে তা পাঠাতে লাগবে ১৭ ঘণ্টা। ওই সাবমেরিনে চড়ে পানিপূর্ণ সরু সুড়ঙ্গ পথ পাড়ি দিতে পারতো কিশোর ফুটবলাররা। মুস্কের একজন মুখপাত্রকে উদ্ধৃত করে থাইল্যান্ডভিত্তিক ব্যাংকক পোস্ট জানিয়েছে, সরকারের সঙ্গে তার প্রতিনিধিদল ওই সাবমেরিনের ব্যাপারে আলোচনা করেছে। তবে এ ব্যাপারে সরকারের প্রতিক্রিয়া জানা যায়নি। রবিবার পানির উচ্চতা কমে যাওয়ায় সর্বাত্মক অভিযান শুরু করে থাই কর্তৃপক্ষ। 

স্থানীয় সময় রাত নয়টার দিকে প্রথম দলটিকে বাইরে বের করে আনা সম্ভব হবে আশা করছে থাই কর্তৃপক্ষ। আবহাওয়া অনুকুলে থাকলে আগামী কয়েকদিনের মধ্যে সবাইকে বের করে এনে অভিযানের শেষ করার আশা তাদের।

উদ্ধার অভিযান শুরুর পর টুইটারে সাবমেরিনের ব্যাপারে আর কিছু বলেননি মুস্ক নিজেও। ডুবুরি দলকে অত্যন্ত দক্ষ আখ্যা দিয়ে উদ্ধার অভিযানের সাফল্য কামনা করেছেন তিনি।

১৪:২৪, জুলাই ০৮, ২০১৮

সব পরিবার উদ্ধার অভিযানের অনুমতি দেয়নি

বিদেশ ডেস্ক

থাইল্যান্ডের গুহায় আটকে পড়া ১২ কিশোর ফুটবলার ও তাদের কোচকে উদ্ধারে অভিযান শুরু হয়েছে রবিবার সকালে। তবে এই অভিযান শুরু করার বিষয়ে আটকে পড়া কিশোরদের সবার পরিবার সম্মতি দেয়নি। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম দ্য গার্ডিয়ান এখবর জানিয়েছে।

রবিবার সংবাদ সম্মেলনে কথা বলছেন স্থানীয় গভর্নর

রবিবার স্থানীয় চিয়াং রাই প্রদেশের গভর্নর নারোংসাককে এক সাংবাদিক প্রশ্ন করেন, উদ্ধার অভিযানে সব পরিবার সম্মতি দিয়েছে কিনা? এই প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, না। তারা জানের ও বুঝতে পারবেন।

এসময় টেন অস্ট্রেলিয়া নেটওয়ার্কের সাংবাদিক ড্যানিয়েল সুটন জানতে চান, তারা কি অনুমতি দিয়েছে? তখন গভর্নর আবারও জবাব দেন, তারা জানেন এবং বুঝবেন।


 

উদ্ধার অভিযান নিয়ে বাংলা ট্রিবিউনের লাইভ কাভারেজ পড়ুন: থাই গুহায় উদ্ধার অভিযান


 

এর আগে গভর্নর জানান, উদ্ধার অভিযান শুরু করার চূড়ান্ত প্রস্তুতি নেওয়া হয়ে গেছে। পানির উচ্চতাও কমেছে। বৃষ্টির পূর্বাভাস থাকায় আজ (রবিবার) উদ্ধার অভিযান শুরু করা ছাড়া উপায় ছিল না। তিনি বলেন, আজকের চেয়ে ভালো প্রস্তুতি আমাদের নেওয়া সম্ভব হতো না। অন্যথায় আমরা সুযোগ হারাব।

সবকিছু ঠিক থাকলে আজ থাইল্যান্ড স্থানীয় সময় রাত ৯টা নাগাদ প্রথম কিশোরকে বের করে আনা হতে পারে। কতজনকে আজ বের করা হবে, সেটা জানা না গেলেও উদ্ধারকারীরা বলছেন, যারা ‘শতভাগ প্রস্তুত’ তাদেরকেই আজ বের করা হবে। 

উল্লেখ্য, গত ২৩ জুন ফুটবল অনুশীলন শেষে ২৫ বছর বয়সী কোচসহ ওই ১২ কিশোর ফুটবলার গুহাটির ভেতরে ঘুরতে গিয়েছিল। কিন্তু বৃষ্টিতে গুহার প্রবেশমুখ বন্ধ হয়ে যাওয়াতে তারা আর বাইরে বের হতে পারেনি। এরপর থেকে টানা ৯ দিন নিখোঁজ ছিল তারা। থাইল্যান্ড সরকার তাদের উদ্ধারে দেশি-বিদেশি বিশেষজ্ঞদের নিয়ে স্মরণকালের সবচেয়ে বড় উদ্ধার অভিযান শুরু করে। গত ৩ জুলাই দুজন ব্রিটিশ ডুবুরি গুহার বেশ কয়েক কিলোমিটার ভেতরে গিয়ে প্রথম তাদের খুঁজে পান। এরপর তাদেরকে খাবার ও চিকিৎসা সেবা দেওয়া হচ্ছে। সরবরাহ করা হচ্ছে অক্সিজেন। 

 

১৪:০৫, জুলাই ০৮, ২০১৮

অভিযানে অংশ নিচ্ছেন অস্ট্রেলীয় চিকিৎসক ও ডুবুরি

আঠারো সদস্যের উদ্ধারকর্মীদের বিস্তারিত জানা যায়নি। তবে জানা গেছে অভিযানে অংশ নিচ্ছেন অস্ট্রেলীয় এক চিকিৎসক এবং  ড. রিচার্ড হ্যারিস নামের এক ডুবুরি। বেসামরিক এই ডুবুরিকে উদ্ধার অভিযানে অংশ নেওয়ার জন্য আহ্বান জানায় ব্রিটিশ নৌবাহিনী।

১৩:২৯, জুলাই ০৮, ২০১৮

সাংবাদিকদের দীর্ঘ অপেক্ষা, গুহা মুখে অবস্থানে নিষেধাজ্ঞা

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম দ্য গার্ডিয়ানের রিপোর্টার জ্যাকব গোল্ডবার্গ উদ্ধারস্থল থেকে জানান, গুহার কাছে ক্যামেরা ক্রুদের উপস্থিতিতে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। একই সঙ্গে উদ্ধারের ছবি তুলতেও নিষেধ করা হয়েছে। সাংবাদিক ও ক্যামেরা ক্রুরা এখন উদ্ধারস্থলের পাশে অবস্থান নিয়েছেন। সেখান থেকেই গুহার প্রবেশ মুখের স্পষ্ট চিত্র পাওয়া চেষ্টা করছেন।

উদ্ধার অভিযান শুরু হয়েছে স্থানীয় সময় সকাল দশটায়। এখন মাত্র দুপুর। আটকে পড়া কিশোরদের মধ্যে প্রথম জন রাত ৯টায় বের হয়ে আসতে পারে। জ্যাকব লিখেছেন, অনেক দীর্ঘ সময় অপেক্ষা করতে হবে।

১৩:১৭, জুলাই ০৮, ২০১৮

কিশোর ফুটবল দলের কোচ খলনায়ক না নায়ক?

বিবিসি লিখেছে, ২৫ বছরের কোচ একাপল চান্থাওং। আকে নামেও তিনি পরিচিত। কিশোর ফুটবলারদের তিনিই গুহার ভেতরে নিয়ে গেছেন। তাকে নিয়ে মানুষের মত দ্বিধাবিভক্ত। কেউ কেউ কিশোরদের গুহায় নিয়ে যাওয়ার জন্য দায়ী করছেন। আবার কেউ কেউ প্রশংসা করছেন এরকম পরিস্থিতিতে কিশোরদের জন্য তার ভূমিকার কারণে।

যখন তাদের জীবিত সন্ধান পাওয়ার পর সন্ধানকারী ডুবুরি জানান, আটকে পড়াদের মধ্যে সবচেয়ে দুর্বল অবস্থায় ছিলেন কোচ। নিজে না খেয়ে কিশোরদের খেতে দিয়েছেন কোচ।

পরে হাতে লেখা এক চিঠিতে কোচ কিশোরদের স্বজনদের কাছে ক্ষমা চেয়েছেন। অভিভাবকদের অনেকেই জানিয়েছেন, তারা কোচকে কোনও দোষ দিচ্ছেন না।

গুহায় আটকে পড়া কয়েকজন কিশোরের সঙ্গে কোচ

মার্কিন সংবাদমাধ্যম ওয়াশিংটন পোস্টের দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া প্রতিনিধি শিবানি মাহতানি টুইটারে লিখেছেন, কিশোর ফুটবলের কোচ নিয়ে দুই ধরনের মনোভাব দেখা যাচ্ছে। যুক্তরাষ্ট্রে হলে তাকে আইনি বা মামলার মুখে পড়তে হতো। কিন্তু থাইল্যান্ডে তাকে নায়ক হিসেবে বিবেচনা করা হচ্ছে।

১৩:০২, জুলাই ০৮, ২০১৮

গুহা থেকে যেভাবে বের করে আনার চেষ্টা চলছে কিশোরদের

বিদেশ ডেস্ক

৮ জুলাই রবিবার দিনটিকেই মোক্ষম সময় হিসেবে বিবেচনায় নিয়ে থাইল্যান্ডের গভীর গুহায় আটকে পড়া ১২ কিশোর ফুটবলার ও তাদের কোচকে উদ্ধারে চূড়ান্ত অভিযান শুরু হয়েছে। ঠিক কী উপায়ে তাদের বের করে আনা হবে, সে ব্যাপারে এখনও কিছু জানানো হয়নি। তবে ধারণা করা হচ্ছে, গুহার ভেতর গভীর পানিতে ডুবুরিদের সহায়তায় এবং অল্প পানিতে হেঁটে তাদের বের করে আনা হবে। ১৩ জন উচ্চ প্রশিক্ষিত বিদেশি ও পাঁচজন থাই নেভি উদ্ধারকারী ডাইভার এ অভিযানে অংশ নিয়েছেন। একে একে সব কিশোরকে বের করে আনতে তিন-চার দিন সময় লাগতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে। উদ্ধারকারীরা এ অভিযানকে ‘হয় এখনই, নয়তো কখনোই নয়’ হিসেবে বর্ণনা করেছেন।


গত ২৩ জুন ফুটবল অনুশীলন শেষে ২৫ বছর বয়সী কোচসহ ওই ১২ কিশোর ফুটবলার গুহাটির ভেতরে ঘুরতে গিয়েছিল। কিন্তু বৃষ্টিতে গুহার প্রবেশমুখ বন্ধ হয়ে যাওয়ায় তারা আর বের হতে পারেনি। এরপর থেকে টানা ৯ দিন নিখোঁজ ছিল তারা। থাইল্যান্ড সরকার তাদের উদ্ধারে দেশি-বিদেশি বিশেষজ্ঞদের নিয়ে স্মরণকালের সবচেয়ে বড় উদ্ধার অভিযান শুরু করে। গত ৩ জুলাই দুজন ব্রিটিশ ডুবুরি গুহার বেশ কয়েক কিলোমিটার ভেতরে গিয়ে প্রথম তাদের খুঁজে পান। এরপর তাদের খাবার ও চিকিৎসা সেবা দেওয়া হচ্ছে। সরবরাহ করা হচ্ছে অক্সিজেন। 


 

উদ্ধার অভিযান নিয়ে বাংলা ট্রিবিউনের লাইভ কাভারেজ পড়ুন: থাই গুহায় উদ্ধার অভিযান


 

৮ জুলাই রবিবার স্থানীয় সময় সকাল ১০টায় উদ্ধারকারীদের একটি দল গুহার ভেতরে রওনা দিয়েছে বলে নিশ্চিত করেছেন উদ্ধার অভিযানের প্রধান কমান্ডার নারোংসাক ওসোটানাকোর্ন। তিনি জানিয়েছেন, ছেলেদের মনোবল শক্ত আছে, তারা যেকোন চ্যালেঞ্জ নিতে প্রস্তুত। ওই কিশোররা বাইরে বেরিয়ে আসতে দৃঢ়প্রতিজ্ঞ বলেও জানিয়েছেন তিনি। কিশোরদের কাছে পৌঁছানোর জন্য ডুবুরিদের সঠিকভাবে এ সংকীর্ণ গুহাটি পাড়ি দিতে হবে। প্রতিজন কিশোরের সঙ্গে দুজন করে ডুবুরি থাকবেন। পুরো গুহার বিভিন্ন জায়গায় বাড়তি অক্সিজেন ট্যাংক স্থাপন করা হয়েছে, যাতে কোনোভাবেই যাত্রাপথে অক্সিজেন সংকটে পড়তে না হয়। বিবিসির একজন প্রতিবেদক জানিয়েছেন, ১৫ দিন ধরে গুহায় আটকে থাকা কিশোরদের নিয়ে ফেরার পথে গুহার একটি জায়গায় কিছুক্ষণ বিশ্রাম নেওয়া হবে। পরে সেখান থেকে শেষ দফা যাত্রায় তাদের বাইরে বের করে আনা হবে। বাইরে আনার পর সোজা হাসপাতালে পাঠানো হবে কিশোরদের।

আরেক ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম দ্য গার্ডিয়ানের খবরে বলা হয়েছে, অভিযানের শুরুতে পানির নিচে সংকীর্ণ পথ পাড়ি দিতে হবে কিশোরদের, যেটিকে সবচেয়ে ঝুঁকিপূর্ণ বলে মনে করা হচ্ছে। উদ্ধার অভিযানে কিশোরদের বের করে আনার সময় থেকে তাদের দীর্ঘ সময় অক্সিজেন মাস্ক পরে পানির নিচে ডুব দিতে হবে। এ ধরনের অভিজ্ঞতা তাদের কারোরই আগে ছিল না। গুহার প্রবেশপথ থেকে ‘তৃতীয় চেম্বার’ বা অভিযান শুরুর এলাকার দিকে যেতে হলে দেড় কিলোমিটার পথ পাড়ি দিতে হবে উদ্ধারকারীদের। এ পুরো পথটুকু পুরোপুরি শুকনো নয়, তবে বেশিরভাগ হেঁটে পার হওয়া যাবে। আর ‘তৃতীয় চেম্বার’ থেকে শিশুদের কাছে পৌঁছাতে হলে তাদের যেতে হবে আরও ১.৭ কিলোমিটার। ওসাতানাকর্ন জানান, ‘গতকাল পানির উচ্চতা সবচেয়ে কম মাত্রার ছিল।’ তবে ওই শিশুদের তৃতীয় চেম্বারে আসতে ১.৭ কিলোমিটার পথ পুরোটা সাঁতরে আসতে হবে কিনা তা জানাননি ওসাতানাকর্ন। তিনি বলেছেন, বেশিরভাগ পথই হেঁটে পার হওয়ার উপযোগী। শনিবার থেকে পানির উচ্চতা ৩০ সেন্টিমিটার কমেছে। উদ্ধার অভিযানের জন্য চূড়ান্ত প্রস্তুতির কথা জানিয়ে ওসাতানাকর্ন বলেন, ‘প্রস্তুতির মানে হলো অনুকূল আবহাওয়া, পানি ও বাচ্চাদের শারীরিক ও মানসিক প্রস্তুতি।’

একদিন আগে শনিবার নারোংসাক ওসাতানাকর্ন  জানিয়েছিলেন, অক্সিজেনের মাত্রা কমে যাওয়া এবং ভারী বৃষ্টিপাতের কারণে গুহার ভেতরে তাদের আর বেশি দিন টিকে থাকা সম্ভব হবে না। সর্বোচ্চ তিন থেকে চারদিন সময় পাওয়া যাবে। এর মধ্যেই কিশোরদের বের করে আনতে হবে। তবে বর্তমানে যে অবস্থা বিরাজ করছে, তা কিশোরদের উদ্ধারের জন্য আদর্শ বলে জানিয়েছেন তিনি। নারোংসাক ওসাতানাকর্ন বলেন, ‘আমাদের প্রধান বাধা দুটি- পানি এবং সময়। সেই প্রথম দিন থেকেই আমরা এ দুটির বিরুদ্ধে যুদ্ধ করে যাচ্ছি। আমাদের সম্ভব সবকিছু করতে হবে। যদিও প্রকৃতির বিরুদ্ধে যুদ্ধ করাটা কঠিন। কিশোরদের নিরাপদে উদ্ধারের জন্য সঠিক সময়ের ও সুযোগের দরকার ছিল। আমরা সবাই এ সময়টার জন্যই অপেক্ষা করছিলাম।’

গুহার ভেতরে প্রবেশ করছে ডুবুরি দল

আটকে পড়া কিশোরদের ও তাদের পরিবারকে উদ্ধার অভিযানের পরিকল্পনা সম্পর্কে জানানো হয়েছে। সবকিছু ঠিক থাকলে আজ থাইল্যান্ড স্থানীয় সময় রাত ৯টা নাগাদ প্রথম কিশোরকে বের করে আনা হতে পারে। কতজনকে আজ বের করা হবে, সেটা জানা না গেলেও উদ্ধারকারীরা বলছেন, যারা ‘শতভাগ প্রস্তুত’ তাদেরকেই আজ বের করা হবে। সেক্ষেত্রে আজকে চারজনকে বের করা হতে পারে। ইতোমধ্যেই উদ্ধার অভিযানস্থল থেকে চিকিৎসক, উদ্ধারকারী  ও নিরাপত্তারক্ষাকারী সদস্য ছাড়া বাকি সবাইকে বের করে দেওয়া হয়েছে। চূড়ান্ত অভিযান ঘোষণা করার পর থাই নেভি সিলের ফেসবুক পেজে একটি ছবি পোস্ট করা হয়েছে, যেখানে দেখা যাচ্ছে উদ্ধারকারীরা একে অপরের হাত ধরে আছেন। গুহার প্রবেশমুখে নতুন একটি সাদা পতাকা ওড়ানো হয়েছে। ইতিবাচকতা প্রদর্শন করতে এটি একটি বৌদ্ধ চিহ্ন। পুরো থাইল্যান্ড ও বিশ্বব্যাপী অসংখ্য মানুষ এ উদ্ধার অভিযানের সফলতা কামনা করছেন।

১২:৫৮, জুলাই ০৮, ২০১৮

গুহার পানির উচ্চতা কি কিশোরদের হেঁটে আসার মতো?

উদ্ধারকর্মীরা গুহার ভেতর থেকে টানা পানি বের করে উচ্চতা কমানোর চেষ্টা করছেন। রবিবার বৃষ্টির পূর্বাভাস থাকায় সময়ের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে পানি সেচে চলেছেন তারা। উদ্ধার অভিযানের প্রধান গভর্নর নারোংসাক জানিয়েছে, গুহার ভেতরে পানির উচ্চতা কমেছে। এতে করে তারা পানির মধ্য দিয়ে হেঁটে বের হয়ে আসতে পারবে।

বৃষ্টির আশঙ্কায় সময়ের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে চলছে অভিযান

গভর্নর জানান, প্রধান তিনটি চেম্বারের পানি কমেছে উল্লেখযোগ্য মাত্রায়। কিছু অংশে পানির উচ্চতা এখন ১১ দশমিক ৮ ইঞ্চি। গত দশদিনের এটাই সর্বনিম্ন উচ্চতা।

অভিযানে সংশ্লিষ্ট থাই নৌবাহিনীর এক কর্মকর্তা সিএনএনকে জানান, পরিকল্পনা অনুসারে ডুবুরিরা প্রত্যেকে একজন একজন করে কিশোরদের পথ দেখিয়ে নিয়ে আসার চেষ্টা করবেন। যখন তারা কমান্ড সেন্টারে পৌঁছাবে তখন তাদের পৃথক বিশেষজ্ঞা উদ্ধারকর্মীদের হাতে তুলে দেওয়া হবে। তিনি তাদের এক ও দুই নম্বর চেম্বার দিয়ে বের হয়ে আসতে সহযোগিতা করবেন।

১২:৪১, জুলাই ০৮, ২০১৮

সোমবার ঘটনাস্থলে যাবেন থাই প্রধানমন্ত্রী

 

গত মাসে অস্থায়ী রান্নাঘরে হাজির হয়েছিলেন থাই প্রধানমন্ত্রী

থাই সরকারের মুখপাত্র লেফটেন্যান্ট জেনারেল সানসার্ন মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনএনকে জানিয়েছেন, দেশটির প্রধানমন্ত্রী জেনারেল প্রাইয়ুথ চ্যান-ওচা উদ্ধার স্থলে যাবেন। সেখানে তিনি আটকে পড়া কিশোরদের পরিবারের সঙ্গে সাক্ষাৎ এবং উদ্ধার অভিযানে তদারকি করবেন।

৯ জুলাই, সোমবার তিনি সেখানে উপস্থিত হবেন বলে প্রত্যাশা করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন মুখপাত্র।

১২:৪০, জুলাই ০৮, ২০১৮

বের হয়ে আসতে প্রস্তুত গুহায় আটকে পড়া কিশোর ফুটবলাররা

বিদেশ ডেস্ক

থাইল্যান্ডের গুহায় আটকে পড়া কিশোর ফুটবলারদের উদ্ধারে চলছে অভিযান। দিনটিকে দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের ঐতিহাসিক ‘ডি-ডে’ আখ্যা দিয়েছেন থাইল্যান্ডের চিয়াং রাইয়ের গভর্নর নারোংসাক ওসাতানাকর্ন। এদিন হিটলারের নাৎসি বাহিনীকে রুখে ফ্রান্সকে মুক্ত করতে ফরাসি উপকূলে অবতরণ করেছিল ব্রিটিশ-আমেরিকান ও কানাডীয় দেড় লক্ষাধিক সৈন্য। গভর্নর জানিয়েছেন, উদ্ধারকারীদের সঙ্গে বের হয়ে আসার ব্যাপারে আত্মবিশ্বাসী আটকে পড়া কিশোররা।চিয়াং রাইয়ের গভর্নর নারোংসাক ওসাতানাকর্ন
২৩ জুন থাইল্যান্ডের স্থানীয় সময় বিকালে ১১ থেকে ১৬ বছর বয়সী ১২ ফুটবলার ও তাদের ২৫ বছর বয়সী কোচ থাইল্যান্ডের উত্তর অংশের প্রদেশ চিয়াং রাইয়ের ‘থাম লুয়াং নায় নন’ গুহায় প্রবেশ করেন। বৃষ্টির পানি জমে যাওয়ায় গুহাটিতে আটকে পড়ে তারা। নয়দিন পর তাদের সন্ধান পাওয়া গেলেও উদ্ধার নিয়ে নানা শঙ্কা দেখা দেয়। বৃষ্টির পানি জমে যাওয়ায় শনিবার এই উদ্ধার তৎপরতা স্থগিত করা হয়।


 

উদ্ধার অভিযান নিয়ে বাংলা ট্রিবিউনের লাইভ কাভারেজ পড়ুন: থাই গুহায় উদ্ধার অভিযান



রবিবার সকালে থাইল্যান্ডের ছিয়াং রাই প্রদেশর গভর্নর নারোংসাক ওসাতানাকর্ন গুহার সামনে সাংবাদিক সম্মেলনে বলেন, আজ আমাদের প্রস্তুতি সবচেয়ে বেশি। আজ অভিযানের দিন। সকাল দশটায় ১৩ বিদেশি ডুবুরি আটকে পড়াদের বের করে আনতে গুহায় প্রবেশ করেছে। তাদের সঙ্গে আছে থাই নেভি সিলের ৫ সদস্য।
উদ্ধারকারী দলের নেতৃত্ব দেওয়া এই গভর্নর বলেন, ‘আবহাওয়ার পূর্বাভাসে দেখেছি, একটা ঝড় বা মৌসুমি বৃষ্টিপাতের আশঙ্কা রয়েছে। সেক্ষেত্রে আমাদের শতভাগ প্রস্তুতি ক্ষুণ্ন হবে, আবার আমাদের গুহার পানি সেচ দেওয়া শুরু করতে হবে। আটকে পড়া ১৩ কিশোরকেই অভিযানের বিষয়ে জানানো হয়েছে। তারা বের হয়ে আসার ব্যাপারে দৃঢ় প্রত্যয়ী আর উচু মাত্রায় আত্মবিশ্বাসী। তারা আমাদের সঙ্গে বাইরে বের হয়ে আসতে স্থির প্রতিজ্ঞাবদ্ধ।’
নারোংসাক ওসাতানাকর্ন বলেন, ‘‌গত তিন চারদিন ধরে আমরা প্রস্তুতির মহড়া চালিয়ে আসছি। আমরা অন্য একজন কিশোরকে নিয়ে জিরো-টু ট্যাঙ্কের অবস্থানে মহড়া দিয়েছি। আমি আশ্বস্ত করে বলতে পারি এই অভিযানের জন্য আমরা যথার্থই প্রস্তুত। কিশোরদের পরিবারের সদস্যদেরও অভিযানের বিষয়ে জানানো হয়েছে আর তারা আমাদের সঙ্গে একমত হয়েছে। সবাইকে ধৈর্য্য ধরে খবর শোনার অপেক্ষা এবং আমাদের সমর্থন আর শুভকামনা জানানোর আহ্বান জানাচ্ছি।’
উল্লেখ্য, দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের কালে ফ্রান্স উপকূলবর্তী এলাকায় আধিপত্য বজায় রাখতে হিটলার তার সামরিক বাহিনীর সবথেকে চৌকস ফিল্ড মার্শাল এরউইন রমেলকে কমান্ডের দায়িত্ব দিয়েছিলেন। শেষ পর্যন্ত তাকে ব্রিটেন-আমেরিকা-কানাডার মিত্রপক্ষের যৌথ বাহিনির কাছে তার পরাজয় বরন করতে হয়েছিল। ১,৫৬,০০০ আমেরিকান ব্রিটিশ ও কানাডিয়ান যৌথবাহিনী ফ্রান্সের নরম্যান্ডি অঞ্চলের উপকূলে ৫০ মাইল দীর্ঘ একটি সৈকতের উপরে ৫ টি ভাগে ভাগ হয়ে অবতরন করে । দিনটি ডি-ডে হিসেবে পরিচিতি পায়। অগাস্ট ১৯৪৪ শেষ দিকে উত্তর ফ্রান্স মিত্র বাহিনীর দখলে আসে। জার্মানরা পরাজিত হতে শুরু করলে বসন্তের শেষ দিকে ফ্রান্স শত্রু মুক্ত হয়।

১২:৩৪, জুলাই ০৮, ২০১৮

বৃষ্টি আর কাদা

গুহায় উদ্ধার অভিযানের খবর সংগ্রহে জড়ো হয়েছেন বিশ্বের বিভিন্ন দেশের সাংবাদিকরা। অনেকেই গাছ ও ছাতার নিচে আশ্রয় নিয়ে আছেন। বিবিসির সাংবাদিক হেলিয়ার চিউং টুইটারে ছবিটি পোস্ট করছেন।

১২:১৯, জুলাই ০৮, ২০১৮

কিশোরদের জন্য বড়ধরনের ঝুঁকি

গুহা থেকে শিশুদের বের করে নিয়ে আসার ক্ষেত্রে হাইপোথারমিয়া বড় ধরনের ঝুঁকি বলে জানিয়েছে ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি। গুহার ভেতরে পানি খুব ঠান্ডা এবং কিশোরদের পানিতে নামতে হতে হবে, অন্তত পক্ষে শরীরের কিছুটা অংশ। পুরো গুহাপথ পাড়ি দিতে তাদের পানিতে থাকতে হবে কয়েক ঘণ্টা।

আরেকটি বড় ঝুঁকি হচ্ছে সংক্রমণ। গুহায় অনেক ধরনের রোগ রয়েছে। বাদর বা নোংরা পানি থেকে এসব রোগ তাদের শরীরে সংক্রমিত হতে পারে।

গুহার ভেতরে প্রবেশ করছে ডুবুরি দল

১২:১৫, জুলাই ০৮, ২০১৮

সহপাঠীদের জন্য প্রার্থনা

গুহায় আটকে পড়া ছয় কিশোর পড়েন স্থানীয় মায়ে সাই প্রাসিটসার্ট স্কুলে। উদ্ধার অভিযান শুরু হওয়ার পর সহপাঠীদের ফিরে আসার জন্য প্রার্থনা করেন স্কুলের শিক্ষার্থীরা।

সহপাঠীদের জন্য প্রার্থনা

১২:১৩, জুলাই ০৮, ২০১৮

উদ্ধার অভিযানে অংশ নেওয়া ডুবুরিদের এলন মাস্কের শুভকামনা

মার্কিন ধনকূবের এলন মাস্ক উদ্ধার অভিযানে অংশ নেওয়া ডুবুরিদের শুভকামনা জানিয়েছেন। এক টুইটে তিনি এই শুভকামনা জানান। এর আগে তিনি উদ্ধার অভিযানে সহযোগিতা ইচ্ছার কথা জানিয়েছিলেন।

১২:০২, জুলাই ০৮, ২০১৮

হেডক্যামে ধারণ করা উদ্ধার অভিযানের ফুটেজ

১০:১০, জুলাই ০৮, ২০১৮

গুহায় আটকে পড়া থাই কিশোর ফুটবলারদের উদ্ধারে অভিযান শুরু

বিদেশ ডেস্ক

থাইল্যান্ডের গুহায় আটকে পড়া ১২ কিশোর ফুটবলার ও তাদের কোচকে উদ্ধারে অভিযান শুরু হয়েছে। স্থানীয় সময় রবিবার সকাল দশটায় ডুবুরিরা গুহায় প্রবেশ করে। অভিযানের বিষয়ে জানানো হয়েছে তাদের পরিবারের সদস্যদের। উদ্ধারকারী দলের প্রধান নারোংসাক ওসাতানাকর্ন গুহার পাশে সমবেত সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, ধারণা করা হচ্ছে প্রথম দলটিকে বের করে আনতে প্রায় ১১ ঘণ্টা সময় লাগবে। স্থানীয় সময় রাত নয়টার দিকে তাদের প্রথম দলটিকে বের করে আনা সম্ভব হবে বলে আশা করা হচ্ছে।আটকে পড়া কিশোর ফুটবলারদের উদ্ধারে চূড়ান্ত অভিযান শুরু হয়েছে
২৩ জুন থাইল্যান্ডের স্থানীয় সময় বিকালে ১১ থেকে ১৬ বছর বয়সী ১২ ফুটবলার ও তাদের ২৫ বছর বয়সী কোচ থাইল্যান্ডের উত্তর অংশের প্রদেশ চিয়াং রাইয়ের ‘থাম লুয়াং নায় নন’ গুহায় প্রবেশ করেন। গুহাটি বিখ্যাত পাতায়া সৈকতের কাছে। বৃষ্টির পানি জমে যাওয়ায় সেখানে আটকে পড়ে তারা। নয়দিন পর তাদের সন্ধান পাওয়া গেলেও উদ্ধার নিয়ে নানা শঙ্কা দেখা দেয়। বৃষ্টির পানি জমে যাওয়ায় শনিবার এই উদ্ধার তৎপরতা স্থগিত করা হয়।


 উদ্ধার অভিযান নিয়ে বাংলা ট্রিবিউনের লাইভ কাভারেজ পড়ুন: থাই গুহায় উদ্ধার অভিযান


 

দীর্ঘদিন অন্ধকারে আর খাবার না খেয়ে থাকায় দলের সদস্যরা দুর্বল হয়ে পড়ে। সন্ধান পাওয়ার পর তাদের খাবার সরবরাহ করা হয়। গুহা থেকে বের করে নিয়ে আসতে অনেকটা পথ পানিতে ডুবে থাকায় তা সাঁতরে পাড়ি দিয়ে আসার দরকার পড়বে। তবে কিশোররা সাঁতার না জানায় তা নিয়ে শঙ্কা দেখা দেয়।  

রবিবার সকালে উদ্ধারকারী দলের প্রধান নারোংসাক ওসাতানাকর্ন সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, ছেলেরা যেকোনও চ্যালেঞ্জ মোকাবিলার জন্য প্রস্তুত রয়েছে। উদ্ধার অভিযান শুরুর আগে ডুবুরিদের দল ৩-৪ তিন অনুশীলন করে। রবিবার ভোর থেকেই ডুবুরিরা অভিযানের যাওয়ার জন্য চূড়ান্ত প্রস্তুতি নিয়ে অপেক্ষায় ছিলেন। গুহায় প্রবেশের আগে সেখানে জড়ো মানুষদের সরিয়ে দেওয়া হয়।

নারোংসাক জানান, অভিযানে ১৩ জন বিদেশি ডুবুরি, থাইল্যান্ডের ৫ জন ডুবুরি ও ৫জন নেভি সিল সদস্য অংশ নিচ্ছেন। থাইল্যান্ডের ছিয়াং রিয়া প্রদেশের গভর্নর নারোংসাক ওসাতানাকর্ন জানিয়েছেন,পরিস্থিতির উন্নতি হওয়ায় গত সপ্তাহে শুরু হওয়া উদ্ধার প্রস্তুতিতে গত রাত থেকে তৎপরতা বাড়ানো হয়। তিনি বলেন, প্রস্তুতির চূড়ান্ত পর্যায়ে পৌঁছানোয় গত রাত নয়টা থেকে আমরা অনেক কিছু পরিস্কার করা শুরু করেছি।

এর আগে অভিযান শুরুর আগে উদ্ধার সংশ্লিষ্ট নন এমন মানুষদের গুহা এলাকা থেকে সরে যাওয়ার পরামর্শ দেন মায়ে সাই এলাকার পুলিশ কমান্ডার কোমসান সা-আর্দলুয়ান। লাউড-স্পীকারে তিনি বলেন, পরিস্থিতি পর্যালোচনা করে দেখা গেছে, উদ্ধার অভিযানের জন্য এলাকা খালি করে ফেলা দরকার। আটকে পড়াদের সহায়তা করতে এই এলাকা ব্যবহার করা প্রয়োজন।

গুহা এলাকায় জড়ো হয়েছেন বিপুল সংখ্যক সংবাদকর্মী। গুহার প্রবেশ মুখে প্রস্তুত রাখা হয়েছে অ্যাম্বুলেন্স।

থাইল্যান্ডের সেনাবাহিনীর এক মুখপাত্র জানিয়েছেন উদ্ধার অভিযান শেষ হতে তিন থেকে চারদিন সময় লাগতে পারে। এই অভিযান আবহাওয়ার উপরে নির্ভর করবে বলেও জানান তিনি। তবে গভর্নর নারোংসাক বলেছেন, আমরা যত দ্রুত সম্ভব উদ্ধার অভিযান শেষ করতে চাই। তবে তা নির্ভর করবে আবহাওয়ার ওপর। 

১১:৩৪, জুলাই ০৭, ২০১৮

থাই গুহার ২ মাইল ভেতরে থাকা শিশুদের উদ্ধারে চলা তৎপরতা স্থগিত (ভিডিও)

বিদেশ ডেস্ক

থাইল্যান্ডের গুহায় আটকে পড়া ১২ ফুটবল খেলোয়াড় শিশুকে উদ্ধার করতে চলা তৎপরতা স্থগিত ঘোষণা করা হয়েছে। বৃষ্টির পানিতে ভেসে যাওয়া কর্দমাক্ত গুহাটিতে উদ্ধার তৎপরতা চালানো থাই ডুবুরিদের দেওয়া সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী নেওয়া হয়েছে এ সিদ্ধান্ত। থাইল্যান্ডের ছিয়াং রিয়া প্রদেশর গভর্নর নারোংসাক ওসাতানাকর্ন শুক্রবার মধ্যরাতে এক সংবাদ সম্মেলনে বলেছেন, ‘যদি দেখি প্রবল বৃষ্টিপাত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে, তাহলে তাদেরকে যেভাবেই হোক বের করে আনার চেষ্টা করা হবে। আর যদি দেখা যায় গুহার যেখানে তারা আটকে আছে সেখানকার অবস্থা স্থিতিশীল তাহলে নিরাপদে উদ্ধারের জন্য তাদের আরও কিছুদিন সেখানে থাকতে দেওয়া যেতে পারে।’ যুক্তরাজ্যভিত্তিক সংবাদমাধ্যম গার্ডিয়ান জানিয়েছে, গুহার প্রায় ৩.৫ কিলোমিটার (২ মাইল) ভেতরে থাকা শিশুগুলোর কাছে তাদের বাবা–মায়ের লেখা চিঠি পৌঁছে দেওয়া হয়েছে।

২৩ জুন থাইল্যান্ডের স্থানীয় সময় বিকালে ১১ থেকে ১৬ বছর বয়সী ১২ ফুটবলার ও তাদের ২৫ বছর বয়সী কোচ থাইল্যান্ডের উত্তর অংশের প্রদেশ চিয়াং রাইয়ের ‘থাম লুয়াং নায় নন’ গুহায় প্রবেশ করেন। বৃষ্টির পানি জমে যাওয়ায় সেখানে আটকে পড়ে তারা। তাদের উদ্ধারে গিয়ে মৃত্যুবরণ করেছেন থাই নৌবাহিনীর একজন ডাইভার। কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, শিশুদের জন্য বায়ু সরবরাহের ট্যাংক স্থাপন করতে গিয়ে তিনি নিজেই অক্সিজেনের অভাবে অচেতন হয়ে পড়েছিলেন। পরে মৃত্যুবরণ করেন। শুক্রবার রাজকীয় কায়দায় শেষকৃত্য অনুষ্ঠিত হয়েছে।

শিশুদের উদ্ধার করা জন্য গুহা থেকে প্রচুর পরিমাণ পানি সরিয়ে ফেলা হয়েছে। সর্বশেষ তথ্য মতে, গুহাটি থেকে ১৩ কোটি লিটার পানি অপসারণ করা হয়েছে। তারপরও তাদের বের করে আনার অনুকূল পরিস্থিতি তৈরি করা যায়নি। ওই শিশুদের গুহার ভেতরেই স্কুবা ডাইভিং সেখানোর চেষ্টা করা হয়েছে। পানির মধ্যে হাঁটতে পারলেও ডাইভিং মাস্ক পরে পানির নিচে থেকে নিঃশ্বাস নেওয়াটা এখনও শিখতে পারেনি তারা । সেটি জরুরি, কারণ গুহার ভেতরে কিছু স্থান এতটাই অপ্রশস্ত যে এক সঙ্গে একাধিক মানুষ ওইসব স্থান পার হতে পারে না। পানিপূর্ণ ওই স্থানগুলো একা একা পার হতে তাদের সাঁতার শিখতে হবে।

১১ থেকে ১৬ বছর বয়সী ওই শিশুদের সঙ্গে তাদের ২৫ বছর বয়সী ফুটবল কোচও ওই গুহায় গত দুই সপ্তাহ ধরে আটকে রয়েছেন। গুহার ভেতরে অক্সিজেন স্বল্পতা দেখা দিয়েছে। যেখানে স্বাভাবিক সময়ে সেখানকার বাতাসে ২১ শতাংশ অক্সিজেন থাকার কথা সেখানে এখন গুহাটিতে অক্সিজেনের মাত্রা ১৫ শতাংশ।

শুক্রবার উদ্ধার তৎপরতা স্থগিতের তথ্য সন্নিবেশিত প্রতিবেদনে গার্ডিয়ান লিখেছে, শনিবার থেকে এলাকাটিতে প্রবল বৃষ্টিপাত শুরু হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। এ কয়দিনে যে পরিমাণ পানি গুহা থেকে অপসারণ করা হয়েছে তা কার্যত পণ্ডশ্রম হয়ে যাবে নতুন করে বৃষ্টির পানি গুহায় ঢুকলে।

ওই শিশুদের উদ্ধারে সহায়তার হাত বাড়িয়ে দিতে চেয়েছেন প্রখ্যাত উদ্যোক্তা ইলন মাস্ক। তিনি তার খনন প্রতিষ্ঠানের কর্মীদের থাইল্যান্ডে পাঠানোর প্রস্তাব দিয়েছেন শিশুদের উদ্ধারে।

পাহাড়ের নিচে গুহার ২ মাইল অভ্যন্তরে আটকে পড়া শিশুদের উদ্ধারের দিকে দৃষ্টি নিবদ্ধ রয়েছে বিশ্ববাসীর। ফিফার পক্ষ থেকেও তাদের প্রতি সহানুভূতি জানানো হয়েছে। ফিফা ওই ফুটবল খেলোয়াড় শিশুদের বিশ্বকাপ ফাইনাল দেখার আমন্ত্রণ জানিয়েছে। যদি তারা ততদিনে গুহা থেকে মুক্ত হতে পারে তাহলে ফুটবল বিশ্বকাপের ফাইনাল ম্যাচ দেখতে রাশিয়া যাবে তারা।

থ্যাইল্যান্ডের থাম লুয়াং নায় নন গুহার মানচিত্র

সম্পর্কিত

 
 
 
 
টপ