X
সোমবার, ০৫ ডিসেম্বর ২০২২
২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৯

‘শুধু সেতু নয়, এটি সুপার স্ট্রাকচার’

ঢাবি প্রতিনিধি
২০ আগস্ট ২০২২, ২০:০৬আপডেট : ২০ আগস্ট ২০২২, ২০:০৬

পদ্মা সেতুকে শুধু ব্রিজ বললে ভুল হবে, এটি সুপার স্ট্রাকচার— বলেছেন বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় (বুয়েট) উপাচার্য ও বুয়েট অ্যালামনাইয়ের পৃষ্ঠপোষক অধ্যাপক ড. সত্য প্রসাদ মজুমদার।

শনিবার (২০ আগস্ট) বিকালে বুয়েটের পুরকৌশল সেমিনার হলে বুয়েট অ্যালামনাইয়ের উদ্যোগে পদ্মা সেতুর সাথে সংশ্লিষ্ট প্রকৌশলীদের সংবর্ধনা ও “পদ্মা সেতু: আমাদের স্বপ্ন, সংকল্প ও অর্জন” শীর্ষক আয়োজিত সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন।

অধ্যাপক ড. সত্য প্রসাদ মজুমদার বলেন, পদ্মার আগে প্রমত্তা যোগ করা হয়। শুধু পদ্মা বললে একে অপমান করা হয়। এই খরস্রোতা পদ্মাকে শাসন করা চাট্টিখানি কথা নয়। পদ্মাকে শুধু ব্রিজ বললে ভুল হবে, এটি একটি সুপার স্ট্রাকচার। শুধু ব্রিজ করলে হয় না, সুপার স্ট্রাকচারের কারণে পদ্মা আমাদের কাছে পরাস্ত হয়েছে। পদ্মা সেতুর কল্যাণে এর দুই প্রান্তের মানুষের কষ্ট দূর হবে। অনেকের স্বপ্ন ছিল বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় (বুয়েট) হবে একটি স্বতন্ত্র বিশ্ববিদ্যালয়। বলা হবে 'বুয়েট ইজ বুয়েট', এটি হবে অনন্য। পদ্মাকে শাসন করে বুয়েট যে বুয়েট এটি প্রমাণিত হলো। দেশের উন্নয়নে বড় অবদান রেখেছে বুয়েট।

তিনি আরও বলেন, শিক্ষার্থীরা পড়াশোনা শেষ করে চাকরি না পেয়ে রাস্তায় রাস্তায় ঘুরে। কোনও গাইডেন্স নাই, আমাদের ক্যারিয়ার ডেভেলপমেন্টের কোনও ব্যবস্থা নাই। সেজন্য আমরা চতুর্থ বর্ষে উঠলে শিক্ষার্থীদের ১ বছর থেকে ৬ মাসের ইন্ডাস্ট্রিয়াল ট্রেইনিংয়ের জন্য অ্যালামনাইদের হাতে তুলে দিতে চাই। তাহলে তারা (অ্যালামনাই) তাদের ক্যারিয়ার ডেভেলপ করে দিবে। স্ট্রাকচারাল ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে যে সর্বোচ্চ নম্বর পাবে তাকে আমরা জেয়াসিপ ফেলোশিপ দিতে চাই, বছরে একবার হোক। যদি এটা অ্যালামানাই থেকে প্রস্তাব না করা হয় আমরা বুয়েট থেকে করব।

বুয়েটের কীর্তিমান শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের স্মরণে 'হল অফ ফেইম' নির্মাণের জন্য কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, হল অফ ফেইম ভার্চুয়াল হোক। এখানে তাদের নাম পরিচয় থাকবে, তার কৃতিত্বের কথা লেখা থাকবে, তার একটি প্রবন্ধ থাকবে। এভাবে একটির পর একটি আসতে থাকবে। এটি না হলে গুণীদের অবদান সবাই ভুলে যাবে।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে উপ-উপাচার্য প্রফেসর ড. আব্দুল জব্বার খান বলেন, পদ্মা সেতুর ব্যয় নিয়ে বলা হচ্ছে, এত টাকা কীভাবে উঠবে। খুব মোটা দাগে হিসাব করে বলা হচ্ছে, ৩৬ বছরে টোল থেকে এই টাকা উঠে আসবে। আমরা কিন্তু একটা কথা ভুলে যাচ্ছি, সমীক্ষাতেই বলা ছিল পদ্মা সেতু হলে আমাদের জিডিপিতে ১.২ পার্সেন্ট যোগ হবে। আমাদের বর্তমান জিডিপি বিলিয়নে আছে, আশা করছি এই নেতৃত্ব আগামী দশ বছর অব্যাহত থাকলে আমরা হয়তো ট্রিলিয়ন ডলার জিডিপিতে উন্নীত হবো। ৩৬ বছরে এই ব্যয় উঠে আসবে সে বিষয়ে খুব বেশি কনজারভেটিভ হিসেব করার প্রয়োজন নেই।

দক্ষিণ বঙ্গের মাস্টারপ্ল্যান নিয়ে এখনই ভাবা উচিত উল্লেখ করে তিনি আরও বলেন, দক্ষিণ বঙ্গের ২১টি জেলা আছে। এগুলো মূলত কৃষিভিত্তিক। এগুলো নিয়ে মাস্টারপ্ল্যান করার কথা রয়েছে। এগুলো নিয়ে আমাদের অবশ্যই ভাবতে হবে। কিছু কিছু বিচ্ছিন্ন প্ল্যানিং হচ্ছে। আমাদের জিডিপিতে কৃষি খাত থেকে আসে ৩০ শতাংশ, ইন্ডাস্ট্রি থেকে আসে ৩০ শতাংশ আর সেবা খাত থেকে বেশির ভাগ আসে। দক্ষিণ বঙ্গের জীবন প্রণালী মিলিয়ে আমাদের এখন থেকেই ভাবতে হবে আমরা কী কৃষিতে জোর দিবো নাকি সার্ভিস ইন্ডাস্ট্রিতে জোর দিবো? নাকি মিডিয়াম লাইট ইন্ডাস্ট্রিকে বেইজ করে আমরা মাস্টারপ্ল্যান করবো? সে বিষয়গুলো নিয়ে আমাদের ভাবতে হবে। শুধু পদ্মা সেতু পার হয়ে ওপারে গিয়ে উন্নত মানের মিষ্টি খেলাম এগুলো নিয়ে থাকলে চলবে না।

প্রকৌশলী ইমু রিয়াজুল হাসানের সঞ্চালনায় ও বুয়েট অ্যালামনাইয়ের  সভাপতি প্রফেসর ড. আইনুন নিশাতের সভাপতিত্বে আরও বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য প্রফেসর ড. আব্দুল জব্বার খান, বুয়েট অ্যালামনাই-এর মহাসচিব প্রকৌশলী মাহতাব উদ্দিন ও সমন্বয়ক বুয়েট অ্যালামনাই ও ছাত্রকল্যাণ পরিচালক অধ্যাপক ড. মো. মিজানুর রহমান। ‘শুধু সেতু নয়, এটি সুপার স্ট্রাকচার’

সভায় পদ্মা সেতু নির্মাণে অবদানের জন্য স্বীকৃতি স্বরূপ পদ্মা সেতু বিশেষজ্ঞ প্যানেলের সাবেক চেয়ারম্যান জাতীয় অধ্যাপক ড. জামিলুর রেজা চৌধুরী (মরণোত্তর), পদ্মা সেতুর বিশেষজ্ঞ প্যানেলের সাবেক সদস্য প্রফেসর ড. আলমগীর মজিবুল হক (মরণোত্তর), প্রফেসর ড. এ এম এম সফিউল্লাহ (মরণোত্তর) ও পদ্মা সেতু বিশেষজ্ঞ দলের চেয়ারম্যান প্রফেসর ড. এম. শামীম জেড বসুনিয়া ও চার সদস্য প্রফেসর ড. আইনুন নিশাত, প্রফেসর ড. এম. ফিরোজ আহমেদ, প্রফেসর ড. হোসাইন মো. শাহীন, প্রফেসর ড. খান মাহমুদ আমানত এবং পদ্মা বহুমুখী সেতু প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক প্রকৌশলী মো. শফিকুল ইসলামকে সম্মাননা ক্রেস্ট প্রদান করা হয়।

/এমএস/
কানাডায় যাচ্ছেন মুহিবুল্লাহর পরিবারের আরও ১০ সদস্য
কানাডায় যাচ্ছেন মুহিবুল্লাহর পরিবারের আরও ১০ সদস্য
নতুন উদ্যোক্তাদের জন্য বৈশ্বিক প্রতিযোগিতার আয়োজন ইও বাংলাদেশের
নতুন উদ্যোক্তাদের জন্য বৈশ্বিক প্রতিযোগিতার আয়োজন ইও বাংলাদেশের
দুই স্বাস্থ্য কর্মকর্তার বিরুদ্ধে দুদকের মামলা
দুই স্বাস্থ্য কর্মকর্তার বিরুদ্ধে দুদকের মামলা
অনুমতি নেই এমন জায়গায় বিএনপিকর্মীদের জড়ো হতে দেবে না ডিএমপি
অনুমতি নেই এমন জায়গায় বিএনপিকর্মীদের জড়ো হতে দেবে না ডিএমপি
সর্বাধিক পঠিত
ছাত্রলীগের সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক পদে আলোচনায় যারা
ছাত্রলীগের সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক পদে আলোচনায় যারা
সিঁড়ি থেকে পড়ে গেছেন পুতিন, অসুস্থতা নিয়ে বাড়ছে জল্পনা
সিঁড়ি থেকে পড়ে গেছেন পুতিন, অসুস্থতা নিয়ে বাড়ছে জল্পনা
নেতানিয়াহুকে সতর্ক করলেন মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী
নেতানিয়াহুকে সতর্ক করলেন মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী
বাতিল হচ্ছে বিমানবন্দরের পুরনো সব প্রটোকল পাস, চাইলেই মিলবে না আর
বাতিল হচ্ছে বিমানবন্দরের পুরনো সব প্রটোকল পাস, চাইলেই মিলবে না আর
রিজভীর বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা
ময়লার গাড়ি ভাঙচুর মামলারিজভীর বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা