X
বৃহস্পতিবার, ২০ জুন ২০২৪
৬ আষাঢ় ১৪৩১

‘সর্বজনীন পেনশনের নামে জনগণের কাছ থেকে টাকা তুলে লুটপাট করছে সরকার’

জাবি প্রতিনিধি
১৪ মে ২০২৪, ১৯:০৮আপডেট : ১৪ মে ২০২৪, ১৯:০৮

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ফার্মেসি বিভাগের অধ্যাপক মোহাম্মদ মাফরুহী সাত্তার বলেছেন, ‘সর্বজনীন পেনশনের নামে জনগণের কাছ থেকে টাকা তুলে লুটপাট করছে সরকার। ভোটারবিহীন নির্বাচনে নির্বাচিত সরকার এই দেশটাকে কোথায় নিয়ে গেছে তা দেশের অর্থনীতির দিকে তাকালেই বোঝা যায়। দেশে আজ অর্থনৈতিক দিক থেকে দেউলিয়া হয়ে গেছে। এই সর্বজনীন পেনশন এই সরকারের শোষণের নতুন হাতিয়ার।’

মঙ্গলবার (১৪ মে) বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ মিনার সংলগ্ন সড়কে সর্বজনীন পেনশন স্কিমে বিশ্ববিদ্যালয়গুলোকে অন্তর্ভুক্ত করার প্রতিবাদে ও স্বতন্ত্র বেতন কাঠামো প্রণয়নের দাবিতে জাতীয়তাবাদী শিক্ষক ফোরাম আয়োজিত মানববন্ধনে তিনি এ কথা বলেন।

মানববন্ধনে জাতীয়তাবাদী শিক্ষক ফোরামের সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক নূরুল ইসলামের সঞ্চালনায় বক্তারা বক্তব্য রাখেন। মানববন্ধনে বক্তারা বিশ্ববিদ্যালয়কে সর্বজনীন পেনশন স্কিমের আওতায় নেওয়ায় সরকারের সমালোচনা করেন ও দলমত নির্বিশেষে বিশ্ববিদ্যালয়ের সব শিক্ষককে এই বৈষম্যমূলক সিদ্ধান্তের প্রতিবাদ করার আহ্বান জানান।

এ সময় পরিবেশবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক জামাল উদ্দিন রুনু বলেন, ‘যুক্তরাষ্ট্রে শিক্ষকদের ভিআইপি সুবিধা দেওয়া হয়। উন্নত দেশগুলোতে জাতি গঠনে এখনও শিক্ষকদের সর্বোচ্চ গুরুত্ব দেওয়া হয়। আমাদের  এতটাই  উন্নয়ন হয়ে গেছে  মনে হয় আমাদের শিক্ষকদের আর দরকার নাই। দেশের ব্যাংকগুলো লুটপাট করার জন্য এই ফান্ড কালেক্ট করছে সরকার। জাতি গঠনে যাদের ভূমিকা তাদের স্বার্থে কুঠারাঘাত করছে। আমরা অবিলম্বে এই বৈষম্যমূলক নীতির বাতিল চাই।’

এ সময় জাতীয়তাবাদী শিক্ষক ফোরামের সভাপতি দর্শন বিভাগের অধ্যাপক কামরুল আহসান বলেন, ‘বর্তমানের এই সর্বজনীন স্কিমের আওতায় শিক্ষকরা অবসরের পর মাসিক ভাতা পাবে কিন্তু এককালীন যে টাকা পেত সেটা আর পাবে না। এখানে সমস্যা হচ্ছে যে আমি অবসরের পরে পাঁচ বছর বাঁচলে পাঁচ বছর টাকা পাবো কিন্তু আমার বাকি টাকা কোথায় যাবে? এই টাকাগুলো মূলত এই সরকার ব্যাংক লুটপাট, মেগা প্রজেক্টের নামে লুটপাট করে যে টাকা ঋণ করেছে সেই ঋণ পরিশোধের জন্য ব্যবহার করবে। একটি মানুষ একটি পেশায় আসার সময় অবসরোত্তর আর্থিক নিরাপত্তার কথা বিবেচনা করে। কিন্তু এই সর্বজনীন পেনশন স্কিম চালু করা হলে মেধাবীরা শিক্ষকতা পেশায় আর আসতে চাইবে না। এর ফলে ভবিষ্যৎ প্রজন্ম একটা বড় ক্ষতির সম্মুখীন হবে। তারা গুণগত শিক্ষা আর পাবে না।’ 

সেখানে আরও উপস্থিত  ছিলেন- অধ্যাপক মাহবুব কবির, অধ্যাপক আবদুর রব, অধ্যাপক ছালেহ আহমেদ খান, অধ্যাপক মাসুম শাহরিয়ার, অধ্যাপক মোহাম্মদ আমির হোসেন ভূঁইয়া, অধ্যাপক কামরুজ্জামান, অধ্যাপক শামছুন নাহার, অধ্যাপক আবদুর রাশিদ, অধ্যাপক মোহাম্মদ রেজাউল রকিব।

/এফআর/
সম্পর্কিত
জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে দিনদুপুরে ছিনতাই
সর্বজনীন পেনশন স্কিমে ৩ লাখের বেশি নিবন্ধন
জাবিতে নির্মাণকাজ বন্ধ করে চাঁদা দাবির অভিযোগ
সর্বশেষ খবর
তিস্তায় নৌকাডুবি: একই পরিবারের তিন সদস্যসহ এখনও নিখোঁজ ৬
তিস্তায় নৌকাডুবি: একই পরিবারের তিন সদস্যসহ এখনও নিখোঁজ ৬
মদ্য পানে গৃহবধূর মৃত্যুর অভিযোগ
মদ্য পানে গৃহবধূর মৃত্যুর অভিযোগ
ইতালিতে পুরস্কৃত বাংলাদেশের ‘ময়না’
ইতালিতে পুরস্কৃত বাংলাদেশের ‘ময়না’
রাশিয়ার বিরুদ্ধে নতুন নিষেধাজ্ঞা জারিতে সম্মত ইইউ
রাশিয়ার বিরুদ্ধে নতুন নিষেধাজ্ঞা জারিতে সম্মত ইইউ
সর্বাধিক পঠিত
‘লেবানন আক্রমণের পরিকল্পনা’য় অনুমোদন ইসরায়েলি সেনাবাহিনীর
‘লেবানন আক্রমণের পরিকল্পনা’য় অনুমোদন ইসরায়েলি সেনাবাহিনীর
শেখ হাসিনার ‘নজিরবিহীন’ ভারত সফরে সঙ্গী হচ্ছেন যারা
শেখ হাসিনার ‘নজিরবিহীন’ ভারত সফরে সঙ্গী হচ্ছেন যারা
‘রাজস্ব কর্মকর্তা মতিউরই ছাগলকাণ্ডে আলোচিত সেই ইফাতের বাবা’
‘রাজস্ব কর্মকর্তা মতিউরই ছাগলকাণ্ডে আলোচিত সেই ইফাতের বাবা’
‘মোংলা কমিউটার’ ট্রেন নিয়ে যাত্রীদের যত আপত্তি
‘মোংলা কমিউটার’ ট্রেন নিয়ে যাত্রীদের যত আপত্তি
নরেন্দ্র মোদির আমন্ত্রণে ভারত সফরে যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী
নরেন্দ্র মোদির আমন্ত্রণে ভারত সফরে যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী