বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে শহীদ দিবস পালনে অব্যবস্থাপনার অভিযোগ

Send
বাকৃবি প্রতিনিধি
প্রকাশিত : ১৭:৪৮, ফেব্রুয়ারি ২১, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ১৭:৫৫, ফেব্রুয়ারি ২১, ২০২০

মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের প্রথম প্রহরে বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বাকৃবি) লালন চত্বরে অবস্থিত বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রথম শহীদ মিনারে ও সকালে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে ফুল দিয়ে শহীদদের প্রতি  শ্রদ্ধা নিবেদন করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য, জাতীয় দিবস উদযাপন কমিটি, শিক্ষক সমিতি ও শাখা ছাত্রলীগসহ বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন সংগঠন। প্রথম প্রহরে শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণের কিছুক্ষণ পরই বেদি থেকে পুষ্পস্তবক উধাও হওয়া ও সকালে প্রভাতফেরী শেষে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে শ্রদ্ধা নিবেদনের সময় বিশৃঙ্খলা ও বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের অব্যবস্থাপনার ঘটনা ঘটেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। তবে কোনও অনিয়ম ও অব্যবস্থাপনা লক্ষ্য করা যায়নি বলে অভিযোগ অস্বীকার করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের জাতীয় দিবস উদযাপন কমিটি।


জানা যায়, ২১ ফেব্রুয়ারি প্রথম প্রহরে বিশ্ববিদ্যালয়ের লালন চত্বরে অর্পিত পুষ্পস্তবকগুলো কে বা কারা সরিয়ে নিয়েছে তা জানা যায়নি। বিষয়টি নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও বিরূপ প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা। সকালে বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে একই ফুল দিয়ে আবারও শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়েছে কিনা এ বিষয়েও প্রশ্ন তোলেন তারা।
এদিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে সকালে শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদনের জন্য বিশ্ববিদ্যালয় বিভিন্ন সংগঠনের তালিকা অনুযায়ী পুষ্পস্তবক অর্পণের সুযোগ দেওয়ার কথা থাকলেও নিয়ম এবং ক্রমের তোয়াক্কা না করায় বিশৃঙ্খলা দেখা দেয়। এসময় বিভিন্ন সংগঠনের নেতৃবৃন্দ ক্ষোভ প্রকাশ করেন। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের অব্যবস্থাপনা ও ছাত্র সংগঠনগুলোকে হেয় করা হয়েছে বলে জানান তারা। পরে সকাল সাড়ে ৯টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসি কনফারেন্স হলে ‘ভাষা আন্দোলন ও বঙ্গবন্ধু’ শীর্ষক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।


এ বিষয়ে বাকৃবি সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্টের সভাপতি গৌতম কর বলেন, ‘মহান শহীদ দিবস যথাযথ মর্যাদা ও ভাবগাম্ভীর্যের মধ্য দিয়ে পালন করা উচিত। জাতীয় দিবসগুলোতে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের উদ্যোগের ঘাটতি থাকায় বরাবরই বিশৃঙ্খলা দেখা দিচ্ছে। এছাড়াও বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র সংগঠনগুলোকে গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে না যা গণতান্ত্রিক পরিবেশের পরিপন্থী।’
বিশ্ববিদ্যালয়ের জাতীয় দিবস উদযাপন কমিটির সভাপতি অধ্যাপক ড. ছোলায়মান আলী ফকির বলেন, ‘শহীদ মিনারে নিয়মতান্ত্রিকভাবে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়েছে। কোনও অনিয়ম ও বিশৃঙ্খলা দেখা যায়নি।’

/এনএ/

সম্পর্কিত

লাইভ

টপ