শেখ রাসেল ও সংসদে প্রশ্নোত্তর বিষয়ে দুটি বইয়ের মোড়ক উন্মোচন প্রধানমন্ত্রীর

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ১৯:৪৫, অক্টোবর ১৭, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ২০:১২, অক্টোবর ১৭, ২০১৯

‘হৃদয়মাঝে শেখ রাসেল’ স্মারকগ্রন্থের মোড়ক উন্মোচন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। (ছবি: ফোকাস বাংলা)

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ছোট ছেলে শেখ রাসেলের ৫৫তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে একটি স্মারকগ্রন্থের মোড়ক উন্মোচন করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বৃহস্পতিবার (১৭ অক্টোবর) দুপুরে নিজ কার্যালয়ে ‘হৃদয়মাঝে শেখ রাসেল’ নামে নিজের সর্বকনিষ্ঠ ভাইয়ের নামে করা স্মারকগ্রন্থের মোড়ক উন্মোচন করেন তিনি।

আগামীকাল ১৮ অক্টোবর শেখ রাসেলের জন্মদিন। ১৯৬৪ সালের এই দিনে বঙ্গবন্ধু ভবনে জন্ম নেন শেখ রাসেল।

স্মারকগ্রন্থ ‘হৃদয়মাঝে শেখ রাসেল’

'হৃদয়মাঝে শেখ রাসেল' সচিত্র গ্রন্থটি প্রকাশ করেছে জয়িতা প্রকাশনী। ৯২ পৃষ্ঠার বইটিতে স্থান পেয়েছে শ’খানেক আলোকচিত্র, যার মধ্যে বেশিরভাগই দুর্লভ।

বইটিতে বঙ্গবন্ধু-কন্যা শেখ হাসিনা ও শেখ রেহানার পাশাপাশি কথাশিল্পী রশিদ হায়দারের একটি লেখা রয়েছে।

নবম সংসদে প্রশ্নোত্তর বিষয়ে সংকলনগ্রন্থের মোড়ক উন্মোচন করেন প্রধানমন্ত্রী

প্রধানমন্ত্রীর প্রশ্নোত্তর বইয়ের মোড়ক উন্মোচন

শেখ রাসেল স্মারকগ্রন্থের পাশাপাশি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আজ দুপুরে তার কার্যালয়ে নবম জাতীয় সংসদে দেওয়া প্রধানমন্ত্রীর প্রশ্নোত্তর নিয়ে ১১ খণ্ডের সঙ্কলন ‘নবম জাতীয় সংসদ: প্রধানমন্ত্রীর প্রশ্নোত্তর’ বইয়ের মোড়ক উন্মোচন করেন।

২০০৯ সালের ৬ই জানুয়ারি দ্বিতীয়বারের মতো বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব গ্রহণ করেন শেখ হাসিনা। সংসদীয় গণতন্ত্রকে প্রাতিষ্ঠানিক রূপ দেওয়ার লক্ষ্যে শেখ হাসিনাই সর্বপ্রথম বাংলাদেশের সংসদে প্রধানমন্ত্রীর প্রশ্নোত্তর চালু করেন।

প্রধানমন্ত্রীর প্রেস উইং থেকে জানানো হয়, নিবিষ্ট পাঠক এই সংকলনগুলোতে প্রধানমন্ত্রী এবং সংসদ নেতা শেখ হাসিনার সংসদ কার্যক্রমে গভীর প্রজ্ঞা, দেশ গড়ার প্রত্যয় এবং ইচ্ছাশক্তির পরিচয় পাবেন; পাশাপাশি গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মন্ত্রণালয় ও বিভাগগুলোর আওতায় দেশের বিভিন্ন খাতে ব্যাপক উন্নয়ন কর্মকাজ সম্পর্কে সম্যক ধারণ লাভ করতে পারবেন।

সংকলনগুলোর প্রধান সম্পাদক প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম, গ্রন্থনা ও সম্পাদনা করেন প্রধানমন্ত্রীর স্পিচ রাইটার মো. নজরুল ইসলাম, সার্বিক ব্যবস্থাপনায় ছিলেন চলচ্চিত্র ও প্রকাশনা অধিদফতরের মহাপরিচালক মোহাম্মদ ইসতাক হোসেন এবং সহযোগিতায় ছিলেন প্রধানমন্ত্রীর সহকারী প্রেস সচিব এম. এম. ইমরুল কায়েস।

 

/এমএইচবি/টিএন/এমওএফ/

লাইভ

টপ