তূর্ণা-নিশীথার চালকসহ তিন জন বরখাস্ত

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ১৩:২৭, নভেম্বর ১২, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ১৫:০৭, নভেম্বর ১২, ২০১৯

কসবায় মুখোমুখি সংঘর্ষে দুমড়ে মুছড়ে যাওয়া দুটি ট্রেন

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবা উপজেলার মন্দবাগ রেলস্টেশনে তূর্ণা নিশীথা ও উদয়ন এক্সপ্রেস ট্রেনের মুখোমুখি সংঘর্ষের ঘটনায় তূর্ণা নিশীথা ট্রেনের চালক (লোকো মাস্টার), সহকারী চালক (সহকারী লোকো মাস্টার) ও একজন গার্ডসহ মোট তিন জনকে বরখাস্ত করা হয়েছে। রেল সচিব মোহাম্মদ মোফাজ্জল হোসেন বাংলা ট্রিবিউনকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। 

বরখাস্ত হওয়া ব্যক্তিরা হলেন—তূর্ণা নিশীথা ট্রেনের চালক (লোকো মাস্টার) তাছের উদ্দিন, সহকারী চালক (সহকারী লোকো মাস্টার) অপু দে ও গার্ড আব্দুর রহমান।

রেল সচিব বলেন, ‘তূর্ণা নিশীথা এক্সপ্রেসের লোকো মাস্টার, সহকারী লোকো মাস্টার ও একজন গার্ডকে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করা হয়েছে। ঘটনা তদন্তে যেসব কমিটি গঠন করা হয়েছে, আগামী দুই দিনের মধ্যে তাদের প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে। প্রতিবেদন পাওয়ার আগে কী কারণে ঘটনাটি ঘটেছে, সেটি বলা যাচ্ছে না।’

এর আগে সোমবার (১১ নভেম্বর) রাত তিনটার দিকে কসবা উপজেলার মন্দবাগে চট্টগ্রাম থেকে ঢাকাগামী তূর্ণা নিশীথা ও সিলেট থেকে চট্টগ্রামগামী উদয়ন এক্সপ্রেস ট্রেন দুটির মধ্যে সংঘর্ষের এ ঘটনা ঘটে। এতে উদয়ন ট্রেনের কয়েকটি বগি আরেকটি ট্রেনের ওপর উঠে যায়। স্টেশন সূত্রে জানা গেছে, তূর্ণা নিশীথা ট্রেনকে মন্দবাগ রেলস্টেশনে দাঁড়ানোর জন্য সিগন্যাল দেওয়া হয়। ওই সিগন্যালে সিলেট থেকে ছেড়ে আসা চট্টগ্রামগামী উদয়ন এক্সপ্রেস প্রধান লেন থেকে এক নম্বর লাইনে যেতে শুরু করে। ট্রেনটির ছয়টি বগি এক নম্বর লাইনে উঠতে পেরেছিল। অন্য বগিগুলো প্রধান লেনে থাকা অবস্থায় তূর্ণা নিশীথা সিগন্যাল অমান্য করে। এতেই দুর্ঘটনা ঘটে। উদয়নের তিনটি বগি দুমড়ে মুচড়ে গেছে। এ দুর্ঘটনায় এপর্যন্ত ১৬ জন নিহত ও অর্ধ শতাধিক মানুষ আহত হয়েছেন।

আরও পড়ুন:

সিগন্যাল মানেনি তূর্ণা

দুর্ঘটনাস্থলে রিলিফ ট্রেন, উদ্ধার কাজ চলছে

ট্রেন দুর্ঘটনা: ৩টি তদন্ত কমিটি গঠন

কসবায় দুই ট্রেনের মুখোমুখি সংঘর্ষে নিহত ১৫

/এসএস /এপিএইচ/এমএমজে/

লাইভ

টপ