যান চলাচলে শ্রমিকদের বাধা

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ১৪:৪০, নভেম্বর ২০, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ১৫:০৮, নভেম্বর ২০, ২০১৯

ট্রাক চলাচলে শ্রমিকদের বাধারাজধানী ও আশপাশের বিভিন্ন স্থানে ট্রাক শ্রমিকদের সব ধরনের যানবাহন চলাচলে বাধা দিতে দেখা গেছে। তবে মূলত দূরপাল্লার বাসসহ গণপরিবহন চলাচলে বাধা দেয় তারা। তেজগাঁওয়ে ট্রাকস্ট্যান্ড সংলগ্ন আনিসুল হক সড়ক, মহাখালী ট্রাক টার্মিনালের সামনে, টঙ্গীর আবদুল্লাহপুর, মোহাম্মদপুর বাসস্ট্যান্ড, যাত্রাবাড়ী ও শনির আখড়া এলাকায় এমন বাধা দেওয়ার খবর জানা গেছে।

বিষয়টি স্বীকার করেছেন বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন মালিক সমিতির মহাসচিব খন্দকার এনায়েত উল্যাহ। তিনি বলেন, ‘ট্রাক শ্রমিকরা ধর্মঘট ডেকেছে। এর সঙ্গে মালিকদের কোনও সম্পর্ক নেই। তবে দুই চারজন মালিকও এতে যুক্ত হয়েছেন। বুধবার সকাল থেকে শ্রমিকরা বিভিন্ন স্থানে বাসসহ অন্যান্য যানবাহন চলাচলে বাধা দিচ্ছে। গাড়িতে কালি মেখে দিয়েছে। এই অবস্থায় আমরা কীভাবে গাড়ি নামাই? এরপরও আমরা যাত্রীসেবায় নগরীতে এবং দূরপাল্লায় বাস ছাড়ার চেষ্টা করছি। কিছুদূর যাওয়ার পরেই শ্রমিকরা এসব যানবাহন চলাচলে বাধা দেয়। বাধ্য হয়েই গাড়ি থামিয়ে রাখতে হয়। ভয়েই অনেকে গাড়ি ছাড়ছেন না।’ট্রাক চলাচলে শ্রমিকদের বাধা

বাংলাদেশ ট্রাক-কাভার্ডভ্যান মালিক সমিতির সভাপতি মো. তোফাজ্জল হোসেন মজুমদার বলেন, ‘শ্রমিকরা তাদের স্বার্থে ধর্মঘট ডেকেছে। তারা যদি আমাদের ট্রাক নিয়ে রাস্তায় না নামে, আমরা কী করবো। সকাল থেকে তারা বিভিন্ন স্থানে আন্দোলন করছে।’

বাংলাদেশ ট্রাক-কাভার্ডভ্যান পণ্য পরিবহন মালিক-শ্রমিক ঐক্য পরিষদের আহ্বায়ক রুস্তম আলি খান বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘আমরা ৯ দফা দাবিতে আন্দোলন ডেকেছি। আমাদের আন্দোলন শান্তিপূর্ণভাবে হচ্ছে। আমরা মনে করি আমাদের দাবিগুলো যৌক্তিক। সরকার সেগুলো মেনে নেবে।’ট্রাক চলাচলে শ্রমিকদের বাধা

বুধবার সকালে তেজগাঁওয়ে ট্রাক টার্মিনালে গিয়ে দেখা গেছে, সেখান থেকে কোনও ট্রাক ছাড়তে দেওয়া হচ্ছে না। শ্রমিকরা রাস্তায় নেমে বিভিন্ন মালবাহী পরিবহনকে বাধা দিচ্ছে। এসময় আনোয়ার হোসেন নামে এক ট্রাকচালককে মারধর করতেও দেখা গেছে।

যাত্রাবাড়ী এলাকায় আওলাদ হোসেন নামে এক শ্রমিক জানান, বিভিন্ন মালবাহী ট্রাক চলাচলে বাধা দেওয়া হচ্ছে। দু’ চারটি বাস ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করছে।ট্রাকস্ট্যান্ডে আটকা সব ট্রাক

এদিকে ধানমন্ডি এলাকায় সকাল থেকে গণপরিবহনের সংখ্যা কিছুটা কম থাকলেও চলাচলে বাধার কোনও খবর পাওয়া যায়নি। বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে যানবাহনের চাপ বাড়ছে বলে জানান ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) দক্ষিণ ট্রাফিক বিভাগ ধানমন্ডি জোনের সহকারী কমিশনার আকরাম হাসান। তিনি বলেন, ‘আমার এলাকায় যান চলাচলে বাধার কোনও ঘটনা ঘটেনি। আমরা সজাগ অবস্থানে রয়েছি। গাড়ির চাপ এখন স্বাভাবিক রয়েছে।’

এদিকে প্রায় সাত ঘণ্টা অবরোধ করে রাখার পর যাত্রাবাড়ীর রাস্তা ছেড়ে দেন শ্রমিকরা। এর আগে সকাল থেকে যাত্রাবাড়ী, সাইনবোর্ড এলাকায় বিশেষ করে নারায়ণগঞ্জ অংশে বাস চলাচলে বাধা দিয়েছেন ট্রাক, কাভার্ডভ্যান চালক ও শ্রমিকরা। এছাড়া গাজীপুর ও ডেমরা এলাকাতেও বাধা দেওয়ার খবর পাওয়া গেছে। বিভিন্ন  জায়গায় এ ধরনের বাধার কারণে রাজধানীতে গণপরিবহনের সংখ্যা ছিল অনেক কম।রাজপথে গণপরিবহন কম দেখা গেছে

সকাল থেকে নারায়ণগঞ্জ অংশে শ্রমিকরা রাজধানীতে বাস প্রবেশে বাধা দিলেও দুপুর দেড়টার পর থেকে আবারও যান চলাচল বেড়েছে বলে জানান ডিএমপি ট্রাফিক ডেমরা বিভাগের সহকারী কমিশনার রবিউল ইসলাম। তিনি বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘বাস চলাচলে বাধা দেওয়ার কারণে সাধারণ জনগণের দুর্ভোগ হয়েছে। তাদের কথা ভেবে আমরা মহাসড়কে রিকশা ভ্যান অ্যালাউ করেছি। এখন কিছুটা স্বাভাবিক হয়েছে।’রাজপথে গণপরিবহন কম দেখা গেছে

উল্লেখ্য, নতুন সড়ক পরিবহন আইন বাস্তবায়ন শুরুর ঘোষণা আসার পর রবিবার থেকে দেশের বিভিন্ন জেলায় বাস চলাচল বন্ধের খবর আসে। সোমবার সকাল থেকে অঘোষিতভাবে খুলনা, রাজশাহীসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে বাস চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। এর সঙ্গে সারাদেশে ট্রাক চলাচল বন্ধের ঘোষণাও যুক্ত হয়। বাংলাদেশ ট্রাক-কাভার্ডভ্যান পণ্য পরিবহন মালিক-শ্রমিক ঐক্য পরিষদ নতুন সড়ক পরিবহন আইন স্থগিত করে সংশোধনের জন্য ৯ দফা দাবি উপস্থাপন করেছে। সংগঠনটি আজ বুধবার (২০ নভেম্বর) ভোর ৬টা থেকে অনির্দিষ্টকালের জন্য কর্মবিরতি পালনের ঘোষণা দিয়েছে।

ছবি: শাহেদ শফিক ও সাজ্জাদ হোসেন। 

আরও পড়ুন- 

সারাদেশে পরিবহন ধর্মঘটে নাকাল যাত্রীরা

৯ দফা দাবিতে ট্রাক শ্রমিকদের কর্মবিরতি চলছে

ট্রাক চালানোর দায়ে তেজগাঁওয়ে এক চালককে মারধর (ভিডিও)

/এসএস/আরজে/ইউআই/এফএস/এমএমজে/

লাইভ

টপ