উইলস লিটলের সেই নারী শিক্ষকের জোড়া লাগা হাতে রক্ত সঞ্চালন শুরু

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ১৬:৩৩, মার্চ ১২, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ১৯:৩৪, মার্চ ১২, ২০২০

শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে উইলস লিটল ফ্লাওয়ার স্কুলের আহত শিক্ষকের জোড়া লাগা হাতে রক্ত সঞ্চালন শুরুর তথ্য জানান স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেকরাজধানীর কাকরাইলের উইলস লিটল ফ্লাওয়ার স্কুল অ্যান্ড কলেজের নারী শিক্ষক ফাহিমা বেগমের শারীরিক অবস্থা এখন অনেক ভালো বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক। তিনি জানান, ‘তার জোড়া লাগানো হাতটিতে রক্ত সঞ্চালন শুরু হয়েছে। আগামী তিন চার দিনের মধ্যে পরিস্থিতি আরও স্বাভাবিক হবে বলে আশা করা যাচ্ছে।’

আজ বৃহস্পতিবার (১২ মার্চ) ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের শেখ হাসিনা বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে ওই শিক্ষিকার অবস্থা পরিদর্শনের পর তিনি এই কথা জানান।

বার্ন ইউনিটের প্রশংসা করে মন্ত্রী বলেন, ‘এখন বিচ্ছিন্ন হাত-পা জোড়া লাগানোর মতো কাজ দেশেই করা যাচ্ছে। আর এটার জন্য বিদেশ যেতে হয় না। ধীরে ধীরে দেশের অন্যান্য বিভাগে এই সুবিধা তৈরির ব্যবস্থা করা হবে। এখানে প্রশিক্ষণের সুবিধা নিশ্চিত করা যাচ্ছে। এর জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ধন্যবাদ জানাই।’

আহত নারী শিক্ষককে দেখতে আসেন পুলিশের আইজি

এদিকে, আহত নারী শিক্ষককে দেখতে সন্ধ্যায় পুলিশের আইজি জাবেদ পাটোয়ারী শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউট আসেন। তিনি ওই শিক্ষকের চিকিৎসার খবর নেন। ডাক্তারদের সঙ্গে কথা বলেন।
এরপর সাংবাদিকদের জাবেদ পাটোয়ারী জানান, দুর্ঘটনাটি মর্মান্তিক। যেসব চিকিৎসক এই সফল অপারেশন করেছেন তাদেরকে ধন্যবাদ জানিয়ে তিনি বলেন, ‘রোগী এখন স্ট্যাবল আছেন, তার রক্ত সঞ্চালন ঠিকমতো হচ্ছে। তিনি এখন ভালো আছেন, মানুষ চিনতে পারছেন।’

এর আগে মঙ্গলবার (১০ মার্চ) সকালে উইলস লিটল ফ্লাওয়ার স্কুল অ্যান্ড কলেজের কলেজ শাখার শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা টুঙ্গিপাড়ায় জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সমাধি সৌধে শিক্ষা সফরে যাচ্ছিলেন। পথে গোপালগঞ্জ সদর উপজেলার ঘোনাপাড়া এলাকায় বাসচালক নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে রাস্তার পাশে দাঁড়িয়ে থাকা একটি ট্রাকের পেছনে ধাক্কা লাগায়। এতে উইলস লিটল ফ্লাওয়ার স্কুল অ্যান্ড কলেজের পৌরনীতি বিভাগের শিক্ষিকা ফাহিমা বেগমের বাম হাত শরীর থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে যায় ও অন্তত ১৫ শিক্ষার্থী আহত হন। ১০৫ জন শিক্ষার্থী, ১০ জন শিক্ষক ও চার জন স্টাফ ওই সফরে যান। দুর্ঘটনার পর হেলিকপ্টারে করে ফাহিমা বেগমকে শেখ হাসিনা বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে নিয়ে আসা হয়। এই দিনই প্রায় ছয় ঘণ্টার অপারেশনে বিচ্ছিন্ন হওয়া হাতটি সংযুক্ত করা হয়।

আরও পড়ুন- 

উইলস লিটলের শিক্ষিকার বিচ্ছিন্ন হাতটি সংযুক্ত করা হয়েছে 

উইলস লিটলের শিক্ষিকার বিচ্ছিন্ন হাতটি সংযোজনের চেষ্টা চলছে

/এআইবি/এফএস/এমএমজে/

লাইভ

টপ