একটু জলদি করো বাপু: বঙ্গবন্ধু

Send
উদিসা ইসলাম
প্রকাশিত : ০৭:৫৫, জুন ০২, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ১০:৩৬, জুন ০২, ২০২০

(বিভিন্ন সংবাদপত্রে প্রকাশিত তথ্যের ভিত্তিতে ১৯৭২ সালে বঙ্গবন্ধুর সরকারি কর্মকাণ্ড ও তার শাসনামল নিয়ে ধারাবাহিক প্রতিবেদন প্রকাশ করছে বাংলা ট্রিবিউন। আজ পড়ুন ওই বছরের ২ জুনের ঘটনা।)

স্থানীয় একটি বালিকা বিদ্যালয়ের কয়েকজন শিক্ষার্থী প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে আসেন ১৯৭২ সালের ২ জুন বিকালে। শেখ মুজিবুর রহমান রসিকতা করে ‘জুলুমবাজি বন্ধ করো’ স্লোগানটি মেয়েদের অটোগ্রাফ খাতায় লিখে দেন। গণভবনে বঙ্গবন্ধুর সাক্ষাৎপ্রার্থী এই শিক্ষার্থীরা তাকে দেখতে আসার পাশাপাশি তার কাছ থেকে অটোগ্রাফ দাবি করেন। এই সময় বঙ্গবন্ধু চট করে স্লোগানটিই লিখে স্বাক্ষর করে দেন। ৩ জুন পূর্বদেশ পত্রিকায় প্রতিবেদনটি প্রকাশিত হয়।

বঙ্গবন্ধুর সঙ্গে সাক্ষাতের সুযোগ পেয়ে মেয়েরা বঙ্গবন্ধুকে ঘিরে বেশি সময় নিচ্ছিল। এতে ব্যস্ত প্রধানমন্ত্রীর অফিসের নানা কাজ নিয়ে তিনি কিছুটা অসুবিধায় পড়েন। এই সময় বঙ্গবন্ধু তাদেরকে বলেন, ‘একটু জলদি করো বাপু। আমার অনেক সরকারি কাজ পড়ে আছে।’ তবু মেয়েরা বঙ্গবন্ধুর অটোগ্রাফ না নেওয়া পর্যন্ত তাদের আবদার জারি রাখে।

এদিকে পরের সপ্তাহ থেকে কিছুদিনের জন্য রবিবারে বঙ্গবন্ধু গণ সাক্ষাৎকার কর্মসূচি স্থগিত করেন। কারণ হিসেবে বলা হয়, প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধু জাতীয় ও আন্তর্জাতিক বিষয় নিয়ে এই সময় বেশ ব্যস্ত থাকবেন। এই ব্যাপারে জনগণের সহযোগিতা কামনা করা হয় বলে একটি বিবৃতিমূলক প্রতিবেদন প্রথম পাতায় প্রকাশিত হয়।

ট্রেড ইউনিয়নের কর্মকর্তাদের প্রতি বঙ্গবন্ধু
২ জুন সন্ধ্যায় টঙ্গী এলাকার বিভিন্ন শিল্প ইউনিটের ৪০টি ট্রেড ইউনিয়ন সংস্থার সভাপতি এবং সাধারণ সম্পাদক গণভবনে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সঙ্গে দেখা করেন। তারা বঙ্গবন্ধুকে জাতীয় পুনর্গঠনে এবং উৎপাদন বৃদ্ধির কাজে তাদের পূর্ণ সহযোগিতার আশ্বাস দেন। বঙ্গবন্ধু এখন থেকে সকল অর্থনৈতিক সেক্টরে জাতীয় উৎপাদন বৃদ্ধির জন্য শ্রমিক প্রতিনিধিদের প্রতি আহ্বান জানান। তিনি শ্রমিক নেতাদের তার পরিকল্পনার কথা জানান এবং বলেন অর্থনৈতিক উন্নতি হলে মেহনতি মানুষের ভাগ্যের উন্নতি হবে।

নতুন টাকায় বঙ্গবন্ধু
বাংলাদেশ ব্যাংক নতুন ১০ টাকা এবং ৫ টাকার নোট চালু করে। এর আগে বাংলাদেশ ব্যাংক নতুন ১০ টাকার নোট ইস্যু করেছিল, তার সঙ্গে এই নতুন নোটের পার্থক্য রয়েছে বলে ছবিসহ ক্যাপশন প্রকাশিত হয় পত্রিকায়। নতুন ১০ টাকার নোটে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতি ছাড়াও বেঙ্গল টাইগারের ছবি রয়েছে উল্লেখ করা হয়। এছাড়া নতুন পাঁচ টাকার নোটে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতি রয়েছে। নতুন নোট সংগ্রহের জন্য ২ জুন থেকে বিভিন্ন ব্যাংকে জনগণের উৎসাহ দেখা যায়।

লাল বাহিনীর অভিবাদন নেবেন বঙ্গবন্ধু

১৯৭২ সালের ৭ জুনে লাল বাহিনীর কর্মসূচিতে বঙ্গবন্ধু অভিবাদন নেবেন বলে কর্মসূচি নির্ধারিত হয়। সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সেদিন জাতীয় শ্রমিক লীগের লাল বাহিনীর অভিবাদন গ্রহণ করবেন এবং ঐতিহাসিক জনসভায় তিনি বক্তৃতা করবেন। ১৯৭২ সালের ২৩ মে এক সভায় ৭ জুন থেকে মুজিববাদ প্রতিষ্ঠার সংগ্রাম শুরু হবে বলে জানানো হয়। ১৯৭২ সালের ২৪ মে দৈনিক বাংলা পত্রিকায় প্রকাশিত সংবাদে বলা হয়, আওয়ামী লীগ স্বেচ্ছাসেবক বাহিনীর এক সভায় ঐতিহাসিক ৭ জুন পালনের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। স্বেচ্ছাসেবক বাহিনীর প্রধান আব্দুর রাজ্জাকের সভাপতিত্বে এই সভা হয়।

পাকিস্তান বিশ্বজনমতের গতি লক্ষ করবে

জুনের শেষ দিকে নয়া দিল্লিতে অনুষ্ঠিতব্য ভারত-পাকিস্তান শীর্ষ বৈঠকে পাকিস্তানের বাংলাদেশকে স্বীকৃতি দেওয়ার পথ সুগম হবে বলে বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী আব্দুস সামাদ আজাদ আশা প্রকাশ করেন। চারদিনব্যাপী সরকারিভাবে মালয়েশিয়া সফরে পৌঁছে তিনি সাংবাদিকদের বলেন, ‘আমরা আশাকরি জনাব ভুট্টো এই প্রশ্নে বিশ্ব জনমতের গতি লক্ষ করবেন।’ তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশ, পাকিস্তানসহ পৃথিবীর সকল দেশের সঙ্গে শান্তিতে বসবাস করতে চায়।’ তিনি আরও বলেন, ‘আমাদের একটি সম্মানজনক ও স্বাধীন জাতি হিসেবে পৃথিবীতে টিকে থেকে বাঁচতে দিতে হবে।’ মন্ত্রী বলেন, ‘যত তাড়াতাড়ি জনাব ভুট্টো উপলব্ধি করতে পারেন, ততই মঙ্গল।’

/ইউআই/এনএস/এমএমজে/

লাইভ

টপ