X
রবিবার, ০৩ জুলাই ২০২২
১৯ আষাঢ় ১৪২৯
মেয়র তাপসের ২ বছর

ঢাকা কখন জাগবে-ঘুমাবে, নির্দিষ্ট করতে হবে: তাপস

আপডেট : ১৬ মে ২০২২, ১৬:৫২

কিছু নিয়ম-নীতি পালন না করলে ঢাকা শহরে বড় বড় প্রকল্প নিয়েও তা বাস্তবায়ন করা সম্ভব হবে না বলে মন্তব্য করেছেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) মেয়র ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস। এজন্য ঢাকা নিয়ে কিছু প্রস্তাব দিয়েছেন তিনি।

সোমবার (১৬ মে) দায়িত্বভার গ্রহণের দুই বছর পূর্তি উপলক্ষে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এসব প্রস্তাবনার কথা জানান মেয়র তাপস।

এসময় সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন ডিএসসিসি’র বিভিন্ন ওয়ার্ডের কাউন্সিলর, করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ফরিদ আহাম্মদ ও বিভিন্ন বিভাগের বিভাগীয় প্রধানরা। 

শহর রক্ষায় ঢাকামুখী জনস্রোত রোধ করা প্রস্তাব দিয়েছেন মেয়র তাপস। তিনি বলেন, ‘এটি সুস্পষ্ট যে, ঢাকা শহর ২ কোটিরও বেশি জনগোষ্ঠীর ভার বহনে অক্ষম। কিন্তু প্রতিনিয়ত মানুষের সংখ্যা বেড়েই চলেছে। তাই সরকারকে এ ব্যাপারে এখনই পরিকল্পনা নিতে হবে।’

শহর পরিচালনা ও ব্যবস্থাপনাকে একটি সময়সীমায় আওতায় নিয়ে আসার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, ‘সুনির্দিষ্ট সময়সীমা বেঁধে দিতে হবে। শহর কখন জেগে উঠবে, কখন ঘুমাবে– সে বিষয়ে পৃথিবীর অন্যান্য শহরের মতোই সুনির্দিষ্ট সময়সীমা ঢাকা শহরের জন্যও থাকা আবশ্যক।’

ঢাকা শহরকে একটি বাসযোগ্য ও উন্নত শহর হিসেবে গড়ে তুলতে অন্যান্য অনুষঙ্গের পাশাপাশি রাত ৮টার মধ্যে বেসরকারি অফিস, দোকান-পাট, বাজার (মার্কেট), শপিং মল ইত্যাদি বন্ধ করারও তাগিদ দেন ফজলে নূর তাপস। তিনি আরও বলেন, ‘খাবার হোটেল রাত ১০টার পর খোলা রাখা যাবে না। ঔষধালয়, চিকিৎসালয় ইত্যাদি একান্ত জরুরি সেবা ও প্রতিষ্ঠান ছাড়া অন্যান্য প্রতিষ্ঠানকে নির্দিষ্ট সময়ের পর খোলা রাখতে হলে করপোরেশনের বিশেষ অনুমতি নিতে হবে।’

এতে শহরের কার্যক্রম শৃঙ্খলায় আসবে এবং লোকজনও তাদের পরিবার-পরিজন, বন্ধুবান্ধবদের সাথে সময় কাটাতে পারবে, পারিবারিক ও সামাজিক বন্ধন মজবুত ভিত্তি লাভ করবে বলেও মনে করেন তিনি।
 
মেয়র বলেন, ‘আমরা যে খালগুলোর দায়িত্ব বুঝে নিয়েছি, সেগুলো হতে বর্জ্য ও পলি অপসারণ করে চলেছি।'

আগামী ১ জুলাই থেকে ডিএসিসির নর্দমায় কোনও পয়ঃবর্জ্য বা পানির সংযোগ আর দিতে দেওয়া হবে না বলে জানান মেয়র। তিনি বলেন, ‘পয়ঃবর্জ্য বা পানি ব্যবস্থাপনা ওয়াসার দায়িত্ব। ওয়াসা সেই দায়িত্ব পালন করুক বা না করুক, আমরা আমাদের স্ট্রম স্যুয়ারেজে আর কোনও পয়ঃবর্জ্যের বা পানির সংযোগ দেবো না। সেজন্য ঢাকাবাসীকেও আমরা অনুরোধ করছি, আপনারা আপনার বাড়ি বা ভবনে যথানিয়মে সোক ওয়েল ও সেফটিক ট্যাংক নির্মাণের ব্যবস্থা নিন। নতুবা আমাদের কঠোর হতে হবে।’

রাস্তাগুলো কীভাবে হকার মুক্ত করা যায়, হাঁটার পথগুলো কীভাবে উন্মুক্ত করা যায়, সেটা ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের একটি গুরুত্বপূর্ণ কার্যক্রম বলে জানান মেয়র। তিনি বলেন, ‘সেই পরিপ্রেক্ষিতে আমরা মনে করি, কিছু কিছু সড়ক বা এলাকাকে আমরা লাল চিহ্নিত এলাকা হিসেবে ঘোষণা করবো। সেসব সড়কে কোনোভাবেই কোনও হকারকে বসতে দেওয়া হবে না। কিছু সড়ককে হলুদ চিহ্নিত এলাকা হিসেবে ঘোষণা করা হবে। সেসব সড়কে সুনির্দিষ্ট সময়ের জন্য হকাররা বসতে পারবে, তাদের ব্যবসা বাণিজ্য পরিচালনা করতে পারবে। সময়সীমার বাইরে সেসব সড়কেও কোনও ধরনের প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করতে দেওয়া হবে না।’

মেয়র বলেন, ‘ঢাকায় যে পরিমাণ ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠান রয়েছে, তার তুলনায় অনেক কম প্রতিষ্ঠানই করপোরেশনের কাছ থেকে অনুমতি নেয়। আগামী অর্থবছর হতে এ বিষয়ে আমরা কঠোর হবো।’

/ইউআই/ইউএস/
বাংলা ট্রিবিউনের সর্বশেষ
পারিবারিক আদালত আইনের খসড়া অনুমোদন
পারিবারিক আদালত আইনের খসড়া অনুমোদন
ঢাকায় আরও চারটি বড় বাজার করার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর 
ঢাকায় আরও চারটি বড় বাজার করার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর 
এনামুলের ব্যাটে আশার আলো দেখছেন ডমিঙ্গো
এনামুলের ব্যাটে আশার আলো দেখছেন ডমিঙ্গো
কর্মকর্তাদের ভিসা ছাড়াই ব্রাজিল যাওয়ার চুক্তির খসড়া অনুমোদন
কর্মকর্তাদের ভিসা ছাড়াই ব্রাজিল যাওয়ার চুক্তির খসড়া অনুমোদন
এ বিভাগের সর্বশেষ
ভারী বৃষ্টি হলেই বিপদে পড়বে ঢাকা
ভারী বৃষ্টি হলেই বিপদে পড়বে ঢাকা
মশার উৎস খুঁজতে অভিযান শুরু, উড়ছে ড্রোন
মশার উৎস খুঁজতে অভিযান শুরু, উড়ছে ড্রোন
ঢাকার টিকা খেয়েছেন অন্য জেলার মানুষও
ঢাকার টিকা খেয়েছেন অন্য জেলার মানুষও
রাজধানীতে সড়কে প্রাণ গেলো ৫ জনের
রাজধানীতে সড়কে প্রাণ গেলো ৫ জনের
রাজধানীতে দুই বাসের রেষারেষিতে প্রাণ গেলো যুবকের
রাজধানীতে দুই বাসের রেষারেষিতে প্রাণ গেলো যুবকের