ডাকসুর সমাজসেবা সম্পাদকের ওপর হামলা

Send
ঢাবি প্রতিনিধি
প্রকাশিত : ১৭:২০, জুলাই ২৩, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ১৭:৩৭, জুলাই ২৪, ২০১৯




হামলার বিষয়ে ডাকসুর ভিপি নুরের সঙ্গে কথা বলতে আসেন জিএস গোলাম রাব্বানী ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সরকারি সাত কলেজের অধিভুক্তি বাতিলের আন্দোলনে ডাকসুর সমাজসেবা সম্পাদক আকতার হোসেনের ওপর হামলার ঘটনা ঘটেছে। অভিযোগ উঠেছে ছাত্রলীগ কর্মীরা এ হামলা চালিয়েছে। মঙ্গলবার (২৩জুলাই) দুপুরে তৃতীয় দিনের মতো টানা চলমান আন্দোলনে বিশ্ববিদ্যালয়ের মলচত্বর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

ভুক্তভোগী আকতার হোসেন অভিযোগ করেন, ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা হামলা চালিয়েছে। শহীদ সার্জেন্ট জহুরুল হক হল ছাত্রলীগের সহ-সম্পাদক ও বিশ্ববিদ্যালয় লোক প্রশাসন বিভাগের শিক্ষার্থী রাব্বি হকের নেতৃত্বে এ হামলা চালানো হয়।

তবে হামলার বিষয়ে জানতে চাইলে রাব্বি হক বিষয়টি অস্বীকার করেন। তিনি ছাত্রলীগের কোনও পদে নেই বলেও দাবি করেন। অবশ্য ওই হল কমিটির এক সহ-সম্পাদক নাম প্রকাশ না করার শর্তে জানিয়েছেন, রাব্বি হল শাখার সহ-সম্পাদক পদে আছেন।

পরে আকতার হোসেনের ওপর হামলার প্রতিবাদ জানাতে অপরাজেয় বাংলার পাদদেশে আসেন ডাকসু ভিপি নুরুল হক নুর। পরে ডাকসুর সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানী, সহ-সাধারণ সম্পাদক সাদ্দাম হোসেন এবং ছাত্রলীগের সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভনও সেখানে আসেন।

এ সময় আকতার ডাকসুর প্রতিনিধি হিসেবে গোলাম রাব্বানীর কাছে হামলার বিষয়টি জানান। তখন ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা আকতারের বিরুদ্ধে ‘ভুয়া’ ‘ভুয়া’ বলে স্লোগান দেন।

ভিপি নুর ছাত্রলীগ কর্মীদের এমন আচরণের প্রতিবাদ জানান। তিনি এ সময় ছাত্রলীগের উত্তেজিত নেতাকর্মীদের থামতেও বলেন। নুর তাদের বিশ্ববিদ্যালয় পড়ার যোগ্যতা নিয়েও প্রশ্ন তোলেন। এ ঘটনায় ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা ক্ষুব্ধ হয়ে উঠেন। পরে জিএস গোলাম রাব্বানী নেতাকর্মীদের ঠাণ্ডা করে এ বিষয়ে আলোচনা করতে সবাইকে ডাকসুতে নিয়ে যান।

পরে আকতারের ওপর হামলার ঘটনায় নুরের নেতৃত্বে ক্যাম্পাসে সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের নেতাকর্মীরা প্রতিবাদ মিছিল করেন। অন্যদিকে আকতারের ওপর হামলার প্রতিবাদ জানিয়েছেন সাত কলেজ আন্দোলনের আহ্বায়ক আসিফ মাহমুদ। তিনি দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ারও ঘোষণা দেন।

এ বিষয়ে জানতে ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানীকে ফোন দিলে তিনি রিসিভ করেননি। ডাকসুতে গিয়ে দেখা যায় তিনি এবং ছাত্রলীগের সভাপতি, ডাকসুর এজিএস সাদ্দাম সভায় ব্যস্ত রয়েছেন।

পরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ও ডাকসুর এজিএস সাদ্দাম হোসেন বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘আমরা সাধারণ শিক্ষার্থীদের নিয়ে উপাচার্যের কার্যালয়ে স্মারকলিপি দিতে গেলে আকতারসহ আরও কয়েকজন আমাদের বাধা দেন। আমরা তখন সর্বোচ্চ রাজনৈতিক উদারতার পরিচয় দিয়েছি। এখন তারা রাজনৈতিক সুবিধা নেওয়ার জন্য আমাদের বিরুদ্ধে নাটক সাজাচ্ছে।’

/টিটি/

সম্পর্কিত

লাইভ

টপ
X