‘পরিসংখ্যান অনুযায়ী আরও ৩ মাসের পেঁয়াজ মজুত থাকার কথা’

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ২১:৩৯, নভেম্বর ১৯, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ২১:৪৪, নভেম্বর ১৯, ২০১৯

5পেঁয়াজের বর্তমান সংকটের বিষয়টি পরিসংখ্যানে মিলছে না বলে মন্তব্য করেছেন বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় ইউনিভার্সিটি অব লিবারেল আর্টস বাংলাদেশের (ইউল্যাব) স্কুল অব বিজনেসের সহকারী অধ্যাপক মেহেদী রাজীব। তিনি বলেন, ‘সত্যিকার অর্থে পেঁয়াজের এই সংকট গাণিতিকভাবে আমরা ব্যাখ্যা করতে পারছি না। কারণ ২০১৯ সালের পরিসংখ্যান বলছে, উৎপাদন ২৩ লাখ ৭৬ হাজার মেট্রিক টন। উৎপাদন ও আমদানিসহ আমরা যদি পরিসংখ্যানে যাই, তাহলে আমাদের আরও তিন মাসের পেঁয়াজ মজুত থাকার কথা।’

শীর্ষস্থানীয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল বাংলা ট্রিবিউনের আয়োজনে ‘পেঁয়াজের এত ঝাঁজ?’ শীর্ষক বৈঠকিতে তিনি এ কথা বলেন। মঙ্গলবার (১৯ নভেম্বর) বিকালে শুরু হয় বাংলা ট্রিবিউনের সাপ্তাহিক এই আয়োজন।

তিনি আরও বলেন, ‘আমাদের চাহিদা অনুযায়ী যদি ওয়েস্টেজ হিসাব করি, তাহলেও আসলে এই হিসাব মেলানো যাচ্ছে না। এখন আমরা যদি কেওস থিওরিতে যাই, তাহলে হয়তো ব্যাখ্যা করা যায়। তবে, এই কেওস থিওরি শুধু পেঁয়াজের ক্ষেত্রে ঘটে যাবে ব্যাপারটা তা নয়। এটার আরও প্রভাব পড়বে অন্য পণ্যের ওপরে। এই যে প্রভাব, এটা খুবই বিচ্ছিন্ন। “ভারতের পেঁয়াজ রফতানি বন্ধের ঘোষণা” এই ছোট্ট একটি তথ্যের ভিত্তিতে আকস্মিকভাবে আমাদের পেঁয়াজ কি সব নাই হয়ে গেল? এটা আসলে হিসাবে মিলছে না। সবচেয়ে ভয়ের বিষয় হচ্ছে, আমরা ভবিষ্যতের পূর্বাভাস দিতে পারছি না। আমি জানি না আমাদের নীতি নির্ধারকরা কীভাবে চিন্তা করছেন। এটি একটি অংকের হিসাব। আমরা কোনওভাবেই চিন্তা করছি না যে এক মাস কিংবা দু মাস পরে কী হতে যাচ্ছে।’

সাংবাদিক মুন্নী সাহার সঞ্চালনায় আজকের বৈঠকিতে আরও অংশ নেন– রাজধানীর শ্যামবাজারের আড়তদার মো. শামসুর রহমান, কাওরানবাজার আড়ত ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি মোহাম্মদ ওমর ফারুক এবং বাংলা ট্রিবিউনের বিশেষ প্রতিনিধি শফিকুল ইসলাম।

রাজধানীর পান্থপথে বাংলা ট্রিবিউন স্টুডিও থেকে এ বৈঠকি সরাসরি সম্প্রচার করে বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেল এটিএন নিউজ। পাশাপাশি বাংলা ট্রিবিউনের ফেসবুক ও হোমপেজে লাইভ দেখা গেছে এ আয়োজন। ইউল্যাবের সহযোগিতায় এ বৈঠকি অনুষ্ঠিত হয়েছে।

 

/এসও/এমএএ/

লাইভ

টপ