৩ বছরেও চালু হয়নি বিমানের মোবাইল অ্যাপ

Send
চৌধুরী আকবর হোসেন
প্রকাশিত : ১২:১১, নভেম্বর ২১, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ১৩:০৭, নভেম্বর ২১, ২০১৯

বিমান বালাদেশ এয়ারলাইন্সনিজস্ব ওয়েবসাইটের পাশাপাশি প্রায় তিন বছর আগে মোবাইল অ্যাপের মাধ্যমে টিকিট বিক্রির উদ্যোগ নেয় বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স। এই উদ্যোগ অনুযায়ী ‘বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স’ নামে একটি অ্যাপ তৈরির লক্ষ্যে ২০১৭ সালের ৪ জানুয়ারি ছয় সদস্যের একটি কমিটি করেছিল বিমান। কমিটি গঠনের পর প্রায় তিন বছর পার হয়ে গেলেও অ্যাপটি চালু করতে পারেনি রাষ্ট্রায়ত্ত সংস্থাটি। পরন্তু বিমানের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মো. মোকাব্বির হোসেন জানাচ্ছেন, মোবাইল অ্যাপ বানাতে আগে কোনও কমিটি হয়েছিল কিনা, সেটি তার জানা নেই।

এদিকে, মঙ্গলবার (২০ নভেম্বর) এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বিমান জানিয়েছে, বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স যাত্রীদের যাত্রা সহজীকরণ, গতিশীল ও নির্বিঘ্ন করার জন্য ‘বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স’ নামে একটি অ্যাপ চালু করতে যাচ্ছে। এই অ্যাপ ব্যবহার করে নিজের মোবাইল থেকেই বিমানের সব গন্তব্যের টিকিট কেনা যাবে। যাত্রীরা বিকাশ, রকেট বা যেকোনও কার্ডের মাধ্যমে টিকিটের মূল্য পরিশোধ করতে পারবেন। গুগল প্লে স্টোর অথবা অ্যাপল অ্যাপস স্টোর থেকে স্মার্টফোনে অ্যাপটি ডাউনলোড করলে পৃথিবীর যেকোনও প্রান্ত থেকে বিমানের ফ্লাইট সংক্রান্ত সব তথ্য পাওয়া যাবে। এই অ্যাপের মাধ্যমে যাত্রীরা ফ্লাইট সম্পর্কিত সব তথ্য, ফ্লাইট স্ট্যাটাস, ফ্লাইট শিডিউল, সেলস সেন্টারগুলোর ঠিকানা, অনলাইন টিকিট ও রিফান্ড হেল্প ডেস্ক এবং টিকিট বুকিং সংক্রান্ত সব তথ্য জানতে পারবে।

বিমান সূত্রে জানা গেছে, ২০১৭ সালের ৪ জানুয়ারি মোবাইল অ্যাপ বানাতে একটি কমিটি করেছিল বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স। বিমানের তৎকালীন পরিচালক (প্রশাসন) বেলায়েত হোসেন স্বাক্ষরিত এক অফিস আদেশে ছয় সদস্যের কমিটি গঠন করা হয়। ওই আদেশে বলা হয়, কমিটিকে ৩০ দিনের মধ্যে বাজেটসহ বাস্তবায়ন করার পরিকল্পনা জমা দিতে হবে। একইসঙ্গে টেন্ডার দেওয়ার যাবতীয় কার্যাবলি প্রস্তুত করতেও নির্দেশ দেওয়া হয়।

এই কমিটির প্রধান ছিলেন সেলস বিভাগের ডেপুটি জেনারেল ম্যানেজার ও সদস্য সচিব ছিলেন অ্যাসিসটেন্ট ম্যানেজার (কমার্শিয়াল)।

মোবাইল অ্যাপস তৈরির লক্ষ্যে গঠিত কমিটি

এ প্রসঙ্গে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মো. মোকাব্বির হোসেন বলেন, ‘মোবাইল অ্যাপ বানাতে আগে কোনও কমিটি হয়েছিল কিনা, সেটি আমার জানা নেই। তবে গত ছয় মাস ধরে আমরা অ্যাপ বানানোর উদ্যোগ নিয়েছি। অ্যাপ বানানোর কাজ শেষ হয়েছে। আমরা আশা করছি, এ মাসেই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অ্যাপটি উদ্বোধন করবেন।’

মোকাব্বির হোসেন বলেন, ‘বিমানের মোবাইল অ্যাপের মাধ্যমে যাত্রীরা আরও সহজে টিকিট কেনাসহ ফ্লাইট সংক্রান্ত সেবা পাবেন।’

মোবাইল অ্যাপ নির্মাতা প্রতিষ্ঠান এমসিসি লিমিটেডের প্রধান নির্বাহী এস এম আশ্রাফ আবীর  বলেন, ‘মোবাইল অ্যাপের ধরনের ওপর নির্ভর করে সেটি তৈরি করতে কত সময় লাগবে। সাধারণত  ছোট অ্যাপ এক সপ্তাহ, আর বড় ধরনের অ্যাপ বানাতে একবছর সময় লাগতে পারে। আসলে সময়ের বিষয়টি নির্ভর করে অ্যাপের ফিচার ও কার্যকারিতার ওপর।’

এয়ারলাইন্সের অ্যাপ তৈরির বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘এয়ারলাইন্সের অ্যাপের গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হচ্ছে বুকিং ইঞ্জিন। এটি যদি তৈরি থাকে তাহলে ২-৩ মাসের মধ্যে অ্যাপ বানানো সম্ভব। আর বুকিং ইঞ্জিন বানানো না থাকলে সর্বোচ্চ একবছর পর্যন্ত সময় লাগেতে পারে।’

আশ্রাফ আবীর বলেন, ‘বুকিং ইঞ্জিনের মাধ্যমে ওয়েবে বর্তমানে বিমানের টিকিট কাটা যায়। ফলে তাদের অ্যাপের জন্য নতুন করে বুকিং ইঞ্জিন বানানোর কথা নয়।’ বিমানের জন্য মোবাইল অ্যাপ বানাতে চার থেকে ছয় মাস সময় যথেষ্ট বলেও তিনি মনে করেন।

/এপিএইচ/এমএনএইচ/এমএমজে/

লাইভ

টপ