১৮তম এশিয়ান ইউনিভার্সিটি প্রেসিডেন্টস ফোরামের আনুষ্ঠানিকতা শুরু

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ২২:০৮, নভেম্বর ২২, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ২২:২০, নভেম্বর ২২, ২০১৯

BT New Tempবাংলাদেশে আয়োজিত হচ্ছে এশিয়ান ইউনিভার্সিটি প্রেসিডেন্টস ফোরাম-২০১৯ (এইউপিএফ-২০১৯)। দেশে প্রথমবারের মতো এই ফোরামের আয়োজন করেছে ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি। এ আয়োজনে সহযোগিতা করছে বাংলাদেশ বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় সমিতি। বাংলাদেশসহ এশিয়ার ১৫টি দেশের ৪০টি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রেসিডেন্ট, ভাইস চ্যান্সেলর ও র‌্যাক্টররা এ ফোরামে অংশ নেবেন।

শুক্রবার (২২ নভেম্বর) সন্ধ্যায় রাজধানীর সোবহানবাগে ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির ৭১ মিলনায়তনে এক পরিচিতি পর্বের মধ্য দিয়ে তিন দিনব্যাপী এই সম্মেলন শুরু হয়।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন পানিসম্পদ উপমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এনামুল হক শামীম। তিনি বলেন, ‘ড্যাফোডিল ইউনিভার্সিটি এই সম্মেলনের আয়োজন করার জন্য আমি ধন্যবাদ জানাই। আশা করি, এই সম্মেলন বাংলাদেশের বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর জন্য আরও সুযোগ প্রসারিত করবে। বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলো উচ্চশিক্ষার উন্নয়নে ও প্রসারে যেভাবে নানা উদ্যোগ নিচ্ছে তা প্রশংসনীয়। সরকারও তাই চায়। এজন্য সরকার শিক্ষার উন্নয়নে ৩৫ কোটি বই বিনামূল্যে বিতরণের ব্যবস্থা করেছে। কারণ মানসম্মত শিক্ষাই আগামী দিনের নেতৃত্ব তৈরিতে সহায়ক ভূমিকা পালন করে।’

অনুষ্ঠানের শুরুতেই স্বাগত বক্তব্য রাখেন ড্যাফোডিল ইউনিভার্সিটির উপাচার্য ড. ইউসুফ মাহবুবুল ইসলাম। এ সময় তিনি অংশগ্রহণকারী ১৩টি দেশের প্রতিনিধিদের সঙ্গে সবার পরিচয় করিয়ে দেন।

এ সময় বিদেশি অতিথিদের উদ্দেশে এইউপিএফ স্ট্যান্ডিং কমিটির সদস্য ও ড্যাফোডিল ইউনিভার্সিটির প্রতিষ্ঠাতা মো. সবুর খান বলেন, ‘আগত অতিথিরা অনেকেই বাংলাদেশে প্রথমবারের মতো এসেছেন। আমাদের আন্তরিক প্রচেষ্টা থাকবে আপনাদের যথাসাধ্য সন্তুষ্ট করার। আমাদের এবারের সম্মেলনের প্রতিপাদ্য– ‘উদ্যোক্তা শিক্ষার ভবিষ্যৎ ও অভিজ্ঞতালব্ধ জ্ঞান: এশিয়ার অর্থনীতিতে সফল উদ্যোক্তা উন্নয়নের পরিবেশ তৈরির নিয়ামকসমূহ’। আমি আশা করি, আপনারা বিশ্বাস করেন, উদ্যোক্তা তৈরি করা ছাড়া কোনও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানই টেকসই হতে পারবে না ভবিষ্যতে। কারণ প্রযুক্তির প্রসার ও চিন্তার ভিন্নতার কারণে আমরা আজকে প্রযুক্তি ছাড়া অন্ধকারেই থেকে যাব। এ কারণেই আমরা এই প্রতিপাদ্য নির্ধারণ করেছি।’

পপপঅনুষ্ঠানে ড্যাফোডিল বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের সাংস্কৃতিক পরিবেশনা সবাইকে মুগ্ধ করে। 

২৩ নভেম্বর সকাল ১০টায় এইউপিএফ ২০১৯-এর আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করবেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দিপু মনি। এইউপিএফ ২০১৯-এর প্রতিপাদ্য বিষয়ের ওপর মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করবেন ওয়ার্ল্ড বিজনেস এনজেলস্ ইনভেস্টমেন্ট ফোরামের চেয়ারম্যান বেবারস্ আলতুনতাস। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন বাংলাদেশ বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় সমিতির সভাপতি শেখ কবির হোসেন। একই দিন রাতে অতিথিদের সম্মানে আয়োজিত নৈশভোজে উপস্থিত থাকবেন শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী। ২৪ নভেম্বর সকাল ১০টায় ড্যাফোডিল ইউনিভার্সিটির আশুলিয়ার স্থায়ী ক্যাম্পাসের স্বাধীনতা মিলনায়তনে সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের চেয়ারম্যান প্রফেসর ড. কাজী শহীদুল্লাহ।

উল্লেখ্য, চীন ও থাইল্যান্ডের উচ্চশিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে একটি বন্ধুত্বপূর্ণ ও সহযোগিতাপূর্ণ সম্পর্ক থেকে ১৯৯৯ সালে এশিয়ান ইউনিভার্সিটি প্রেসিডেন্ট ফোরাম (এইউপিএফ) যাত্রা শুরু করে। দেশ দুটির বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর প্রেসিডেন্টরা যাতে সহজেই নিজেদের মধ্যে বিভিন্ন তথ্য ও অভিজ্ঞতা বিনিময় করতে পারেন এমন একটি ব্যবস্থা গড়ে তোলার উদ্দেশে সিনো-থাই হায়ার এডুকেশন ইনস্টিটিউশনে একটি সম্মেলন করার জন্য থাইল্যান্ডের গুয়াংডং ইউনিভার্সিটি অব ফরেন স্টাডিজ, চাওশান কলেজ, শ্রীনাখারিনউইরট ইউনিভার্সিটি ও সিয়ামস ইউনিভার্সিটি সম্মিলিতভাবে একটি প্রস্তাব উত্থাপন করে। সেই থেকে প্রস্তাবিত সম্মেলনটি প্রতিবছর অনুষ্ঠিত হয় এবং এর মাধ্যমে সমগ্র এশিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর প্রেসিডেন্টদের অন্তর্ভুক্ত করার চেষ্টা করা হয়।

 

/এসও/এমএএ/

লাইভ

টপ