দেশ দুর্নীতিমুক্ত হলে শোষণমুক্ত সোনার বাংলা হবে: ড. আনিসুজ্জামান

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ১৭:৩৮, ডিসেম্বর ০৯, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ১৭:৪০, ডিসেম্বর ০৯, ২০১৯

আনিসুজ্জামানদেশ অনেক দিক দিয়ে এগিয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন জাতীয় অধ্যাপক ড. আনিসুজ্জামান। তিনি বলেন, ‘দেশকে দুর্নীতিমুক্ত করতে পারলে আরও এগিয়ে যাবে। দুর্নীতিমুক্ত করা গেলে দেশ শোষণমুক্ত সোনার বাংলা হবে।’ সোমবার (৯ ডিসেম্বর) সকাল ১১টার দিকে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির জাতীয় নাট্যশালা মিলনায়তনে ‘আন্তর্জাতিক দুর্নীতিবিরোধী দিবস’ উপলক্ষে  আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

তরুণ প্রজন্মের প্রতিনিধি শিক্ষার্থী ও সততা সংঘের  উদ্যোগে এই সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

ড. আনিসুজ্জামান বলেন, ‘এককভাবে প্রতিষ্ঠানের পক্ষে দুর্নীতি প্রতিরোধ করা সম্ভব নয়। দেশের নাগরিকদের মধ্যে দুর্নীতিবিরোধী মনোভাব জাগ্রত করতে হবে। শিক্ষার্থীরা যদি প্রথম থেকেই নকল ও ভর্তিবাণিজ্যের মতো অনৈতিকতা থেকে মুক্ত থাকতে পারেন, তাহলে তারা দুর্নীতি করবেন না। অন্যকেও দুর্নীতি করতে দেবেন না। শিক্ষার্থীরা ইতিবাচক মনোভাব নিয়ে বেড়ে উঠলে দেশ একদিন দুর্নীতিমুক্ত হবেই।’

সোমবার সকাল ৯টার দিকে সেগুনবাগিচায় দুদক প্রধান কার্যালয়ের সামনে সংস্থার চেয়াম্যান ইকবাল মাহমুদ জাতীয় পতাকা ও দুদকের পতাকা উত্তোলন করেন। সকাল সাড়ে ৯টায় আন্তর্জাতিক দুর্নীতিবিরোধী দিবস পালন উপলক্ষে শান্তির প্রতীক পায়রা ও ফেস্টুন উড়িয়ে দিবসটির উদ্বোধন ঘোষণা করেন তিনি। পরে দুদকের মিডিয়া সেন্টারে রাখা রেজিস্টারে নিজের সই করে দুর্নীতিবিরোধী গণস্বাক্ষর কর্মসূচি এবং পোস্টার ও কার্টুন প্রদর্শনীর উদ্বোধন করেন দুদক চেয়ারম্যান। রেজিস্টারটি ১৪ ডিসেম্বর পর্যন্ত সবার জন্য দুদক মিডিয়া সেন্টারে উন্মুক্ত থাকবে।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে দুদক চেয়ারম্যান বলেন, ‘আজ বিশ্বব্যাপী দুর্নীতিবিরোধী দিবস পালিত হচ্ছে। দুর্নীতি শুধু বাংলাদেশের একক সমস্যা নয়, এটি বৈশ্বিক সমস্যা। বিভিন্ন গবেষণায় দেখা গেছে, এ জাতীয় সমস্যা একক দেশ বা একক প্রচেষ্টায় নির্মূল করা কঠিন। তাই দুর্নীতির বিরুদ্ধে সব শ্রেণি-পেশার মানুষকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। ছাত্র-শিক্ষক, বুদ্ধিজীবী, রাজনীতিবিদ, সরকার, মিডিয়াসহ সবার সমন্বিত ও পূর্ণ আন্তরিকতা নিয়ে দুর্নীতির বিরুদ্ধে লড়াই করতে হবে।’

এক প্রশ্নের জবাবে ইকবাল মাহমুদ বলেন, ‘দুদকের বার্তা পরিষ্কার, যারা দুর্নীতির মাধ্যমে জনগণের অর্থ-সম্পদ লুণ্ঠন করেছেন, তারা দেশে-বিদেশে পালিয়ে গেলেও সুখে থাকতে পারবেন না। অবৈধ সম্পদ শান্তিতে ভোগ করতে পারবেন না, দুদক তাদের পেছনে নিত্য তাড়া করবে, করবেই।’

উদ্বোধনের পর দুদক চেয়ারম্যান সংস্থাটির প্রধান কার্যালয় ও ঢাকা বিভাগীয় কার্যালয়ের কর্মকর্তা-কর্মচারী, দুদকের প্যানেল আইনজীবী, ঢাকা মহানগর দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির সদস্য, গার্ল গাইডস, বয়েজ স্কাউট, সততা সংঘের সদস্য, আনসার, বিএনসিসি, বিভিন্ন এনজিও, ঢাকা বিভাগীয় কমিশনার, মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদফতর, এনজিওবিষয়ক ব্যুরো, ঢাকা জেলা প্রশাসনসহ বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ নিয়ে ইঞ্জিনিয়ারিং ইনস্টিটিউট থেকে শাহবাগ পর্যন্ত সড়কের দুই পাশে দুর্নীতিবিরোধী র‌্যালি বের করেন।

 

/ডিএস/এমএনএইচ/

লাইভ

টপ