চতুর্থ শিল্প বিপ্লবের চাহিদা অনুযায়ী পাঠ্যক্রম করছে সরকার: শিক্ষামন্ত্রী

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ২১:১১, ডিসেম্বর ২৭, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ২১:১১, ডিসেম্বর ২৭, ২০১৯

পপপসরকার যুগোপযোগী শিক্ষা কারিকুলাম প্রবর্তন করছে বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি। তিনি বলেন, ‘চতুর্থ শিল্প বিপ্লবের চাহিদা অনুযায়ী শিক্ষা ও পাঠ্যক্রম পরিবর্তন করা হচ্ছে। শুক্রবার (২৭ ডিসেম্বর) দুপুরে শতবর্ষী রাজশাহী কলেজের সাবেক শিক্ষার্থীদের পুনর্মিলনী অনুষ্ঠানে একথা বলেন তিনি।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, ‘চতুর্থ শিল্প বিপ্লবের কারণে আগামী দিনের শ্রমবাজার দখল করবে আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স ও রোবট। চতুর্থ শিল্প বিপ্লবের এই চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় সরকার দক্ষ মানবসম্পদ তৈরির ওপর গুরুত্ব দিচ্ছে। পরিবর্তিত বিশ্বে আমাদের নতুন নতুন পরিস্থিতির সম্মুখীন হতে হয়। তাই আমাদের জানতে হবে কীভাবে জীবনব্যাপী শিখতে হয়। এই চাহিদা অনুযায়ী কারিকুলামে পরিবর্তন আনা হচ্ছে।’ এ সরকার গণমুখী ও শিক্ষাবান্ধব বলে উল্লেখ করেন তিনি।

রাজশাহী কলেজে ছাত্রী নিবাস করার আশ্বাস দিয়ে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, ‘রাজশাহী কলেজে ছাত্রীনিবাস খুব দরকার। মেয়েদের অনেক কষ্ট করে থাকতে হচ্ছে। একটা দশতলা ছাত্রীনিবাস হবে। একটা প্রশাসনিক ভবনও দরকার।’

গবেষণায় গুরুত্ব দেওয়ার আহ্বান জানিয়ে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, ‘শিক্ষাক্ষেত্রে বিনিয়োগ জিডিপির ৬ শতাংশে উন্নীত করার লক্ষ্যে সরকার কাজ করছে। শিক্ষকদের ওপরও বিনিয়োগ বাড়ানো হবে। শিক্ষার গুণগত মান নির্ভর করে ভালো শিক্ষকের ওপর। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে গবেষণা বাড়াতে হবে। গবেষণায় বিনিয়োগ করছে সরকার। আমি শিক্ষকদের বলবো, গবেষণার কাজে আরও বেশি মনোযোগী হোন।’

BT New Tempতিনি বলেন, ‘পত্রপত্রিকা কিছু র‌্যাংকিংয়ের কথা বলে, বাকিগুলো বলে না। ইতোমধ্যে আমাদের প্রায় ১৫টি বিশ্ববিদ্যালয় বিশ্ব র‌্যাংকিংয়ের বিভিন্ন জায়গায় ভালো অবস্থানে আছে। আমি বিশ্বাস করি, আগামী দিনে আমাদের বাকি বিশ্ববিদ্যালয়গুলো ভালো অবস্থানে পৌঁছবে।’

শিক্ষামন্ত্রী অ্যালামনাইদের উদ্দেশে বলেন, ‘বর্তমান সরকার ২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত ও সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়ার যে স্বপ্ন দেখছে, তা বাস্তবে রূপ দিতে সমাজের সব স্তরের অংশ নেওয়া জরুরি।’ রাজশাহী কলেজের বর্তমান ও সাবেক শিক্ষার্থীদের এই কাজে আত্মনিয়োগ করার আহ্বান জানান মন্ত্রী।

রাজশাহী কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক মুহাম্মদ হবিবুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন– পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মো. শাহরিয়ার আলম, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক, নাটোর-৪ আসনের সংসদ সদস্য আব্দুল কুদ্দুস, রাজশাহী-৩ আসনের সংসদ সদস্য আয়েন উদ্দিন, সংরক্ষিত আসনের সংসদ সদস্য আদিবা আনজুম মিতা।

এর আগে সকালে বর্ণ্যাঢ্য শোভাযাত্রার মধ্যে দিয়ে রাজশাহী কলেজ এইচএসসি অ্যালামনাই শুরু হয়। সকাল ৯টার দিকে কলেজের রবীন্দ্র-নজরুল চত্বর থেকে শোভাযাত্রা বের করা হয়। শোভাযাত্রাটি নগরীর সোনাদীঘি মোড়, জিরোপয়েন্ট, আলুপট্টিসহ বিভিন্ন প্রধান সড়ক হয়ে আবারও রাজশাহী কলেজ মাঠে গিয়ে শেষ হয়।

দুই দিনের অ্যালামনাই অনুষ্ঠানে থাকছে আলোচনা, স্মৃতিচারণ, ছাত্রাবাসের স্মৃতিচারণ, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানসহ বিভিন্ন আয়োজন। কলেজের প্রশাসন ভবনের আদলে তৈরি করা হয়েছে বিশালাকার মঞ্চ। সন্ধ্যার দিকে এই মঞ্চ মাতাবেন ব্যান্ড তারকা জেমস। এছাড়া আসবে ব্যান্ডদল চিরকুট। গাইবেন স্থানীয় শিল্পীরাও।

 

/রাজশাহী প্রতিনিধি/এসএমএ/এমএএ/

লাইভ

টপ