ভোটের দিন সাংবাদিকরা মোটরসাইকেল ব্যবহার করতে পারবেন না, চলবে না ব্যক্তিগত গাড়ি

Send
সাদ্দিফ অভি
প্রকাশিত : ২০:২৭, জানুয়ারি ২২, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ০৭:৫৮, জানুয়ারি ২৩, ২০২০

ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশন নির্বাচন ২০২০

ঢাকার দুই সিটি করপোরেশন নির্বাচনে সাংবাদিকদের মোটরসাইকেল ব্যবহারের জন্য কোনও স্টিকার ইস্যু করা হবে না বলে নির্বাচন কমিশন যে সিদ্ধান্ত নিয়েছে তাতে এখনও পরিবর্তন আসেনি। ঢাকায় দুই সিটি নির্বাচন উপলক্ষে গত ১১ জানুয়ারি নির্বাচন কমিশন সাংবাদিকদের জন্য নির্বাচনের সংবাদ সংগ্রহের নীতিমালা প্রকাশ করে। তাতে এ বিষয়টি উল্লেখ করা হয়।

এ বিষয়ে নির্বাচন কমিশন সচিব মো. আলমগীর জানিয়েছেন, এই বিষয়ে এখন পর্যন্ত কোনও সিদ্ধান্ত হয়নি।

নির্বাচন কমিশনের জনসংযোগ বিভাগ থেকে পাঠানো নীতিমালায় উল্লেখ করা হয়, সুষ্ঠু , অবাধ ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশে নির্বাচন অনুষ্ঠানে গণমাধ্যমের ভূমিকা গুরুত্বপূর্ণ। ভোটগ্রহণের দিনসহ বিভিন্ন সময়ে সাংবাদিকরা যাতে সহজে নির্বাচনি সংবাদ সংগ্রহ করতে পারেন সেজন্য সহযোগিতা প্রদান করার প্রয়োজন রয়েছে, তবে তা অবশ্যই নির্বাচনের সময়, ভোটগ্রহণ ও ভোট গণনার সময় প্রযোজ্য বিধিনিষেধ মেনে করতে হবে। নির্বাচন কমিশনের অনুমোদিত ব্যক্তি ভোটকেন্দ্রে প্রবেশ করতে পারবেন। ভোটকেন্দ্রের সংবাদ সংগ্রহের জন্য সাংবাদিকদের নির্বাচন কমিশন সচিবালয় থেকে সাংবাদিক কার্ড সরবরাহ করা হবে। সাংবাদিক ও পর্যবেক্ষকগণ নির্বাচন কমিশনের অনুমোদিত এবং অনুমোদনসূচক স্টিকার যানবাহনে ব্যবহার করতে পারবেন। তবে মোটরসাইকেল ব্যবহারের জন্য কোনও স্টিকার ইস্যু করা হবে না। 

নির্বাচন কমিশনের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, ৩০ জানুয়ারি দিবাগত মধ্যরাত ১২ টা থেকে ২ ফেব্রুয়ারি  সকাল ৬টা পর্যন্ত মোটরসাইকেল চলাচলের ওপর নিষেধাজ্ঞা বলবৎ থাকবে।

ইসি সূত্রে জানা যায়, বুধবার (২২ জানুয়ারি) বিকেলে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সঙ্গে ইসির সভায় ব্যক্তিগত গাড়ি ব্যবহারের বিষয়টি শিথিল করার বিষয়ে আলোচনা হয়। অনেক ভোটার নিজ এলাকা ছেড়ে অন্য এলাকায় থাকায় তাদের সুবিধার কথা চিন্তা করে ইসির পক্ষ থেকে ব্যক্তিগত গাড়ি চলতে দেওয়ার বিষয়ে পরামর্শ চাওয়া হয়। কিন্তু, ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের পক্ষ থেকে জানানো হয়, এটা করা যাবে না।

পুলিশ জানায়, ঢাকায় ব্যক্তিগত গাড়ির সংখ্যা প্রায় ৩ লাখ। এসব গাড়ি চলাচলের অনুমতি দেওয়া হলে ট্রাফিক পুলিশের পক্ষে দায়িত্ব পালন করা কঠিন হয়ে যাবে। কারণ, তারা নির্বাচনের দায়িত্বে সম্পৃক্ত থাকবেন। এগুলো চলতে দেওয়া হলে যারা নির্বাচনের দায়িত্বে থাকবে তাদের যেমন চলাচলে সমস্যা হবে, বিভিন্ন জায়গা থেকে গাড়ি ব্যবহার করে যারা আসবেন সেখানেও একটা জটিলতা সৃষ্টি হবে। পুলিশের পক্ষ থেকে ব্যক্তিগত গাড়ি চলাচলের অনুমতি না দিতে পরামর্শ দেওয়া হয়।

নির্বাচন কমিশন সেটি মেনে নিয়েছে বলে জানিয়েছেন ইসি সচিব মো. আলমগীর।

সাংবাদিকদের মোটরসাইকেল ব্যবহার নিয়ে আজকের সভায় কোনও আলোচনা হয়নি বলে জানিয়েছেন সচিব। তিনি বলেন, সাংবাদিকদের অবশ্যই স্টিকার দেওয়া হবে তবে মোটরসাইকেলকে দেওয়া হবে না। বিষয়টি আমরা কমিশনকে জানাবো, কমিশন বিবেচনা করে দেখবে।

উল্লেখ্য, বুধবার (২২ জানুয়ারি) ঢাকায় দুই সিটির নির্বাচন নিয়ে আইনশৃঙ্খলা বিষয়ক বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। ৩ ঘণ্টাব্যাপী এ বৈঠকে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর পক্ষ থেকে উপস্থিত ছিলেন পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) ড. জাবেদ পাটোয়ারী, র‌্যাবের মহাপরিচালক বেনজীর আহমেদ, ডিএমপি কমিশনার মোহাম্মদ শফিকুল ইসলাম, আনসারের মহাপরিচালক মেজর জেনারেল শরীফ কায়কোবাদসহ বিভিন্ন গোয়েন্দা সংস্থার প্রতিনিধিরা।

এছাড়াও ঢাকা অঞ্চলের আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা, ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটির রিটার্নিং কর্মকর্তা, সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তা উপস্থিত ছিলেন।

 

/টিএন/এমওএফ/

লাইভ

টপ