উহান ফেরত শিক্ষার্থীরা নজরদারিতেই থাকবেন: আইইডিসিআর

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ১৯:৫৩, ফেব্রুয়ারি ১৬, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ২০:৪৫, ফেব্রুয়ারি ১৬, ২০২০

সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য রাখছেন ডা. মীরাজাদী সেব্রিনা ফ্লোরাচীনের উহান থেকে আসা যেসব শিক্ষার্থী গত ১ থেকে ১৫ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত আশকোনা হজ ক্যাম্পে অস্থায়ী কোয়ারেনটাইনে ছিলেন, তারা প্রত্যেকে সুস্থ আছেন। শনিবার (১৫ ফেব্রুয়ারি) তারা বাড়ি ফিরে গেছেন। তবে তাদের সবাই আইইডিসিআরের নজরদারিতেই থাকবেন বলে জানিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি।

রবিবার (১৬ ফেব্রুয়ারি) জাতীয় রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠান ‘কোভিড-১৯’ নিয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এ কথা জানান প্রতিষ্ঠানটির পরিচালক অধ্যাপক ডা. মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা। এ সময় সেখানে উপস্থিত ছিলেন প্রতিষ্ঠানটির প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ডা. এএসএম আলমগীর।

অধ্যাপক ডা. সেব্রিনা ফ্লোরা বলেন, ‘‘উহান থেকে ফেরত আসা ব্যক্তিরা কোয়ারেন্টাইনে ছিলেন। বাড়ি যাওয়ার সময় তাদের কোয়ারেন্টাইন পরবর্তী কিছু পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। তবে শনিবার যারা বাড়ি গিয়েছেন, তাদের আমরা ‘কন্ডিশনাল রিলিজ’ হিসেবে ছেড়েছি। মানে তারা সবাই আমাদের যোগাযোগের মধ্যে থাকবেন এবং আমাদের পরামর্শ অনুযায়ী তারা কাজ করবেন। যদি কারও কোনও উপসর্গ দেখা যায়, তারা আমাদের সঙ্গে যোগাযোগ করবেন।’

ডা. ফ্লোরা বলেন, ‘অতিরিক্ত সতর্কতা হিসেবে তাদের আমরা নজরদারির মধ্যে রাখতে চাই।’ আমরা কোনও শঙ্কায় নেই মন্তব্য করে তিনি বলেন, ‘অতিরিক্ত সতর্কতা হিসেবে তাদের পরবর্তী করণীয় সম্পর্কে মতামত দিয়েছি। জনসমাগম এড়িয়ে চলা, আর বাইরে গেলে মাস্ক পরে যাওয়ার জন্য তাদের অনুরোধ করা হয়েছে।’

সিঙ্গাপুরে আরও একজন নতুন বাংলাদেশি রোগী শনাক্ত হয়েছে জানিয়ে অধ্যাপক সেব্রিনা ফ্লোরা বলেন, ‘মোট পাঁচ বাংলাদেশির মধ্যে একজন আইসিইউতে (নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্র) আছেন। বাকি চার জন আইসোলেশন ইউনিটে মোটামুটি স্টেবল অবস্থায় আছেন। সিঙ্গাপুরে মোট কনফার্ম রোগীর সংখ্যা ৭২ জন। তবে টেস্ট করে নেগেটিভ পাওয়া গেছে ১২ জনকে। কেস পেন্ডিং আছে ১০৭ জনের। আর সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ১৮ জন।’

তিনি বলেন, ‘দেশে এ পর্যন্ত নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষা করা হয়েছে ৬৫ জনকে। গত ২৪ ঘণ্টায় পরীক্ষা হয়েছে তিনটি। তবে মোট ৬৫ পরীক্ষার মধ্যে কোনোটিতেই কোভিড-১৯-এর উপস্থিতি পাওয়া যায়নি। তাই এখনও বলতে পারি, বাংলাদেশে এখন পর্যন্ত কোনও কোভিড-১৯-এর রোগী শনাক্ত হয়নি।’

চীন থেকে আরও ১৭১ জনকে ফিরিয়ে আনার কথা বলেছে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়, আপনারা প্রস্তুত কিনা জানতে চাইলে ডা. ফ্লোরা বলেন, ‘এই যোগাযোগগুলো পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ই করেছে। যখন তারা বলবে যে, তারা (উহান প্রবাসী) ফিরছেন, তখন আমরা কোয়ারেন্টাইনের ব্যবস্থা করবো। প্রস্তুতি নেওয়ার বিষয়টি আমাদের মাথায় আছে।’

একইসঙ্গে তিনি বলেন, ‘চীন থেকে এলেই তারা কেউ কোভিড-১৯ আক্রান্ত নন। একইসঙ্গে চীনের বিশেষ এলাকা থেকে এলে, লক্ষণ বা উপসর্গ না থাকলে, তাকে আইসোলেশন করার যেমন প্রয়োজন নেই, তেমনই প্রত্যেককে কোয়ারেন্টাইন করতে হবে— তারও প্রয়োজন নেই। তারপরও অতিরিক্ত সতর্কতার অংশ হিসেবে অত্যাবশ্যকীয় না হলে, তাদের বাড়ির বাইরে বের না হওয়ার জন্য আমরা অনুরোধ করছি। তারপরও বলতে চাই, যেকোনও ক্ষেত্রে নিজেরা সিদ্ধান্ত না নিয়ে আইইডিসিআরের হট লাইন নাম্বারে (০১৯২৭৭১১৭৮৪, ০১৯২৭৭১১৭৮৫, ০১৯৩৭০০০০১১, ০১৯৩৭১১০০১১) যোগাযোগ করতে হবে।’

/জেএ/এপিএইচ/এমওএফ/

লাইভ

টপ