অসহায় আইনজীবীদের জন্য প্রণোদনা চেয়ে প্রধানমন্ত্রীর কাছে আবেদন

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ১৪:২৮, এপ্রিল ০৪, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ১৪:৩০, এপ্রিল ০৪, ২০২০

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা



মহামারি করোনা সংক্রমণের প্রভাবে দেশের আদালতসমূহ বন্ধ থাকায় জুনিয়র আইনজীবীদের সহায়তার জন্য ৩০০ কোটি টাকা প্রণোদনা চেয়ে প্রধানমন্ত্রীর শেখ হাসিনার কাছে একটি আবেদন জানানো হয়েছে।

শনিবার (৪ এপ্রিল) হিউম্যান রাইটস অ্যান্ড পিস ফর বাংলাদেশের সভাপতি ও সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী মনজিল মোরসেদ ওই আবেদন পাঠানোর বিষয়টি নিশ্চিত করেন।
মনজিল মোরসেদ বলেন,  করোনার কারণে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ব্যবহার করে ৩ এপ্রিল প্রধানমন্ত্রীর সহকারী ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়ার কাছে একটি আবেদন পাঠানো হয়েছে।

আবেদনে বলা হয়েছে, আইন পেশায় ৫৫ হাজারের বেশি মানুষ কাজ করেন। তার মধ্যে একটি অংশ জুনিয়র হিসেবে কাজ করছে। সাধারণত সিনিয়রদের প্রতিদিনের দেওয়া অর্থই তাদের একমাত্র অবলম্বন। আদালত বন্ধ থাকায় তারা সে সুবিধা থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন। এছাড়া জুনিয়রশিপ শেষ করে যারা নিজস্বভাবে প্রাকটিস শুরু করেছেন, তাদেরকেও প্রথম কয়েক বছর সামান্য আয় দিয়ে চলতে হয়। দীর্ঘ দিন কোর্ট বন্ধ থাকায় তারাও আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছেন।

তিনি বলেন, ‘করোনার কারণে দেশের সব মানুষকে নিজ নিজ বাসায় অবস্থান করতে সরকারের পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে এবং এ আদেশ কার্যকর করতে অফিস-আদালত ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে। এ ছুটিতে দিন মজুর, রিকশাওয়ালা ও দৈনিক আয়ের লোকদের সংকটের কথা বিবেচনা করে সরকারি অর্থ বা খাদ্য সরবরাহ করা হয়েছে। এমনকি ব্যবসা বাণিজ্যের মন্দা বিবেচনা করে ব্যবসায়িদের আর্থিক প্রণোদনা ঘোষণা করা হয়েছে।’

এ অবস্থায় বাংলাদেশের হাজার হাজার আইনজীবীদের জন্য অন্যান্য পেশার মতো সরকারের পক্ষ থেকে আর্থিক সহযোগিতার জন্য ৩০০ কোটি টাকা প্রনোদনা তহবিল গঠন করার আহ্বান জানাচ্ছি। এ অর্থ থেকে প্রত্যেক জুনিয়র বা ক্ষতিগ্রস্থ আইনজীবীদের এক লাখ টাকা বিনা সুদে প্রদান এবং ২০২১ সালে ৪ কিস্তিতে পরিশোধের ব্যবস্থা করার অনুরোধ করছি।

প্রসঙ্গত, এর আগে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের ঘোষিত ছুটির ধারাবাহিকতায় গত ২৯ মার্চ থেকে ২ এপ্রিল পর্যন্ত সুপ্রিম কোর্টের উভয় বিভাগ ও সব অধর্স্তন আদালতসমূহে সাধারণ ছুটি ঘোষণা করা হয়। এরপর এই ছুটি পুনরায় ৯ এপ্রিল পর্যন্ত বর্ধিত করা হয়েছে।


/বিআই/এসটি/

লাইভ

টপ