যেখানে কেউ মানছে না স্বাস্থ্যবিধি

Send
শাহেদ শফিক
প্রকাশিত : ২৩:৫৪, মে ২৬, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ১২:০৮, মে ২৭, ২০২০

 

চারদিকে করোনাভাইরাসের থাবা। ঘর বন্দি মানুষ। উন্মুক্ত আলোবাতাসে কোথাও নেই মুক্ত চলাফেরা। এভাবেই চলছে জীবন। কিন্তু একশ্রেণির বিনোদনপ্রেমী নাগরিকদের কি থামানো যায়! লকডাউনের শিথিলতার একটু সুযোগ পেয়েই বেরিয়ে পড়েছেন অনেকেই। এরা কেউই সামাজিক দূরত্ব বা স্বাস্থ্যবিধির তোয়াক্কা করছেন না। এমন চিত্র দেখা গেছে, রাজধানী ঢাকার অদূরে মীরপুর বেড়িবাঁধ সংলগ্ন বিরুলিয়া ব্রিজ এলাকায়।

যেখানে স্বাস্থ্যবিধি মানতে সরকারের পক্ষ থেকে বারবার অনুরোধ করা হচ্ছে, আবার কখনও কখনও বাধ্য করা হচ্ছে, সেখানে ঢাকার লাগোয়া বিরুলিয়া ব্রিজে ঘুরতে আসা কাউকেই স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করতে দেখা যাচ্ছে না। করোনা মহামারির মাঝেও এখানে ঘুরতে আসেন মানুষ। স্বাস্থ্যবিধি মানার অন্যতম বা প্রাথমিক উপাদান মাস্কও পরতে দেখা যায়নি বেশিরভাগ দর্শনার্থীদের। কারও কারও থাকলেও তা হাতে কিংবা গলায় ঝোলানো দেখা গেছে। আবার কেউ কেউ জানিয়েছেন, মাস্ক বাসায় রেখে এসেছেন। অথচ সামাজিক দূরত্ব না মেনে কাছাকাছি দাঁড়িয়ে প্রাকৃতিক সৌন্দর্য উপভোগ করছেন সবাই।

মঙ্গলবার (২৬ মে) বিকালে ব্রিজ এলাকায় সরেজমিনে দেখা গেছে, মানুষের ভিড়, সামাজিক দূরত্ব মানার বালাই নেই। এখানে আগত  নারী-পুরুষরা নিজেদের ইচ্ছে মতো চলাফেরা করছেন। উন্মুক্ত ও খোলা বাতাস উপভোগ করতে পরিবার-পরিজন নিয়ে এসেছেন অনেকেই। কেউ কেউ এসেছেন ব্যক্তিগত গাড়ি বা মোটরসাইকেল নিয়ে। যারা একটু দূরত্ব বজায় রাখার চেষ্টা করছেন, তরুণ-তরুণীদের ভিড়ের কারণে তারাও পেরে উঠছেন না। কেউ কেউ আবার বিরক্তি প্রকাশ করছেন।

ঘুরতে আসা মানুষেরা জানান, নগরীতে উন্মুক্ত স্থানের খুবই অভাব। করোনাভাইরাসের কারণে ঝুঁকিও আছে। তাই অনেকটাই উন্মুক্ত স্থান এই বিরুলিয়া ব্রিজে ঘুরতে এসেছেন তারা। তারা জানান, নদীর ওপর দিয়ে বয়ে আসা এমন বিশুদ্ধ বাতাস উপভোগের সুযোগ নগরীর আশপাশে আর কোথাও নেই। যদিও তারা সামাজিক দূরত্ব বা স্বাস্থ্যবিধি মানছেন না কেউই।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে মীরপুর এক নম্বর থেকে আসা রায়হান বলেন, ‘এখানে অনেক খোলা জায়গা। তেমন কোনও সমস্যা হবে না। আর  ঈদের সময় বন্ধুরা মিলে বের হয়েছি। এত দিনতো ঘরেই বসে থাকলাম।’

মোটরসাইকেল নিয়ে ঘুরতে এসেছেন এক দম্পতি। মানুষের ভিড় দেখে বিরক্তি প্রকাশ করে বলেন, এখানে এত মানুষ,  এরা বের হইছে ক্যান? আপনারা কেন বের হয়েছেন, পাল্টা প্রশ্ন করা হলে তারা বলেন, এখানে এত মানুষ হবে বুঝি নাই। ভাবলাম একটু বেড়িবাঁধ থেকে ঘুরে আসি।

ব্রিজে দাঁড়ালেই দেখা যায় চোখ জুড়ানো নদী। মেঘলা আকাশ। ব্রিজের ওপর দিয়ে বয়ে যায় হিমেল বাতাস। আর এ জন্যই করোনার বিধিনিষেধ উপেক্ষা করে ঈদের আনন্দ উপভোগ করতে এই জায়গাটিকে বেছে নিয়েছেন আশপাশের বিনোদনপ্রেমীরা। তবে যারা একটু দূরত্ব বজায় রেখে সৌন্দর্য উপভোগ করছেন, তাদের দু-একজন  বলেছেন, স্বাস্থ্যবিধির বিষয়ে যদি কঠোরতা অনুসরণ না করা হয়, তাহলে করোনা পরিস্থিতি আরও  ভয়াবহ হতে পারে।

মুখে মাস্ক ও হ্যান্ড গ্ল্যাভস পরে ঘুরতে আসা নাছিমা আক্তার নামে এক দর্শনার্থী বলেন, ‘নদীর ওপরে ব্রিজ হওয়ায় এখানকার দৃশ্য অপরূপ লাগে। তাই প্রায় সময় এখানে ঘুরতে আসি। অনেক ভালো লাগে। কিন্তু করোনা পরিস্থিতির কারণে গত কয়েকদিন আসিনি। ঈদ উপলক্ষে একটু বের হয়েছি। কিন্তু মানুষের মাঝে সচেতনতা না দেখে হতাশ হয়েছি।’

ছবি: উদিসা ইসলাম

 

/এপিএইচ/

লাইভ

টপ