মাথাপিছু ৭ হাজার ডলার মুক্তিপণের জন্য ৩৮ বাংলাদেশিকে জিম্মি করা হয়

Send
সাদ্দিফ অভি
প্রকাশিত : ১৬:৩১, মে ২৯, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ১৭:২২, মে ২৯, ২০২০

লিবিয়ার জাওইয়া শহরের একটি ডিটেনশন সেন্টারে অভিবাসী বাংলাদেশিরা (ছবি: রয়টার্স)

লিবিয়া থেকে বের হয়ে ভূমধ্যসাগর পাড়ি দিয়ে ইতালি প্রবেশ করাই লক্ষ্য ছিল ৩৮ বাংলাদেশির। এজন্য বেনগাজীর আবদুল্লাহ নামের একজন বাংলাদেশি নাগরিক তাদের ত্রিপলির উদ্দেশ্যে রওনা করিয়ে দেন। কিন্তু চারটি গাড়িতে করে ত্রিপলি যাওয়ার পথে অপহরণকারীদের কাছে মিজদা শহরে জিম্মি হয়ে পড়ে দলটি। সেখানে মাথাপিছু ৭ হাজার ডলার মুক্তিপণের দাবিতে শারীরিক নির্যাতন করা হয় তাদের ওপর। এক পর্যায়ে নির্যাতন সহ্য করতে না পেরে নির্যাতনকারীর ওপর চড়াও হয় জিম্মিরা, ফলে সেখানেই মৃত্যু হয় জিম্মিকারীর। এই মৃত্যুর খবর পেয়ে প্রতিশোধ নিতে আসে নিহতের পরিচিতরা। তাদের এলোপাতাড়ি গুলিতে ঘটনাস্থলেই প্রাণ হারায় ২৬ বাংলাদেশি। আহত হন আরও ১১ জন। ঘটনাস্থল থেকে জীবন বাঁচিয়ে পালানো অবশিষ্ট একজন বাংলাদেশির কাছ থেকে এসব তথ্য জানা যায়।

লিবিয়ায় কয়েকজন বাংলাদেশির সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, ঘটনার পর মিজদা শহরের ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে একটি বাড়িতে আশ্রয় নেন ওই ব্যক্তি। এরপর তিনি বেনগাজীর বাংলাদেশ কমিউনিটির নেতাদের সঙ্গে যোগাযোগ করেন। ঘটনার বর্ণনায় তিনি বলেন, '৩৮ জন বাংলাদেশি বেনগাজী থেকে ত্রিপলিতে যাওয়ার সময় মিজদা শহরে অপহরণকারীদের কাছে জিম্মি হন। জিম্মিকারীরা তাদের কাছে মাথাপিছু ৭ হাজার ডলার করে মুক্তিপণ দাবি করে। টাকার জন্য অনেক মারধর করে। অত্যাচার সহ্য না করতে না পেরে বাংলাদেশিরা জিম্মিকারীদের ঘিরে ধরে এবং একজনকে মেরে ফেলে।'

পালিয়ে বেঁচে যাওয়া ওই ব্যক্তি আরও জানান, মৃত্যুর খবর পেয়ে মৃতব্যক্তির পরিচিতরা এসে আটক জিম্মিদের দিকে এলোপাতাড়ি গুলি চালালে ঘটনাস্থলেই ২৬ জন বাংলাদেশি ও ৪ আফ্রিকার নাগরিক নিহত হন।

বর্তমানে ওই ব্যক্তি মানসিকভাবে বিপর্যস্ত বলে বাংলা ট্রিবিউনকে জানিয়েছেন বেনগাজীর বাংলাদেশ কমিউনিটির সাধারণ সম্পাদক ওমর ফারুক।

ওমর ফারুক বলেন, 'তিনি এতগুলো মৃত্যু দেখে মানসিকভাবে বিপর্যস্ত, এখন ঠিকমতো কথাও বলতে পারছেন না। তাকে উদ্ধারের জন্য আমরা এবং দূতাবাস চেষ্টা করছি। কিন্তু মরুভূমি এলাকা এবং যুদ্ধাবস্থা চলায় উদ্ধার করা কঠিন হয়ে দাঁড়িয়েছে। মিলিশিয়া গ্রুপের কারণে তার এলাকায় পৌঁছানো খুব কষ্টসাধ্য হয়ে দাঁড়িয়েছে। তবে আজকেই তাকে উদ্ধার করে নিয়ে আসা যাবে বলে আশা করছি। যারা মৃত, তাদের লাশ মর্গে আছে এবং ময়নাতদন্ত হয়েছে, তাদের পরিচয় শনাক্তের চেষ্টা চলছে।'

তিনি আরও বলেন, '১১ জন আহত অবস্থায় পাশের শহর জিনিতানে চিকিৎসাধীন আছেন। পাচারকারী দল জীবিত বাংলাদেশিদের অবস্থান জেনে যাওয়ায় ওই অঞ্চলে থমথমে পরিবেশ বিরাজ করছে এবং আশ্রয়দাতাসহ অনেকেই হুমকির মুখে থাকাতে উদ্ধার কাজে কিছুটা বেগ পেতে হচ্ছে।'

আরও খবর: 

বেনগাজী থেকে ত্রিপলি যাওয়ার পথে জিম্মি করা হয়েছিল হতভাগ্য বাংলাদেশিদের

লিবিয়ায় মানব পাচারকারীদের হাতে ২৬ বাংলাদেশি নিহত

লিবিয়ায় আহত ১১ জনের মধ্যে ৬ জন সম্পূর্ণ সুস্থ

 

/এসও/এএইচ/

লাইভ

টপ