৯১ স্থাপনায় মিললো এডিসের লার্ভা, দেড় লাখ টাকা জরিমানা

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ১৭:০৮, জুলাই ০৪, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ১৭:১০, জুলাই ০৪, ২০২০

এডিস মশা নিয়ন্ত্রণের মাধ্যমে নগরবাসীকে ডেঙ্গু থেকে সুরক্ষা দিতে বছরব্যাপী মশকনিধন কার্যক্রমের পরিকল্পনা গ্রহণ করেছে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন। তারই অংশ হিসাবে সংস্থার মেয়র মো. আতিকুল ইসলামের নির্দেশনায় কয়েকটি পর্যায় বিশেষ পরিচ্ছন্নতা অভিযানের (চিরুনি অভিযান) পরিচালনার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। গত ৬ থেকে ১৫ জুন প্রথম পর্যায়ের সফল চিরুনি অভিযান শেষে শনিবার (৪ জুলাই) থেকে দ্বিতীয় পর্যায়ে ১০ দিনব্যাপী চিরুনি অভিযান শুরু হয়েছে।
শনিবার ১০ দিনব্যাপী দ্বিতীয় পর্যায়ের বিশেষ পরিচ্ছন্নতা অভিযানের প্রথম দিনে ডিএনসিসি’র ৫৪টি ওয়ার্ডে একযোগে বিশেষ এই পরিচ্ছন্নতা অভিযান পরিচালিত হয়। এতে ১২ হাজার ৬১৯টি বাড়ি ও স্থাপনা পরিদর্শন করে ৯১টিতে এডিস মশার লার্ভা পাওয়া গেছে। এছাড়া ৮ হাজার ৭৬৪ টি বাড়ি-স্থাপনায় এডিস মশা বংশবিস্তার উপযোগী পরিবেশ পাওয়া যায়। এসময় ১২টি মামলায় ১ লাখ ৫৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। অন্যান্য বাড়ি ও স্থাপনার মালিককে সতর্ক করা হয়েছে। ডিএনসিসির জনসংযোগ দফতর থেকে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।
দ্বিতীয় ধাপে অভিযান পরিচালনার সময় এবারও প্রতিটি ওয়ার্ডকে ১০টি সেক্টরে ভাগ করে প্রতিটি সেক্টরকে ১০টি সাব-সেক্টরে ভাগ করা হয়েছে। প্রতিদিন প্রতিটি ওয়ার্ডের ১টি সেক্টরে ১০টি সাব-সেক্টরে চিরুনি অভিযান পরিচালনা করা হবে। চিরুনি অভিযানে স্বাস্থ্য অধিদফতর থেকে ৬ জন চিকিৎসক, ৯ জন কীটতত্ত্ববিদ, ডিএনসিসির ৩ জন কীটতত্ত্ববিদ এবং ডিএনসিসির স্বাস্থ্য বিভাগ ও বর্জ্য ব্যবস্থাপনা বিভাগের কর্মকর্তারা প্রত্যক্ষভাবে কাজ করছেন।
প্রথম পর্যায়ের ১০ দিনব্যাপী (৬-১৫ জুন) চিরুনি অভিযানে ডিএনসিসির ৫৪টি ওয়ার্ডে ১ লাখ ৩৪ হাজার ১৩৫টি বাড়ি, স্থাপনা, নির্মাণাধীন ভবন পরিদর্শন করে ১ হাজার ৬০১টিতে এডিস মশার লার্ভা এবং ৮৯ হাজার ৬২৬ টি বাড়ি-স্থাপনায় এডিস মশা বংশবিস্তার উপযোগী পরিবেশ পাওয়া যায়। এসময়ে ২১ লাখ ৮৫ হাজার ৫০০ টাকা জরিমানা আদায় করা হয়।

/এসএস/এমআর/

লাইভ

টপ