বিমান বাহিনীর কেনা পরিবহন বিমানটি ঢাকায় এসেছে

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ২০:৩৯, সেপ্টেম্বর ১৭, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ২৩:২৫, সেপ্টেম্বর ১৭, ২০২০

যুক্তরাজ্য থেকে কেনা পাঁচটি বিমানের মধ্যে তৃতীয় সি-১৩০জে বিমানটি ঢাকায় এসেছে। যুক্তরাজ্য থেকে বাংলাদেশ বিমান বাহিনীর নিজস্ব বৈমানিক সফল ফেরি ফ্লাইটের মাধ্যমে বৃহস্পতিবার (১৭ সেপ্টেম্বর) বাংলাদেশ বিমান বাহিনী ঘাঁটি বঙ্গবন্ধুতে অবতরণ করেছে। এই মিশনের নেতৃত্বে ছিলেন বিমান বাহিনীর গ্রুপ ক্যাপ্টেন মো. আহসানুর রহমান। যাত্রাপথে বিমানটি কায়রো (মিসর) এবং মাসকাটে (ওমান) অবতরণ করে।

আন্তবাহিনী জনসংযোগ পরিদফতর (আইএসপিআর) জানায়, বর্তমান সরকার বাংলাদেশ বিমান বাহিনীর আধুনিকায়নে অত্যন্ত সচেষ্ট। তারই ধারাবাহিকতায় যুক্তরাষ্ট্রের তৈরি অত্যাধুনিক ৫টি সি-১৩০জে পরিবহন বিমান যুক্তরাজ্যের রয়েল এয়ারফোর্সের সঙ্গে ক্রয় চুক্তি এবং মার্শাল অ্যারোস্পেস অ্যান্ড ডিফেন্স গ্রুপের সঙ্গে রক্ষণাবেক্ষণ চুক্তির মাধ্যমে বিমান বাহিনীতে সংযোজনের কার্যক্রম চলমান রয়েছে।

বিমান বাহিনী ঘাঁটি বঙ্গবন্ধুতে ঐতিহ্যগত রীতি মোতাবেক বিমানটিকে অভ্যর্থনা জানানো হয়। এ সময় বাংলাদেশ বিমান বাহিনী প্রধান এয়ার চিফ মার্শাল মাসিহুজ্জামান সেরনিয়াবাত এবং বাংলাদেশে নিযুক্ত যুক্তরাজ্যের হাইকমিশনার রবার্ট চ্যাটারসন ডিকসন এবং বিমান সদরের প্রিন্সিপাল স্টাফ অফিসার, বিমান বাহিনী ঘাঁটি বঙ্গবন্ধু ও বাশার-এর এয়ার অধিনায়ক এবং উচ্চপদস্থ সামরিক কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। সবশেষে উপস্থিত সাংবাদিকদের এ বিষয়ে ব্রিফ করেন সহকারী বিমান বাহিনী প্রধান (পরিচালন) এয়ার ভাইস মার্শাল এম আবুল বাশার।

উল্লেখ্য, সি-১৩০জে পরিবহন বিমান অত্যাধুনিক এভিওনিক্স ও উন্নত প্রযুক্তি সম্পন্ন পরিবহন বিমান যা মালামাল ও সৈন্য পরিবহনসহ দেশে এবং বিদেশে মানবিক সহায়তা কার্যক্রম এবং জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশনে ব্যবহৃত হবে।

ক্রয়কৃত অবশিষ্ট বিমানগুলো পর্যায়ক্রমে যুক্তরাজ্য থেকে নিয়ে আসার পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়েছে। বাংলাদেশ বিমান বাহিনীতে অত্যাধুনিক এই সি-১৩০জে বিমানের অন্তর্ভুক্তি, বিমান বাহিনীর পরিবহন ক্ষমতা সর্বোপরি বাহিনীর সক্ষমতাকে অনেক বাড়িয়ে দেবে।

/জেইউ/এএইচ/এমওএফ/

লাইভ

টপ
X