‘জেন্ডার মেইনস্ট্রিমিং’ এ অবদান রাখতে নারী পুলিশের প্রতি আইজিপি’র নির্দেশ

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ২২:৩৬, সেপ্টেম্বর ২১, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ২২:৩৯, সেপ্টেম্বর ২১, ২০২০

আইজিপি বেনজীর আহমেদ

পেশাগত উৎকর্ষ অর্জনের মাধ্যমে সেবার মান বাড়ানোর লক্ষ্যে ভূমিকা রাখতে পুলিশের নারী সদস্যদের নির্দেশ দিয়েছেন আইজিপি ড. বেনজীর আহমেদ। একইসঙ্গে নারীর অধিকারকে সমুন্নত রাখতে সমাজে জেন্ডার মেইনস্ট্রিমিং বাস্তবায়নে অবদান রাখতেও তাদের প্রতি আহ্বান জানান তিনি। সোমবার (২১ সেপ্টেম্বর) বিকালে পুলিশ সদর দফতরের সম্মেলন কক্ষ শাপলায় বাংলাদেশ পুলিশ উইমেন নেটওয়ার্কের (বিপিডব্লিউএন) কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্যদের সঙ্গে এক মতবিনিময় সভায় এ নির্দেশ দেন।

ঢাকার বাইরে কর্মরত কর্মকর্তারাও  অনলাইনে এ সভায় অংশগ্রহণ  ক‌রে‌ন । বিপিডব্লিউএনের সভাপতি ও চট্টগ্রাম মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার আমেনা বেগমসহ অন্যান্য কর্মকর্তারা এ সময় আইজিপি’র কছে  পেশাগত নানা বিষয়ে তাদের মতামত তুলে ধরেন বলে জানিয়েছেন পুলিশ সদর দফতরের জনসংযোগ বিভাগের এআইজি মো. সোহেল রানা।

সভায় আইজিপি বেনজীর আহমেদ বলেন,‘দেশ ও মানুষের জন্য এই লক্ষ্য অর্জনে পুলিশে কর্মরত সব নারী সদস্যদের জন্য বন্ধুসুলভ ও নারীবান্ধব উপযুক্ত কর্মপরিবেশ তৈরিতে ভূমিকা রাখতে হবে।’ তিনি বলেন, ‘ব্যক্তি স্বার্থের ঊর্ধ্বে উঠে  আমাদের সবাইকে দেশ ও মানুষকে নিয়ে ভাবতে হবে।’ দেশ ও মানুষের স্বার্থে বাংলাদেশ পুলিশের পুরুষ সদস্যদের সঙ্গে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে নারী সদস্যরা যেভাবে কাজ করে যাচ্ছেন, তা আরও শক্তিশালী হবে বলে আশা ব্যক্ত করেন আইজিপি।

আইজিপি আরও বলেন, ‘দেশের বিভিন্ন এলাকায় কাজের জন্য প্রস্তুত থাকতে হবে নারী কর্মকর্তাদেরকে। রাজধানীর বাইরে ও প্রত্যন্ত এলাকায় নারী কর্মকর্তাদের পাশে পেলে সংশ্লিষ্ট এলাকার নারী পুলিশ সদস্য ও এলাকার নারীরা পুলিশের ওপর অধিক আস্থা রাখতে পারবেন। একজন নারী পুলিশ কর্মকর্তা বা নারী পুলিশ সদস্যের কাছে অনায়াসেই  সমস্যার কথা খুলে বলতে পারেন নারীরা। তাই, নারী পুলিশ সদস্যদেরকে মাঠ পর্যায়ে দেশের সব এলাকায় কাজ করতে হবে।’

বাংলাদেশের নারী ও শিশুদেরকে আইন ও অপরাধ বিষয়ে অধিকতর সচেতন করতে স্কুল, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়সহ সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে গিয়ে প্রত্যক্ষভাবে সচেতনতামূলক কর্মসূচি পরিচালনা করার আহ্বান জানান তিনি।’ সাইবার বুলিয়িংয়ের শিকার নারী ও শিশুদের পাশে থেকে তাদেরকে উপযুক্ত পুলিশিং ও আইনি সাপোর্ট দেওয়ারও নির্দেশ দেন আইজিপি।

আইজিপি বলেন, ‘শান্তিরক্ষা মিশনে অত্যন্ত গৌরবময় অর্জন রয়েছে বাংলাদেশের নারী পুলিশ সদস্যদেরও।’ ভবিষ্যতে শান্তিরক্ষা মিশনে অধিকহারে অংশগ্রহণের মাধ্যমে দেশের জন্য আরও সুনাম ও সুখ্যাতি বয়ে আনতে তাদের প্রতি আহ্বান জানান।  করোনাকালে অনলাইনে আন্তর্জাতিক সম্মেলন আয়োজন করে বিভিন্ন দেশের নারী পুলিশ কর্মকর্তাদের মধ্যে বেস্ট প্রাকটিসেস শেয়ার ও মতবিনিময়ের মাধ্যমে আন্তর্জাতিক পরিমণ্ডলে দেশের গৌরব উজ্জ্বলতর করার উদ্যোগ নেওয়ার পরামর্শ দেন তিনি।

উল্লেখ্য, বাংলাদেশ পুলিশ উইমেন নেটওয়ার্ক (বিপিডব্লিউএন) হলো বাংলাদেশ পুলিশের সব স্তরের নারী পুলিশ সদস্যদের একটি সংগঠন।

 

/জেইউ/এপিএইচ/

লাইভ

টপ