শিশুদের চোখে বিশ্ব দেখার প্লাটফর্ম ‘শিশুরাই সব’

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ০১:১৮, সেপ্টেম্বর ২৭, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ০১:২৭, সেপ্টেম্বর ২৭, ২০২০

শিশুরাই সবশিশুদের জন্য নিরাপদ সমাজ গড়তে সচেতনতা এবং দক্ষতা বাড়ানোর লক্ষ্য নিয়ে কাজ করছে বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি সংস্থা, সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠান, সংবাদকর্মী, লেখক, শিল্পীসহ বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ। সবার কর্মপ্রয়াস ফুটিয়ে তুলতে এবার আত্মপ্রকাশ করেছে ওয়েবসাইট ‘শিশুরাই সব’ ডটকম। শনিবার (২৬ সেপ্টেম্বর) বিকালে রাজধানীর আসাদ অ্যাভিনিউয়ের সিবিসিবি গেস্ট হাউজে আয়োজিত মতবিনিময় সভায় ওয়েবসাইটটির উদ্বোধন করা হয়। অনুষ্ঠানটির আয়োজন করে ‘শিশুরাই সব’ নামক একটি বেসরকারি সংস্থা।

অনুষ্ঠানে শিশুর অধিকার ও পরিপূর্ণ বিকাশ নিশ্চিত করতে শিশুদের জন্য সংবেদনশীল পরিবেশ গড়ে তোলার লক্ষ্যে অভিভাবক, সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা, সংবাদকর্মী, শিশুতোষ লেখক ও শিল্পীরা তাদের নিজ নিজ মতামত তুলে ধরেন।

উপস্থিত অতিথিরা তাদের মতামত তুলে ধরে বলেন, মায়েদের সুবিধা না দিলে বা মায়েদের পুষ্টি নিশ্চিত করা না গেলে শিশুরা সেসব সুবিধা থেকে বঞ্চিত হবে। শিশু সংবেদনশীল সমাজে মা ও শিশু উভয়কেই নিয়ে ভাবতে হবে। সে কারণেই শিশুদের জন্য সংবেদনশীল পরিবেশ নিশ্চিত করতে হলে সবার আগে মায়েদের জন্য সংবেদনশীল মানসিকতা গড়ে তোলার পদক্ষেপ গ্রহণ করতে হবে।

ওয়েবসাইটটির উদ্বোধনের পর আলোচকরা তাদের পরামর্শমূলক মতামত তুলে ধরে বলেন, শিশুরাইসব ডটকম ওয়েবসাইটে প্রাথমিকভাবে কিছু কনটেন্ট রাখা হয়েছে। কিন্তু বিভিন্ন বয়সের এবং বিভিন্ন ধরনের শিশুরা যেন তাদের অঙ্কন, আবৃত্তি, ভিডিও ধারণ করে ওয়াবসাইটটিতে পাঠাতে পারে এবং জমা রাখতে পারে, সে বিষয়ে নজর দেওয়া প্রয়োজন। এখানে শিশুদের জন্য রিসোর্সমূলক তথ্য, জেলখানায় থাকা শিশুদের অধিকারের সমান সুযোগ নিশ্চিত করা প্রয়োজন।

সংস্থাটির আহবায়ক লায়লা খন্দকার তার বক্তব্যে বলেন, আমাদের সমাজের সব শিশুরাই কোনও না কোনও দিক থেকে ভেদাভেদের মধ্য দিয়ে বেড়ে ওঠে। সেসব বিবেচনায় নিয়েই আমাদের এই ওয়েবসাইটের আত্মপ্রকাশ। ওয়েবসাইটটি নিয়ে এখনও বেশ কিছু কাজ চলমান রয়েছে, যা আমাদের অভিভাবকদের শিশু উপযোগী মনোভাব প্রকাশে সহযোগিতা করবে। ওয়েবসাইটে বিভিন্ন বয়স ও ধরনের শিশুদের ছবি অঙ্কন, ভিডিও ধারণ, আবৃত্তিসহ সব ধরণের সুবিধা প্রদানের চিন্তা রয়েছে। আমাদের শিশুদের চোখে দেখার মানসিকতাকে গড়ে তুলতে হবে। যিনি সরকারে আছেন কিংবা চলচ্চিত্র বানাচ্ছেন বা লিখছেন এমন সবাইকেই শিশুদের কথা মাথায় নিয়ে শিশুর চোখে দেখার মতো করে সবকিছু তৈরি করতে হবে। শুধু সচেতনতার মাধ্যমে শিশুদের প্রতি সংবেদনশীল হওয়া যাবে না।

তিনি আরও বলেন, আমরা আমাদের ওয়েবসাইটের কনটেন্ট সবার মাঝে ছড়িয়ে দিতে চাই। শিশুতোষ বই, চলচ্চিত্রসহ ভালো ভালো উদ্যোগগুলোকে আমরা তুলে ধরার চেষ্টা করবো। আমাদের সমস্যা অনেক। তাই আমরা শিশু বিষয়ক আলোচনার সুযোগ বাড়াতে চাই। সেক্ষেত্রে শিশুদের জন্য শিশু বিষয়ক আলোচনা, মূলধারার উন্নয়ন কর্মকাণ্ডে শিশুদের নিয়ে ভাবনার জায়গা নিশ্চিত করতে হবে, জ্ঞান ও দক্ষতাকেও বাড়াতে হবে।

প্রসঙ্গত, শিশুরাই সব ওয়েবসাইটে রয়েছে- শিশুদের স্বাস্থ্য, শিক্ষা, সুরক্ষা, বিনোদনসহ শিশুমনস্ক সমাজ সংক্রান্ত নানা বিষয়ে লেখা এবং ভিডিও, শিশুদের ভাবনা, সন্তানদের বড় করার ক্ষেত্রে বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর, শিশুদের জন্য সৃষ্টিশীল কর্মকাণ্ড সম্পর্কে পরামর্শ, শিশুসংক্রান্ত আইন, নীতি, সনদ এবং গবেষণামূলক রিপোর্ট।

 

/বিআই/টিটি/

লাইভ

টপ