X
রবিবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২২
১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৯

বিজয়ের সুফল পুরোপুরি ঘরে তুলতে পারিনি: জামায়াত

বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
১৫ ডিসেম্বর ২০২০, ১৮:৩৩আপডেট : ১৫ ডিসেম্বর ২০২০, ১৮:৩৩

বিজয়ের সুফল পুরোপুরি ঘরে তুলতে পারিনি: জামায়াত জামায়াতে ইসলামীর ঢাকা মহানগর দক্ষিণের আমির নুরুল ইসলাম বুলবুল বলেছেন, ‘ক্ষমতাসীনদের উপর্যুপরি ব্যর্থতা, দুঃশাসনের কারণেই স্বাধীনতার প্রায় ৫ দশক পরেও আমরা বিজয়ের সুফলগুলো পুরোপুরি ঘরে তুলতে পারিনি। দেশের মানুষকে আজও নিজের অধিকার আদায়ের জন্য সংগ্রাম করতে হচ্ছে।’
মঙ্গলবার (১৫ ডিসেম্বর) বিকালে রাজধানীর মিলনায়তনে বিজয় দিবস উপলক্ষে জামায়াতের ঢাকা মহানগরের উদ্যোগে আয়োজিত এক সভায় সভাপতির বক্তব্যে বুলবুল এসব কথা বলেন। দলটির শাখা প্রচার বিভাগ থেকে এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এসব কথা জানানো হয়েছে।
প্রসঙ্গত, মহান মুক্তিযুদ্ধে বিরোধিতাকারী দল জামায়াতে ইসলামীর নিবন্ধন নির্বাচন কমিশনে স্থগিত আছে। মহান মুক্তিযুদ্ধে মানবতাবিরোধী অপরাধ সংগঠনের কারণে দলটির শীর্ষ পর্যায়ের পাঁচ নেতার ফাঁসি ও যাবজ্জীবন কারাদণ্ড হয়েছে।

অনুষ্ঠানে জামায়াতের সেক্রেটারি জেনারেল অধ্যাপক মিয়া গোলাম পরওয়ার বলেন, ‘মহান মুক্তিসংগ্রাম ও বিজয় আমাদের জাতীয় জীবনের সবচেয়ে বড় অর্জন। ১৯৭১ সালের ১৬ই ডিসেম্বর আমরা নিজেদের একটি ভূখণ্ড পেয়েছি অথচ আজও এই জনপদের মানুষ তাদের দীর্ঘদিনের লালিত স্বপ্ন স্বাধীনতার সুফল পায়নি।’

মিয়া গোলাম পরওয়ার আরও বলেন, ‘দেশের গণতন্ত্র, আইনের শাসন, সামাজিক ন্যায়বিচার ও অর্থনৈতিক মুক্তিই ছিল স্বাধীনতা যুদ্ধের মূল চেতনা। বিজয়ের  অর্ধশত বছর প্রায় অতিক্রম হতে চললেও  স্বাধীনতা যুদ্ধের মূল চেতনা আজ  ভূলুণ্ঠিত। তাই মুক্তিযুদ্ধের মূল চেতনাকে সমুন্নত রাখতে এবং শহীদদের স্বপ্ন বাস্তবায়নের জন্য ন্যায় ও ইনসাফভিত্তিক সমাজ প্রতিষ্ঠায় সকলকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে।’

কেন্দ্রীয় কর্মপরিষদ সদস্য ও ঢাকা মহানগরী দক্ষিণের সেক্রেটারি ড. শফিকুল ইসলাম মাসুদের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন কেন্দ্রীয় কর্মপরিষদ সদস্য ও ঢাকা মহানগরী দক্ষিণের নায়েবে আমীর মঞ্জুরুল ইসলাম ভূঁইয়া, কেন্দ্রীয় মজলিশে শুরা সদস্য ও ঢাকা মহানগরী দক্ষিণের সহকারী সেক্রেটারি অ্যাডভোকেট ড. হেলাল উদ্দিন প্রমুখ ।

 

/এসটিএস/এমআর/
ডেঙ্গুতে আরও ৩ মৃত্যু
ডেঙ্গুতে আরও ৩ মৃত্যু
‘ব্যবসায়ীরা ফেরেশতা নন, প্রয়োজনে কারাগারে পাঠানোর ব্যবস্থা করা হবে’
‘ব্যবসায়ীরা ফেরেশতা নন, প্রয়োজনে কারাগারে পাঠানোর ব্যবস্থা করা হবে’
‘ড্রোন দিয়ে মিয়ানমার সীমান্তে পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ হচ্ছে’
‘ড্রোন দিয়ে মিয়ানমার সীমান্তে পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ হচ্ছে’
ইরানে ‘নৈতিকতা পুলিশের’ কার্যক্রম স্থগিত
ইরানে ‘নৈতিকতা পুলিশের’ কার্যক্রম স্থগিত
সর্বাধিক পঠিত
১১ মাসে নাগরিকত্ব ছাড়লেন ৪০১ বাংলাদেশি
১১ মাসে নাগরিকত্ব ছাড়লেন ৪০১ বাংলাদেশি
মেসি-আলভারেজের গোলে কোয়ার্টার ফাইনালে আর্জেন্টিনা
মেসি-আলভারেজের গোলে কোয়ার্টার ফাইনালে আর্জেন্টিনা
‘পুলিশ প্রটোকলে’ বিদায় নিলেন রাঙ্গাবালীর ইউএনও
‘পুলিশ প্রটোকলে’ বিদায় নিলেন রাঙ্গাবালীর ইউএনও
হাসপাতালে কী হয়েছিল মাইশার সঙ্গে?
আঙুলের অপারেশন করতে গিয়ে মৃত্যুহাসপাতালে কী হয়েছিল মাইশার সঙ্গে?
‘ঘটনার পেছনের ঘটনা’ জেনে ফারিণের দুঃখপ্রকাশ
‘ঘটনার পেছনের ঘটনা’ জেনে ফারিণের দুঃখপ্রকাশ