দৈনিক সংগ্রাম অফিসে ভাঙচুরের ঘটনায় জামায়াতে ইসলামীর উদ্বেগ

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ০০:১১, ডিসেম্বর ১৪, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ০০:৩০, ডিসেম্বর ১৪, ২০১৯

জামায়াতে ইসলামীমানবতাবিরোধী অপরাধে ফাঁসির দণ্ড কার্যকর হওয়া কাদের মোল্লাকে ‘শহীদ’ বলার প্রতিবাদে দৈনিক সংগ্রাম পত্রিকা অফিসের ভেতরে ভাঙচুর চালিয়েছে মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের নেতাকর্মীরা।  কার্যালয় ভাঙচুর, সম্পাদকের ওপর হামলা ও গ্রেফতারের ঘটনায় উদ্বেগ প্রকাশ করেছে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী।

এ ব্যাপারে জামায়াতে ইসলামীর আমির ডা. শফিকুর রহমান বলেন, ‘১৩ ডিসেম্বর, শুক্রবার সন্ধ্যায় দৈনিক সংগ্রাম কার্যালয়ে হামলা, ভাঙচুর ও মূল্যবান আসবাবপত্র নষ্ট করার ঘটনায় আমরা গভীরভাবে উদ্বিগ্ন।’

ডা. শফিকুর রহমান আরও বলেন, ‘প্রবীণ সাংবাদিক, দৈনিক সংগ্রামের সম্পাদক আবুল আসাদের ওপর হামলার ঘটনা দুঃখজনক। সংবাদপত্র ও সাংবাদিকের ওপর এ হামলা সংবিধান, বাক স্বাধীনতা, মানবাধিকার ও আইনের শাসনের ওপর এক বেদনাদায়ক আঘাত। একটি গণতান্ত্রিক দেশে জনগণ এ দৃশ্য দেখতে চায় না।’

দৈনিক সংগ্রামের অফিসে ভাঙচুরডা. শফিকুর রহমান বলেন, ‘আমরা অবিলম্বে  আবুল আসাদের মুক্তির দাবি করছি। সেই সঙ্গে পত্রিকা, সাংবাদিক ও সংবাদ কর্মীদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের প্রতি আহ্বান জানাচ্ছি।’

এর আগে শুক্রবার সন্ধ্যার দিকে দৈনিক সংগ্রাম পত্রিকা অফিসের ভেতরে ভাঙচুর চালায় মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের নেতাকর্মীরা। এসময় তারা  পত্রিকা অফিসের কম্পিউটার, দরজা, জানালা, চেয়ার, টেবিল ও সম্পাদক আবুল আসাদের কক্ষে ভাঙচুর চালায়। এরপর তারা গেটের বাইরে সংগ্রাম পত্রিকায় আগুন জ্বালিয়ে বিক্ষোভ করেন। অফিসে ভাঙচুরের একপর্যায়ে সম্পাদক আবুল আসাদকে হাতিরঝিল থানা পুলিশ নিজেদের হেফাজতে নিয়ে নেয়।

অফিসের সামনে পত্রিকা পোড়ানো হচ্ছেসংগ্রামে কর্মরত সাংবাদিকরা জানান, বাইরে বিক্ষোভের একপর্যায়ে মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের নেতাকর্মীরা জোর করে অফিসের ভেতরে ঢুকে পড়েন। কক্ষগুলোতে ভাঙচুর চালায়। এরপর সম্পাদককে তার রুমের বাইরে এনে টিভি সাংবাদিকদের ক্যামেরার সামনে দাঁড় করিয়ে জাতির কাছে ক্ষমা চাইতে বলা হয়। তখন তিনি ‘শহীদ’ শব্দটি ব্যবহারের জন্য দুঃখ প্রকাশ ও ক্ষমা চান।

আরও পড়ুন:
দৈনিক সংগ্রামের অফিসে ভাঙচুরের পর ফটকে লাগানো হলো তালা (ভিডিও)

/এসটিএস/এআর/

লাইভ

টপ