যাদু মিয়া ছিলেন দূরদর্শী রাজনীতিক: জেবেল রহমান গাণি

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ১৫:২১, মার্চ ১১, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ১৫:২৫, মার্চ ১১, ২০২০

জেবেল রহমান গাণি (ফাইল ফটো)

বৃহস্পতিবার (১২ মার্চ) মশিউর রহমান যাদু মিয়ার ৪১তম মৃত্যুবার্ষিকী যথাযোগ্য মর্যাদায় পালনের আহ্বান জানিয়েছেন বাংলাদেশ ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টি-বাংলাদেশ ন্যাপ চেয়ারম্যান জেবেল রহমান গাণি। তিনি বলেন, ‘যাদু মিয়া ছিলেন দূরদর্শী ও মেধাবী রাজনীতিক।’

বুধবার (১১ মার্চ) বাংলাদেশ ন্যাপ মহাসচিব গোলাম মোস্তাফা ভুঁইয়া স্বাক্ষরিত এক বিবৃতিতে একথা বলেন জেবেল রহমান।

জেবেল রহমান বলেন, ‘আমাদের রাষ্ট্রে এবং সমাজে রাজনৈতিক প্রশ্নের জটগুলো যখন জটিল থেকে জটিল আকার ধারণ করতে থাকে,তখন যাদু মিয়া সম্পর্কিত বিতর্কও নতুন নতুন মাত্রা অর্জন করতে থাকে। রাজনীতিতে একটি অংশ তাকে একেবারে খারিজ করতে পারলে বেঁচে যায় বলে মনে হয়। আর অন্য অংশটি খুব বেশি স্মরণের প্রয়োজনও বোধ করে না।’

গাণি অভিযোগ করেন,  ‘গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠায় যে দলটিকে প্রতিষ্ঠিত করেছে, নিজের দলের প্রতীক তুলে দিয়েছেন তাদের প্রায় সময়ই মনে থাকে না, মশিউর রহমান যাদু মিয়া নামে কেউ জড়িত ছিলেন তাদের জন্মের সঙ্গে।’

তিনি বলেন, ‘ইতিহাসের কারণেই কোনও ব্যক্তি ইতিহাসের কালপরিক্রমায় একটি জাতিকে দান করেন অফুরন্ত শক্তি, তার সাহসিকতা, ত্যাগ, মনোবল, নীতি-নৈতিকতা এবং আদর্শিকতায় ঘুমন্ত জাতির অধিকার প্রতিষ্ঠার সংগ্রামে জেগে ওঠে অকস্মাৎ। জাতি হয়ে ওঠে এক ভিন্ন ধরনের বিশেষণের অধিকারী। যাদু মিয়া ছিলেন তেমনই একজন ব্যক্তিত্ব।’

তিনি বলেন, ‘যাদু মিয়ার মতো অসাধারণ মানুষটাকে বাদ দিয়ে আমাদের গণতান্ত্রিক সংগ্রামের ইতিহাস রচনা সম্ভব নয়। রাজনীতির যাদুকর বলে খ্যাত যাদু মিয়া পরিচয়ের অন্তরালে অন্য বৈশিষ্ট্যগুলো ঢাকা পড়ে গেছে।’

যাদু মিয়া আজীবন সংগ্রাম করেছেন গণমানুষের মুক্তির জন্য বলে জানান গাণি। তিনি বলেন,  ‘প্রতিবাদে প্রতিরোধে ও সংগ্রামে তিনি কখনও পিছপা হননি। জীবনের মোহের কাছে তিনি কখনও আত্মসমর্পণ করেননি।’

বিবৃতিতে ন্যাপ মহাসচিব গোলাম মোস্তাফা ভুঁইয়া উল্লেখ করেন, ১৯২৪ সালের ৯ জুলাই তৎকালীন রংপুর জেলা আজকের নীলফামারী জেলার ডিমলার খগাখড়ি বাড়ির সম্ভ্রান্ত পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন যাদু মিয়া। তার বাবা ওসমান গনি ও মা আবিউননেছা। ১৯৭৯ সালের ১২ মার্চ যাদু মিয়া ইন্তেকাল করেন।

এদিকে, যাদু মিয়ার মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে নীলফামারী (ডোমার-ডিমলা), রংপুর, ঠাকুরগাঁও, সিরাজগঞ্জ, পাবনা, কিশোরগঞ্জ, ময়মনসিংহ ও গাজীপুরসহ বিভিন্ন জেলায় তার স্মরণে আলোচনা সভা ও দোয়ার আয়োজন করেছে বাংলাদেশ ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টি-বাংলাদেশ ন্যাপ।  এছাড়া ১২ মার্চ দলের উদ্যোগে কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে স্মরণসভা ও দোয়া অনুষ্ঠিত হবে, বলে জানান গোলাম মোস্তাফা।

আরও পড়ুন:

বিএনপি গঠনে যাদু মিয়ার অবদান অনস্বীকার্য: মির্জা ফখরুল

 

/এসটিএস/এপিএইচ/

লাইভ

টপ