দলের নিবন্ধন আইন প্রণয়ন স্থগিতের দাবি বিএনপির

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ১৮:০৪, জুলাই ০১, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ১৮:১১, জুলাই ০১, ২০২০

বিএনপিরাজনৈতিক দল নিবন্ধন আইন-২০২০ প্রণয়নের প্রক্রিয়াকে ‘রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত’ উল্লেখ করে নির্বাচন কমিশনকে (ইসি) এর কার্যক্রম স্থগিত করতে বলেছে বিএনপি।  দলটির পক্ষ থেকে খসড়া আইনটির ওপর মতামত জানাবে বলে উল্লেখ করা হয়।

বুধবার (১ জুলাই) বিকেলে নির্বাচন কমিশন সচিবের সঙ্গে বৈঠকের করে দলটির যুগ্ম মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল এসব তথ্য জানান। এ সময় দলটির আইন সম্পাদক ব্যারিস্টার কায়সার কামাল, সংসদ সদস্য হারুনুর রশীদ ও মোশাররফ হোসেন উপস্থিত ছিলেন। সাক্ষাতে ইসি সচিবকে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের লিখিত দাবি হস্তান্তর করেন মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল।

আলাল বলেন, ‘করোনা মহামারির এই সময়ে সব মানুষ যখন জীবন-জীবিকা রক্ষায় ব্যস্ত, তখন কমিশনের এ উদ্যোগ রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত। কেননা খসড়া আইনে বলা হয়েছে-পরপর দুই বছর নির্বাচনে অংশগ্রহণ না করলে নিবন্ধন বাতিল হবে। বিএনপি একবার নির্বাচনে অংশ নেয়নি। তাই বিএনপিকে রাজনীতির মাঠ থেকে দূরে রাখার একটা কৌশল এটা।’

তিনি বলেন,  ‘খসড়া আইনে বেশকিছু অসঙ্গতি রয়েছে। আমরা এগুলো ইসি সচিব মো. আলমগীরের কাছে তুলে ধরেছি। একই সঙ্গে যেহেতু আইন প্রণয়নের এটি সময় নয়। তাই কার্যক্রমটি স্থগিত রাখার দাবি তুলেছি। সচিব জানিয়েছেন, কমিশনের কাছে আমাদের দাবিগুলো তুলে ধরে আলোচনা করবেন। এরপর যে সিদ্ধান্ত আসে, তা আমাদের জানিয়ে দেবেন।’

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘আমরা মতামত দেইনি। যেহেতু আমরা প্রক্রিয়াটিই স্থগিতের দাবি জানিয়েছি, তাই কমিশনের পরবর্তী সিদ্ধান্ত অনুযায়ী দলের বৈঠকে আলোচনা করে আমাদের করণীয় ঠিক করবো।’

অবশ্য দলটির পক্ষ থেকে মতামত দেওয়া হয়নি উল্লেখ করা হলেও নির্বাচন কমিশনে দলের পক্ষে যে লিখিত দাবি তুলে ধরা হয়েছে, প্রকারান্তরে তা মতামতের মধ্যেই পড়ে। ওই লিখিত দাবিতে আইনের বেশ কয়েক ক্ষেত্রে 'অসঙ্গতির কথা' জানানো হয়েছে।

প্রসঙ্গত, রাজনৈতিক দলগুলোর নিবন্ধন নিতে আরও শর্ত আরোপ করতে যাচ্ছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। এজন্য তারা বিদ্যমান আইনে সংশোধনী আনছে। এজন্য ‘রাজনৈতিক দল নিবন্ধন আইন, ২০২০’ নামে একটি খসড়া প্রস্তুত করা হয়েছে। আর চাওয়া হচ্ছে মতামত। এই মতামত দিতে হবে ৭ জুলাইয়ের মধ্যে।

এক যুগ আগে একটি নিবন্ধন শর্ত পূরণ করেই দল নিবন্ধন পেয়েছে। আগামীতে নিবন্ধন নিতে দুটি শর্ত পূরণ করতে হবে। এছাড়া আইন হবে বাংলায়। এজন্য ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি), পৌর ও সিটিকে বাংলায় পল্লী, নগর ও মহানগর রেখে নিবন্ধিত দল ও নাগরিকদের কাছে জনমত চাওয়া হয়েছে।

ইসির জনসংযোগ পরিচালক (যুগ্মসচিব) এস এম আসাদুজ্জামান এক বিজ্ঞপ্তিতে জানান, রাজনৈতিক দলের নিবন্ধন আইনের খসড়া দলগুলোর কাছে পাঠানো হয়েছে। আইনটি চূড়ান্ত করতে রাজনৈতিক দল ও নাগরিকদের সুচিন্তিত মতামত প্রয়োজন। এজন্য www.ecs.gov.bd খসড়া আইনটি প্রকাশ করা হয়েছে। আর মতামত চাওয়া হয়েছে নির্বাচন কমিশন সচিবের ইমেইলে  [email protected] ।

 

/ইএইচএস/এফএস/

লাইভ

টপ