স্বাস্থ্যমন্ত্রীর পদত্যাগ করা উচিত: মির্জা ফখরুল

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ১৭:০৪, জুলাই ১২, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ১৯:২০, জুলাই ১২, ২০২০

মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীররিজেন্ট হাসপাতাল অনুমোদনের বিষয়ে স্বাস্থ্য অধিদফতরের বক্তব্যের পরিপ্রেক্ষিতে অবিলম্বে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেকের পদত্যাগ করা উচিত বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। রবিবার (১২ জুলাই) দুপুরে উত্তরার বাসা থেকে এক ভার্চুয়াল অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন তিনি। জিয়াউর রহমান ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে কোভিড-১৯ রোগীদের স্বাস্থ্যসেবায় হটলাইন কলসেন্টার উদ্বোধন উপলক্ষে এই ভার্চুয়াল অনুষ্ঠান হয়। পরে কলসেন্টারের ০৯৬৭৮১০২১০২ নম্বরে ফোন করে এই কর্মসূচির উদ্বোধন ঘোষণা করেন মির্জা ফখরুল।
তিনি বলেন, স্বাস্থ্যমন্ত্রী ও স্বাস্থ্য অধিদফতরেরে মধ্যে এখন যুদ্ধ শুরু হয়েছে। স্বাস্থ্য অধিদফতর বলছে, মন্ত্রণালয় থেকে না বলা হলে তারা রিজেন্ট হসপিটালকে অনুমোদন দিতো না। অর্থাৎ মিনিস্ট্রি থেকে বলা হয়েছে যে রিজেন্ট হসপিটালকে অনুমতি দিতে হবে। বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘স্বাস্থ্যমন্ত্রীর অবিলম্বে পদত্যাগ করা উচিত। কেন তিনি অনুমতি দিলেন সে জন্য তাকে বিচারের মুখোমুখি করা উচিত।’

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘আজকে লজ্জা হয়, যখন দেখি প্রচণ্ড দুঃসময়ের মধ্যে করোনা টেস্ট করতে গিয়ে দুর্নীতি হচ্ছে এবং তার সঙ্গে জড়িত কে? আওয়ামী লীগ। গোটা স্বাস্থ্য ব্যবস্থাকে ভেঙে ফেলেছে। যে হারে লুটপাট করেছে সবাই দেখেছেন।

সাংবাদিকদের ধন্যবাদ জানিয়ে বিএনপি মহাসচিব বলেন, এই চরম বৈরিতার মধ্যে যখন কোনও সংবাদ প্রকাশ করা বিপজ্জনক তখনও তারা অনেকটা প্রকাশ করছেন। যার মাধ্যমে জনগণ জানতে পারছেন আওয়ামী লীগ আমলে কীভাবে দুর্নীতি ব্যাপক থেকে ব্যাপকতর হচ্ছে।

করোনা মোকাবিলায় বিএনপির দেওয়া দীর্ঘ-মধ্য-স্বল্পমেয়াদি প্রণোদনা প্রস্তাবনায় সরকার সাড়া না দেওয়ায় সমালোচনা করে মির্জা ফখরুল বলেন, আমরা দেখেছি প্রথমদিকে যারা দিন আনে দিন খায় তারা কষ্ট করছে, এখন তো কষ্ট আরও বেড়ে গেছে। একদিকে সব খুলে দেওয়ার পরে সংক্রমণ বেড়েছে, মানুষের অনিশ্চয়তার মধ্যে পড়েছে।

করোনাভাইরাস সংক্রমণ মোকাবিলায় জিয়াউর রহমান ফাউন্ডেশনের নেওয়া কর্মসূচিসমূহের প্রশংসা করে মির্জা ফখরুল বলেন, গোটা পৃথিবীর সভ্যতা আগের অবস্থায় আর থাকবে না, পরিবর্তন হবে, হচ্ছে। কী বদলাবে, কীভাবে বদলাবে সেটা আমরা সবাই জানি না। কিন্তু পরিবর্তন আসছে।

সভায় বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেন, যারা স্বাধীনভাবে মত প্রকাশ করতে চান তারা গুমের শিকার হচ্ছে। তাদের মিথ্যা মামলায় গ্রেফতার করা হচ্ছে। ফেসবুকে মত প্রকাশ করার কারণে পলি নামে এক কিশোরীকে রাতে গ্রেফতার করা হয়েছে। ছাত্রদলের সাবেক নেতা টিটো হায়দার ৪/৫ দিন হলো গায়েব। কিন্তু সুস্পষ্টভাবে সবাই দেখছে যে টিটো বেগমগঞ্জ থানায়ই আছে। অনেকেই দেখেছেন। কিন্তু পুলিশ বলছে সে তাদের কাছে নেই।

ফাউন্ডেশনের নির্বাহী পরিচালক অধ্যাপক ফরহাদ হালিম ডোনারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন ডক্টরস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ-ড্যাব-এর সভাপতি ডা. হারুন অর রশিদ।

 

/এএইচআর/এমআর/এমওএফ/

লাইভ

টপ