স্মরণে সাহারা খাতুন

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ০০:৩৭, জুলাই ১৫, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ০২:১৩, জুলাই ১৫, ২০২০

সাহারা খাতুনক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের সদ্য প্রয়াত সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য অ্যাডভোকেট সাহারা খাতুন ছিলেন আপাদমস্তক রাজনীতিবিদ। একজন সংগ্রামী নেতা। এ দেশে যখন গণতন্ত্র পর্যুদস্ত হতে বসেছিল তখন বিএনপি-জামায়াত জোট সরকারের বিরুদ্ধে আন্দোলন করতে গিয়ে প্রচণ্ড নির্যাতনের শিকার হয়েছিলেন তিনি। তবু দমে যাননি। এ দেশের গণতন্ত্র বিকাশে তার ভূমিকা অপরিসীম। মহিলা আওয়ামী লীগের এক ভার্চুয়াল আলোচনা সভায় এসব কথা বলেন দলের নেতারা।

মহিলা আওয়ামী লীগের সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক রোকেয়া প্রাচীর সঞ্চালনায় আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য লে. কর্নেল (অব.) ফারুক খান, আইন বিষয়ক সম্পাদক ও মৎস ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী  শ.ম. রেজাউল করিম এমপি, মহিলা লীগের সভাপতি সাফিয়া খাতুন, সহ-সভাপতি নসিবুন আহম্মেদ, সাধারণ সম্পাদক মাহমুদা বেগম এবং সাবেক সংসদ সদস্য শিরীন নাইম পুনম।

আলোচনায় অংশ নিয়ে কর্নেল (অব.) ফারুক খান বলেন, সাহারা খাতুনের রাজনৈতিক পরিমণ্ডল এত বিশাল যে দীর্ঘ আলোচনায়ও শেষ হওয়ার নয়। তিনি খুব অল্প বয়সে রাজনীতিতে পদার্পণ করেন এবং দীর্ঘ ৭৭ বছর বয়স পর্যন্ত কখনও রাজনীতির বাইরে ছিলেন না। রাস্তাঘাটে জনগণের জন্য আন্দোলন সংগ্রাম করা আওয়ামী লীগ, মহিলা আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠন গুলোর মধ্যে পুলিশের হাতে নির্মম নির্যাতন ভোগ করা অন্যতম সাহসী এবং ত্যাগী নেত্রী। তিনি বলেন, সাহারা খাতুন জনসেবার যে অনন্য দৃষ্টান্ত রেখে গেছেন তার সেই আদর্শ আমাদের মাঝে লালন করাই হবে তার প্রতি সর্বোচ্চ সম্মান প্রদর্শন।

শ.ম. রেজাউল করিম বলেন, সাহারা খাতুন ছিলেন দল এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নিরঙ্কুশ আনুগত্যপূর্ণ। তিনি ছিলেন পূর্ণ রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব এবং কর্মীবান্ধব নেত্রী। তিনি সবসময় কর্মীবেষ্টিত থাকতেন।

ম্যাজিস্ট্রেট কোর্টে বিএনপি, জাতীয় পার্টি এবং এক-এগারো সরকারের সময় সংকটময় মুহূর্তে নেতাকর্মীদের পাশে দাঁড়ানোর শীর্ষে তিনিই ছিলেন। এমনকি এক-এগারো সরকার যখন শেখ হাসিনাকে মুক্তি দিতে বাধ্য হয়েছেন তখন  শেখ হাসিনার বিরুদ্ধে ডিটেনশন আছে কিনা সেটি জানার বিষয়েও নেতৃত্ব দিয়েছেন সাহারা খাতুন।

মন্ত্রী আরও বলেন, আওয়ামী আইনজীবীদের ঐক্যবদ্ধ হওয়ার সংগঠন ‘বাংলাদেশ আওয়ামী আইনজীবী পরিষদ’ সাহারা খাতুনই গঠন করেন। তার সততা, রাজনীতি, দল এবং প্রধানমন্ত্রী দলের সভাপতি শেখ হাসিনার প্রতি আনুগত্য দৃঢ়তার সঙ্গে ধারণ করলে সাহারা খাতুন আমাদের মাঝে বেঁচে থাকবেন।

অনুষ্ঠানের শুরুতে মহিলা আওয়ামী লীগ গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করে তার বিদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনা এবং শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জ্ঞাপন করেন।

প্রসঙ্গত, আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর অন্যতম সদস্য, বাংলাদেশের প্রথম নারী স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী এবং ডাক ও টেলিযোগ মন্ত্রী (সাবেক), তিনবারের সংসদ সদস্য, বাংলাদেশ মহিলা আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সাবেক সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট সাহারা খাতুন ব্যাংককের বামরুনগ্রাদ হাসপাতালে গত ৯ জুলাই বাংলাদেশ সময় রাত ১১টার দিকে মৃত্যুবরণ করেন।

/এমএইচবি/এফএএন/এমওএফ/

লাইভ

টপ