বিএনপির কেন্দ্রীয় দফতরের দায়িত্বে প্রিন্স

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ২২:৫৯, অক্টোবর ১৯, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ০১:০২, অক্টোবর ২০, ২০২০

 বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভীর দায়িত্ব পালন করবেন দলটির সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্স। সোমবার (১৯ অক্টোবর) বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর স্বাক্ষরিত এক পত্রে এই নির্দেশ দেওয়া হয়।

চিঠিতে বলা হয়, রিজভী সুস্থ না হওয়া পর্যন্ত সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্সকে দলের অতিরিক্ত দায়িত্ব হিসেবে সাময়িকভাবে বিএনপির কেন্দ্রীয় দফতরের দায়িত্ব পালন করতে অনুরোধ করা যাচ্ছে।

এমরান সালেহ প্রিন্স বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, রুহুল কবির রিজভী অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে আছেন। আমি তার সঙ্গে সাক্ষাৎ করে বিষয়টি তাকে জানিয়ে দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের নির্দেশক্রমে নয়া পল্টনে অফিস করা শুরু করেছি। আজও অফিস করেছি।

প্রিন্স আরও বলেন, রিজভী ভাই বলেছেন, আমি যেহেতু অসুস্থ, কাউকে না কাউকে তো দায়িত্ব নিতেই হবে। দলের ভালো জন্য এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। আপনি কাজ করে যান।

বিএনপির এ সাংগঠনিক সম্পাদক বলেন, দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান আমাকে যে দায়িত্ব দিয়েছেন, তা আমি যথাযথভাবে পালনের চেষ্টা করবো। দলের জন্য যে কোনও ত্যাগে প্রস্তুত।

প্রিন্স বিএনপির ময়মনসিংহ বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক। এর আগে তিনি দলের কেন্দ্রীয় সহ-দফতর ও সহ-প্রচার সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেছেন।

রুহুল কবির রিজভী বিএনপির কেন্দ্রীয় দফতরের দায়িত্বে ছিলেন। দলের বিভিন্ন ইস্যু নিয়ে নিয়মিত সংবাদ সম্মেলনের পাশাপাশি জরুরি বার্তা পৌঁছানোর দায়িত্ব তিনি পালন করতেন।

যে কারণে রিজভীর স্থলে প্রিন্স
গত ১৩ অক্টোবর জাতীয় প্রেসক্লাব থেকে অনুষ্ঠান করে ফেরার সময় হঠাৎ করেই বুকে ব্যথা অনুভব করেছিলেন রুহুল কবির রিজভী। এরপর একটি বেসরকারি হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়ার পর ল্যাব এইডে স্থানান্তর করা হয়। পরীক্ষা-নিরীক্ষায় ১৫ অক্টোবর তার হৃদযন্ত্রে ব্লক ধরা পড়ে এবং সেটি সরানো হয়। আজ সোমবার (১৯ অক্টোবর) তাকে কেবিনে স্থানান্তর করা হয়। আগামী বেশ কিছুদিন এই হাসপাতালেই অবজারভেশনে থাকতে হবে রিজভীকে।
রিজভীর এই অসুস্থতার মধ্যেই বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর এক চিঠিতে তার স্থলে সাময়িকভাবে কাজ করতে সাংগঠনিক সম্পাদক এমরান সালেহ প্রিন্সকে দায়িত্ব দেন। দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানই এ দায়িত্ব দেওয়ার নির্দেশ প্রদান করেন বলে দলীয় সূত্রে জানা গেছে।
রিজভীর স্থলে প্রিন্সকে দায়িত্ব দেওয়ার বিষয়ে সোমবার রাতে বিএনপির স্থায়ী কমিটি ও কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটিসহ একাধিক দায়িত্বশীল ব্যক্তির সঙ্গে কথা হয়। তাদের সঙ্গে কথা বলে দুটি মত পাওয়া গেছে। একটি হচ্ছে, অসুস্থতার কারণে রিজভীকে এবার বেশ কিছুদিন বিশ্রামে থাকতে হবে। বিশেষ করে হৃদযন্ত্রে অসুস্থতার কারণে তা সুস্থ হতে সময় লাগবে মনে করেই দফতরের কাজ ধারাবাহিক রাখতে এমরান সালেহকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। তিনি বিএনপির সাবেক বহিষ্কৃত মহাসচিব আবদুল মান্নান ভুঁইয়ার সময় সহ-দফতর সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেছেন বলে জানান বিএনপির একাধিক নেতা। তাদের ভাষ্য, সুস্থ হলেই দফতরের দায়িত্বে আবারও এই কাজে যোগ দেবেন রিজভী।
বিএনপির স্থায়ী কমিটির একাধিক সদস্য ও প্রভাবশালী একাধিক দায়িত্বশীল দাবি করেন, রুহুল কবির রিজভীর বিরুদ্ধে দাফতরিক নানা কাজের অভিযোগ গেছে হাইকমান্ডে। ইতোমধ্যে লিখিত অভিযোগও গেছে একাধিক। এছাড়া দফতরের দায়িত্বপ্রাপ্ত আরও একাধিক দায়িত্বশীলকেও কোণঠাসা করে রেখেছিলেন বলে অভিযোগও সম্প্রতি রিজভীর বিরুদ্ধে উঠে। এসব কারণেই রিপ্লেসমেন্ট তৈরি করেছে বিএনপির হাইকমান্ড।
যদিও জানতে চাইলে বিএনপির স্থায়ী কমিটির প্রবীণ সদস্য ব্যারিস্টার জমির উদ্দিন সরকার বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘রিজভী অসুস্থ থাকার কারণেই প্রিন্সকে দফতরের কাজ চালিয়ে নিতে বলা হয়েছে। এটা সাময়িক। এবার তার অসুস্থতা একটু বেশি। সুস্থ হোক আগে। আর দফতরের কাজ করতে গেলে অভিযোগ আসেই, রিজভীর ক্ষেত্রেও ব্যতিক্রম হয়নি।’
স্থায়ী কমিটির আরেক সদস্য বলেন, ‘দলের মহাসচিব হতে রুহুল কবির রিজভী আগ্রহী বলে শোনা যায়। তবে এক্ষেত্রে সেটা না হলেও স্থায়ী কমিটিতে আসতে পারেন তিনি, এমন সম্ভাবনা আছে।’

 

/এসটিএস/এএইচআর/টিটি/এমওএফ/

লাইভ

টপ