ইরফান সেলিমরা একদিনে জন্মায়নি: মান্না

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ১৫:২৫, অক্টোবর ৩১, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ১৫:২৫, অক্টোবর ৩১, ২০২০

জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে এক সমাবেশে বক্তব্য দিচ্ছেন মাহমুদুর রহমান মান্না সরকারের ছত্রছায়ায় ইরফান সেলিমরা বেড়ে উঠেছে বলে অভিযোগ করেছেন নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না। তিনি বলেন, ‘হাজি সেলিম, ইরফান সেলিমরা একদিনে জন্মায়নি। ইরফান সেলিমরা এত দিনে কত মানুষের জমি দখল করেছে, কত জনকে নির্যাতন করেছে, তার হিসাব নেই। সরকার বছরের পর বছর এদের লালন-পালন করেছে।’

শনিবার (৩১ অক্টোবর) জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে নাগরিক ঐক্য আয়োজিত মাহমুদুর রহমান মান্নার ওপর হামলার বিচারের দাবিতে এক সমাবেশে তিনি এসব কথা বলেন।

মাহমুদুর রহমান বলেন, ‘আজ এই সমাবেশে এক নতুন ঐক্যের যাত্রা শুরু হলো। কিন্তু, এমন একশ’ ঐক্য থাকলেও কোনও কাজ হবে না; যদি না তা আন্দোলনের ঐক্য হয়। আন্দোলনের ঐক্যই নতুন বাংলাদেশ গড়তে পারবে। এক দলকে সরিয়ে আরেক দলকে ক্ষমতায় বসাতে ঐক্য নয়, জনগণের অধিকার প্রতিষ্ঠার জন্য ঐক্যবদ্ধ আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে।’

জনগণকে রাজপথে নামার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, “আগামী ১০ নভেম্বর শহীদ নূর হোসেন দিবস। এই দিনে সবাইকে ‘গণতন্ত্র মুক্তি পাক, স্বরাচার নিপাত যাক’ লেখা স্লোগান নিয়ে রাজপথে নামার আহ্বান জানাচ্ছি।”

এ সময় গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, ‘দেশে কারও নিরাপত্তা নেই। সবাই ভয়ে আছে। রাষ্ট্রের মৌলিক পরিবর্তন প্রয়োজন। সরকারের উচিত নিজেদের কর্মপরিকল্পনা জনগণের সামনে তুলে ধরে মধ্যবর্তী নির্বাচন দেওয়া।’

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের সাবেক অধ্যাপক দিলারা চৌধুরী বলেন, ‘সরকার নারী উন্নয়নের কথা বলে, অথচ দেশে এখন নারীর কোনও নিরাপত্তা নেই। ঘুষ, দুর্নীতি, নারী নির্যাতনের যে চিত্র সামনে আসছে তাতে মনে হয়, রাষ্ট্র দুরারোগ্য ব্যাধিতে আক্রান্ত।’

গণসংহতি আন্দোলনের প্রধান সমন্বয়ক জোনায়েদ সাকি বলেন, ‘লালমনিরহাটে এক ব্যক্তিকে পিটিয়ে মেরে ফেলার পরে আগুনে পুড়িয়ে দেওয়া হলো। ধর্ম অবমাননা হয়েছে কি হয়নি সেটা বিচারের জন্য আইনি প্রক্রিয়া রয়েছে। এমন ঘটনা কোনও দেশের জন্য শুভ সংকেত নয়। রাষ্ট্রের গণতান্ত্রিক রূপান্তরের জন্য সরকারের পতন দরকার।’

সমাবেশে আরও বক্তব্য দেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে বিএনপির মেয়র প্রার্থী ইশরাক হোসেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র সংসদের সাবেক ভিপি নুরুল হক নুর প্রমুখ।

 

/এইচএন/আইএ/

লাইভ

টপ