ওয়ালটন ফ্রিজ কিনে গাজীপুরের দর্জি এখন মিলিয়নিয়ার

Send
বাংলা ট্রিবিউন ডেস্ক
প্রকাশিত : ২৩:৫৬, জুন ১৯, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ০১:৩০, জুন ২০, ২০২০

ওয়ালটনের ফ্রিজ কিনে ১০ লাখ টাকা পাওয়া ওয়াজেদ আলীগাজীপুরের তরুণ ওয়াজেদ আলী পেশায় দর্জি। দুর্ঘটনায় এক চোখের দৃষ্টিশক্তি হারিয়েছেন। একটি ফ্রিজ কিনবেন বলে অল্প অল্প করে টাকা জমিয়েছেন। করোনা দুর্যোগের মধ্যে একদিন ফ্রিজ কিনলেন। এর মাধ্যমে বদলে গেলো তার ভাগ্য!
গত ১০ জুন কালিয়াকৈরের পশ্চিম চন্দ্রায় ওয়ালটনের শোরুম হাজি ইলেক্ট্রনিক্স থেকে ২১৮ লিটারের একটি ফ্রিজ কেনেন ওয়াজেদ। এরপর নিজের মোবাইল নম্বর দিয়ে ডিজিটাল নিবন্ধন করেন। কিছুক্ষণের মধ্যে ওয়ালটন থেকে ১০ লাখ টাকা পাওয়ার মেসেজ আসে তার মোবাইলে। ২৭ হাজার ৩০০ টাকায় ওয়ালটন ফ্রিজ কিনে তিনি হয়ে গেলেন মিলিয়নিয়ার। তার ইচ্ছে, দর্জির কাজ ছেড়ে গ্রামের বাড়ি গিয়ে গরুর খামার দেবেন। শিগগিরই আনুষ্ঠানিকভাবে তার হাতে ১০ লাখ টাকার চেক তুলে দেওয়া হবে।
ওয়াজেদ আলী জানান, তার গ্রামের বাড়ি নীলফামারীর জলঢাকায়। ছয় বছর বয়সে এক দুর্ঘটনায় তার ডান চোখ অকেজো হয়ে যায়। পড়াশোনারও সুযোগ পাননি। ঢাকায় এসে নানান জায়গায় কাজ করেন। ২০০১ সাল থেকে বেছে নিয়েছেন কাপড় সেলাই। গাজীপুরের দক্ষিণ পানিশাইলে ছোট একটি দোকান আছে তার। স্ত্রী তৈরি পোশাক কারখানার কর্মী। দুই সন্তান নিয়ে চার সদস্যের পরিবার তার। অনেকদিন ধরে একটি ফ্রিজ কেনার ইচ্ছা ছিল। স্ত্রীর বেতন এবং অল্প অল্প করে নিজের জমানো টাকা দিয়ে ওয়ালটন ফ্রিজটি কেনেন ওয়াজেদ। এবার ভাগ্য বদলে গেলো তার।

ওয়ালটন কর্তৃপক্ষকে ধন্যবাদ জানিয়ে ওয়াজেদ আলী বলেন, ‘এবারই প্রথম কোনও প্রতিষ্ঠান থেকে কিছু উপহার পেলাম। অনেকের কাছে শুনেছি ওয়ালটন দেশীয় প্রতিষ্ঠান। তাদের ফ্রিজ দামে সাশ্রয়ী, মানে অনেক ভালো। তাই কষ্ট করে জমানো টাকা দিয়ে ওয়ালটনের ফ্রিজ কিনি। এরপর তো মোবাইলে পুরস্কারের মেসেজ এলো। ওয়ালটন থেকে টাকা পেলে বাড়িতে গরুর খামার করে বাকি জীবন গ্রামেই কাটাবো।’

সারাদেশে চলছে দেশের শীর্ষ ইলেক্ট্রনিক্স পণ্যের ব্র্যান্ড ওয়ালটনের ‘ডিজিটাল ক্যাম্পেইন সিজন-সেভেন’। এর আওতায় ফ্রিজ, ওয়াশিং মেশিন ও মাইক্রোওয়েভ ওভেন কিনে ক্রেতারা পেতে পারেন ১০ লাখ টাকা। এছাড়া রয়েছে লাখপতি হওয়ার সুযোগসহ কোটি কোটি টাকার নিশ্চিত ক্যাশ ভাউচার। গত ৮ জুন থেকে শুরু হওয়া এই সুযোগ থাকছে ঈদুল আজহা পর্যন্ত।

ওয়ালটন ফ্রিজের প্রোডাক্ট ম্যানেজার শহীদুজ্জামান রানা জানান, ডিজিটাল ক্যাম্পেইন সিজন সেভেন-এর প্রথম মিলিয়নিয়ার ওয়াজেদ। অনলাইনে দ্রুত ও সর্বোত্তম বিক্রয়োত্তর সেবা দেওয়ার লক্ষ্যে এই ক্যাম্পেইন চালাচ্ছে ওয়ালটন। ডিজিটাল নিবন্ধন পদ্ধতিতে ক্রেতার নাম, মোবাইল ফোন নম্বর এবং বিক্রি করা পণ্যের মডেল নম্বরসহ বিস্তারিত তথ্য ওয়ালটনের সার্ভারে সংরক্ষণ করা হচ্ছে। ফলে ওয়ারেন্টি কার্ড হারিয়ে ফেললেও দেশের যেকোনও ওয়ালটন সার্ভিস সেন্টার থেকে দ্রুত সেবা পাচ্ছেন গ্রাহক। দ্রুত সর্বোত্তম বিক্রয়োত্তর সেবা দিতে সারাদেশে রয়েছে তাদের ৭৪টি সার্ভিস সেন্টার। এ কার্যক্রমে ক্রেতাদের স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রহণে উদ্বুদ্ধ করতে মিলিয়নিয়ারসহ নিশ্চিত ক্যাশ ভাউচারের সুযোগ দেওয়া হচ্ছে।

স্থানীয় বাজারে ওয়ালটনের রয়েছে দেড় শতাধিক মডেলের ফ্রস্ট, নন-ফ্রস্ট, ডিপ ফ্রিজ ও বেভারেজ কুলার। দাম মাত্র ১০ হাজার ৯৯০ টাকা থেকে ৬৯ হাজার ৯০০ টাকার মধ্যে। ফ্রিজে এক বছরের রিপ্লেসমেন্ট সুবিধার পাশাপাশি কম্প্রেসরে ১২ বছরের গ্যারান্টি দিচ্ছে ওয়ালটন।

/জেএইচ/
টপ