X
বুধবার, ২৬ জানুয়ারি ২০২২, ১২ মাঘ ১৪২৮
সেকশনস

আবাহনীর বিপক্ষে মাঠে নামার আগে আবেগে আপ্লুত সেই ডিফেন্ডার

আপডেট : ০৬ ডিসেম্বর ২০২১, ১৬:০৫

ক্যারিয়ারের বড় একটা অংশ আবাহনী লিমিটেডে কেটেছে তার। সব মিলে অতিবাহিত হয়েছে ১৪টি বছর। বড় তারকাও হয়ে ওঠা আকাশি-নীল জার্সিতে খেলে। বলা হচ্ছে ডিফেন্ডার ওয়ালি ফয়সালের কথা।

ক্যারিয়ারের সায়াহ্নে এসে সেই ওয়ালি প্রিয় পুরনো দলের বিপক্ষেই কাল মাঠে নামতে যাচ্ছেন। স্বাধীনতা কাপে রহমতগঞ্জের হয়ে মাঠে নামার আগে তাই আবেগ ছুঁয়ে যাচ্ছে এই বর্ষীয়ান ফুটবলারকে।

নারায়ণগঞ্জ থেকে উঠে আসা এই তারকা ঘরোয়া ফুটবল শুরু করেন ২০০১ সালে। ক্লাব ছিল ওয়ারি। দুই বছরের মধ্যে জায়গা করে নেন আবাহনী লিমিটেডেও। ২০০৮ সালে তো সেরা ফুটবলারও হয়েছিলেন। ২০০৯ সাল পর্যন্ত খেলে পাড়ি জমান মোহামেডান ও শেখ জামালে। ২০১৪ থেকে আবারও আকাশি-নীল জার্সি জড়িয়ে মাঠ দাপিয়ে বেড়ান। এবার অবশ্য তারুণ্যনির্ভর দল গড়ায় অন্যদের মতো ওয়ালিরও পুরনো ঠিকানায় আর জায়গা হয়নি। প্রিয় দল ছেড়ে তাই খেলতে হচ্ছে পুরনো ঢাকার রহমতগঞ্জে।

তাইতো প্রিয় দলের বিপক্ষে মাঠে নামার আগে আবেগে আপ্লুত হয়ে পড়লেন ওয়ালি। বাংলা ট্রিবিউনকে বলেছেন, ‘আমার ক্যারিয়ারের বড় অংশ জুড়ে আবাহনীর নাম জড়িয়ে আছে। আবাহনীতে খেলেই বড় তারকা হয়েছি, দেশবাসী চিনেছে। এই কথা ভুলি কী করে?’

আবাহনীতে খেলে ২০০৫ সালে জাতীয় দলেও সুযোগ পেয়ে যান ওয়ালি। তারপর আর পেছনে ফিরে তাকাতে হয়নি। ২০১৯ সাল পর্যন্ত নিয়মিত লাল-সবুজ জার্সি গায়ে ছিল তার। ক্লাবের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে ওয়ালির মন্তব্য, ‘আবাহনীতে খেলে পারফরম্যান্স দেখিয়ে জাতীয় দলে সুযোগ পেয়েছি। এরপর আমাকে আর পেছনে ফিরে তাকাতে হয়নি। সাফল্যের সঙ্গে খেলে গেছি।’

অবশ্য ওয়ালির আবেগ যেমন আছে, আছে পেশাদারিত্বও। তাই আবেগ সামলে সাবেক ক্লাবের বিপক্ষে খেলার জন্য প্রস্তুত তিনি। পাশাপাশি অটুট রাখছেন শ্রদ্ধাও। ৪০- এর কোঠায় পা দেওয়া ফুটবলার বলেছেন, ‘যৌবনের পুরো সময়টা আবাহনীতে দিয়েছি বলতে পারেন। এই দলের বিপক্ষে খেলতে তো খারাপ লাগবে। আবাহনীর জন্য সবসময় শ্রদ্ধা থাকবে। আবাহনী আমাকে অনেক কিছু দিয়েছে। হয়তো প্রতিদানে সেভাবে কিছু দিতে পারিনি। সবাই আমাকে আবাহনীর খেলোয়াড় হিসেবেই চেনে জানে।’

ক্যারিয়ারে ছয়টি পেশাদার ফুটবল লিগের ট্রফি আছে ওয়ালি ফয়সালের। এরমধ্যে ৫টি আবাহনীতে খেলে। অন্যটি শেখ জামালের জার্সিতে। ক্যারিয়ারের শেষ দিকে এসে আবারও জ্বলে ওঠার অপেক্ষায় এই ডিফেন্ডার, ‘এখন আমি রহমতগঞ্জের খেলোয়াড়। যেহেতু আবাহনীর বিপক্ষে খেলা, উপভোগ্য ম্যাচ হবে। আমিও চ্যালেঞ্জ নিতে পছন্দ করি। নিজেকে নতুন করে প্রমাণের জন্য ভালো খেলতে চাই।’

এখন সাবেক ক্লাবের বিপক্ষে ওয়ালি কতটুকু জ্বলে উঠতে পারেন, এর ওপরই নির্ভর করছে তার পরবর্তী সাফল্য।

/এফআইআর/
সম্পর্কিত
বাংলাদেশ কোচের সাফল্য চাইছেন আর্জেন্টাইন কোচ
বাংলাদেশ কোচের সাফল্য চাইছেন আর্জেন্টাইন কোচ
জামালের মতো অধিনায়কই পছন্দ নতুন কোচের
জামালের মতো অধিনায়কই পছন্দ নতুন কোচের
বেনজিমার বাড়িতে আবারও ডাকাতি!
বেনজিমার বাড়িতে আবারও ডাকাতি!
গাম্বিয়াকে নিয়ে উড়ছেন বাংলাদেশে চাকরি হারানো কোচ
গাম্বিয়াকে নিয়ে উড়ছেন বাংলাদেশে চাকরি হারানো কোচ
সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
বাংলাদেশ কোচের সাফল্য চাইছেন আর্জেন্টাইন কোচ
বাংলাদেশ কোচের সাফল্য চাইছেন আর্জেন্টাইন কোচ
জামালের মতো অধিনায়কই পছন্দ নতুন কোচের
জামালের মতো অধিনায়কই পছন্দ নতুন কোচের
বেনজিমার বাড়িতে আবারও ডাকাতি!
বেনজিমার বাড়িতে আবারও ডাকাতি!
গাম্বিয়াকে নিয়ে উড়ছেন বাংলাদেশে চাকরি হারানো কোচ
গাম্বিয়াকে নিয়ে উড়ছেন বাংলাদেশে চাকরি হারানো কোচ
খেলা দেখতে গিয়ে মারা গেলো কমপক্ষে ৮জন
আফ্রিকা কাপ অব নেশনসখেলা দেখতে গিয়ে মারা গেলো কমপক্ষে ৮জন
© 2022 Bangla Tribune