ভারতকে ১৫৪ রানের লক্ষ্য দিলো বাংলাদেশ

Send
স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত : ২১:১৬, নভেম্বর ০৭, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ২১:২৪, নভেম্বর ০৭, ২০১৯



INDM2_608রাজকোটে ভারতের বিপক্ষে সিরিজের দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টিতে আশানুরূপ স্কোর পায়নি বাংলাদেশ। শুরুটা দারুণ করলেও দ্রুত উইকেট পতনে শেষ পর্যন্ত ৬ উইকেটে ১৫৩ রান করতে পেরেছে সফরকারীরা।

প্রথম ম্যাচ জেতা বাংলাদেশ দারুণ শুরু পায় মোহাম্মদ নাঈমের কল্যাণে। এই ম্যাচেও দারুণ শুরু এনে দিতে ভারতের বোলারদের ওপর চাপ সৃষ্টি করে খেলেছেন। সেই বিপজ্জনক নাঈমকে ফিরিয়ে ইনিংসের মাঝপথে স্বস্তি ফেরায় ভারত। তার বিদায়ের পর পর ছন্দপতন ঘটে বাংলাদেশের।

রোহিত শর্মা শুরুতে টস জিতে ব্যাটিংয়ে পাঠানোর সিদ্ধান্ত নেন বাংলাদেশকে। সফরকারী দলের দুই ওপেনার লিটন দাস ও মোহাম্মদ নাঈমের আগ্রাসী সূচনায় পাওয়ার প্লেতেই ভালো সংগ্রহ পায় বাংলাদেশ। এর মাঝে ষষ্ঠ ওভারে পান্তের ভুলে বেঁচে যান লিটন দাস। দুুই ওপেনারের আগ্রাসী সূচনায় তখন বোলিংয়ে আসে পরিবর্তন। ওয়াশিংটনের বদলে বোলিংয়ে আসেন যুজবেন্দ্র চাহাল। তার বলে স্টাম্পিংয়ের সুযোগ ছিল পান্তের। কিন্তু স্টাম্পের আগে বল গ্লাভসবন্দী করে স্টাম্প ভাঙাতে বেঁচে যান লিটন। নট আউটের সিদ্ধান্ত দেন আম্পায়ার, সঙ্গে দেন নো বল। কিছুক্ষণ পর সেই পান্তের থ্রোতেই বিদায় নেন লিটন ২৯ রান করে।

খলিলের দ্বিতীয় ওভারটা ছিল খুবই ব্যয়বহুল। দিয়েছেন ১৪ রান! দ্বিতীয় ওভারেও দিয়েছেন দুই বাউন্ডারি। নাঈম এক প্রান্তে তুলনামূলক বেশি আগ্রাসী ভঙ্গিতেই ব্যাট করেছেন অর্ধেকটা সময়। ৩১ বলে ৩৬ রান করে ফিরেছেন ওয়াশিংটনের বলে। তার বিদায়ের পর নামা মুশফিক বেশি কিছু করতে পারেননি। ৪ রান করে ফিরেছেন চাহালের বলে ক্যাচ দিয়ে। সৌম্য সরকার ২০ বলে কার্যকরী ৩০ রান করে ফিরে গেছেন পান্তের স্টাম্পিংয়ে। এবার অবশ্য আর কোনো ভুল করেননি ভারতীয় উইকেটকিপার।

আফিফ-মাহমুদউল্লাহ নামার পর মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ মেরে খেলতে থাকেন কিছুটা সময়। আফিফ অপর প্রান্ত কিছুক্ষণ আগলে থাকার চেষ্টা করেও ফিরে যান উড়িয়ে মারতে গিয়ে। খলিলের বলে রোহিতকে ক্যাচ দিয়ে ৬ রানে ফেরেন তরুণ এই অলরাউন্ডার। দ্রুত উইকেট পতনের মিছিলে আশা ভরসার প্রতীক হয়ে ছিলেন মাহমুদউল্লাহ। কিন্তু লেজের দিকে ২১ বলে ৩০ রানে ফিরে যান চাহালের বলে ক্যাচ দিয়ে। শেষ দিকে মোসাদ্দেক-আমিনুল চাহিদা অনুযায়ী স্কোর বোর্ড সমৃদ্ধ করতে পারেননি। ৭ রানে অপরাজিত ছিলেন মোসাদ্দেক, ৫ রানে আমিনুল।

ব্যাটিং বান্ধব পিচ হিসেবে খ্যাতি আছে রাজকোটের সৌরাষ্ট্র স্টেডিয়ামের। শুরুতে ফিল্ডিং নেওয়ার কারণ হিসেবে রোহিত জানান, পরে শিশির একটা ‘ফ্যাক্টর’ হয়ে দাঁড়াতে পারে এই ম্যাচে। মাহমুদউল্লাহ রিয়াদও জানালেন, টস জিতলে তিনিও শুরুতে বোলিং নিতেন!

ভারতের পক্ষে সেরা বোলিং ছিল চাহালের। ২৮ রানে নিয়েছেন দুই উইকেট। প্রথম ম্যাচের পর খলনায়কে পরিণত হওয়া খলিল আহমেদ আজকেও ছিলেন খুব বেশি ব্যয়বহুল। ৪ ওভারে একটি উইকেট নিলেও দিয়েছেন ৪৪ রান। একটি করে আরও উইকেট নেন চাহার ও ওয়াশিংটন।  

/এফআইআর/

লাইভ

টপ