সেতিয়েনের বার্সার প্রথম হার

Send
স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত : ২৩:০০, জানুয়ারি ২৫, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ২৩:৩০, জানুয়ারি ২৫, ২০২০

2020-01-25T164313Z_1619812880_RC24NE9XD795_RTRMADP_3_SOCCER-SPAIN-VAL-FCB-REPORTবার্সেলোনায় মধুর সময়ের সমাপ্তি ঘটলো কিকে সেতিয়েনের। লা লিগায় ভ্যালেন্সিয়ার মাঠে হেরে গেছে তার দল। ২০০৮ সালের পর প্রথমবার মেস্তায়া স্টেডিয়ামে ২-০ গোলে বার্সেলোনাকে হারালো ভ্যালেন্সিয়া।

আর্নেস্তো ভালভার্দে বরখাস্ত হওয়ার পর কোচের দায়িত্বে প্রথম দুই ম্যাচেই জয়ের স্বাদ পান সেতিয়েন। লা লিগায় গ্রানাডা ও কোপা দেল রের শেষ ৩২ এ ইবিজার বিপক্ষে জেতে তার বার্সা। কিন্তু তৃতীয় ম্যাচেই হারের তিক্ত অভিজ্ঞতা হলো তার। ২০১৬ সালের পর প্রথমবার লিগে বার্সা বধ করলো ভ্যালেন্সিয়া। অবশ্য গত মৌসুমের কোপা দেল রে ফাইনালেও কাতালানদের হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন হয় তারা।

লিগ মৌসুমের চতুর্থ হারে শীর্ষস্থান শঙ্কায় পড়ে গেলো বার্সা। ২১ ম্যাচে ৪৩ পয়েন্ট নিয়ে এখনও এক নম্বরেই তারা। কিন্তু রবিবার রিয়াল ভায়াদোয়িদের মাঠে এক বা একাধিক পয়েন্ট পেলেই বার্সাকে টপকে যাবে রিয়াল মাদ্রিদ। ২০ ম্যাচে ৪৩ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে মাদ্রিদ ক্লাব। 

মেস্তায়ায় প্রথমার্ধে কঠিন পরীক্ষা দিয়েছে বার্সা। তাদের গোলমুখের সামনে আক্রমণের পসরা সাজিয়েছিল স্বাগতিকরা, যা সফল হতে দেননি মার্ক আন্দ্রে টের স্টেগেন।

১০ মিনিটে সার্জি রবার্তোর চ্যালেঞ্জ অতিক্রম করে বক্সে ঢোকেন গায়া, তাকে ফাউল করে বসেন জেরার্দ পিকে। পেনাল্টির বাঁশি বাজাতে দ্বিতীয়বার ভাবতে হয়নি রেফারিকে। ১২ মিনিটে নেওয়া ম্যাক্সি গোমেজের পেনাল্টি কিক বাঁ দিকে লাফিয়ে ঠেকান টের স্টেগেন।

জার্মান গোলকিপার সতর্ক থাকায় ১৯ মিনিটে বেঁচে যায় বার্সা। তোরেসের ক্রস রবার্তো হেডে বিপদমুক্ত করলেও পিকের গায়ে লেগে বল ছুটছিল গোলমুখে। টের স্টেগেন থামান। বার্সা লক্ষ্যে প্রথম শট নেয় ২৮ মিনিটে। লিওনেল মেসির ভাসানো বল গোলবারের ওপর দিয়ে চলে যায়।

পরের তিন মিনিটে দুটি গোলের সুযোগ তৈরি করেছিল ভ্যালেন্সিয়া। টের স্টেগেন দারুণ দক্ষতায় দলকে রক্ষা করেন। গোমেজের শট ফিরিয়ে দেন বার্সা গোলকিপার, গামেইরোর ফিরতি শটও ঠেকান। দুই মিনিটের ব্যবধানে ছয় গজ দূর থেকে নেওয়া গামেইরোর শট কোনোভাবে রুখে দেন টের স্টেগেন।

দ্বিতীয়ার্ধে ঘুরে দাঁড়াতে মরিয়া হয়ে ওঠে বার্সা। দ্বিতীয় মিনিটে মেসির সঙ্গে ওয়ান টু পাসে আনসু ফাতি শট নেন, গোলপোস্টের পাশ দিয়ে যায় বল। ৪৮ মিনিটে স্বাগতিক দর্শকরা উল্লাসে মেতে ওঠে বার্সার আত্মঘাতী গোলে। গোমেজের জোরালো শট জোর্দি আলবার গায়ে লেগে টের স্টেগেনকে পরাস্ত করে।

এক গোলে পিছিয়ে থাকা কাতালানরা এরপর মুহুর্মুহু আক্রমণ চালায়। মেসি সরব ছিলেন ভ্যালেন্সিয়ার বক্সে। ৫৮ মিনিটে গ্যাব্রিয়েলের চ্যালেঞ্জে গোলমুখের সামনে থেকে শট নিতে ব্যর্থ হন আর্জেন্টাইন ফরোয়ার্ড। পরের মিনিটে আন্তোয়ান গ্রিজমানের সঙ্গে ওয়ান-টু পাসে বল পেয়ে লক্ষ্যে শট নেন বার্সা অধিনায়ক। কিন্তু দূরের পোস্টের কয়েক ইঞ্চি পাশ দিয়ে বল চলে যায় মাঠের বাইরে।

পরে আরও তিনবার গোলের সুযোগ নষ্ট করেন মেসি। দুবার বল গতিপথ পাল্টে যায়, আর ৭৪ মিনিটে স্বাগতিক গোলকিপার ডোমেনেখ ঠেকান তাকে। এর তিন মিনিট পর তোরেসের ঠাণ্ডা মাথার পাস থেকে বাঁকানো শটে জাল কাঁপান গোমেজ। অপ্রস্তুত টের স্টেগেনের কিছুই করার ছিল না। ৮২ মিনিটে কর্নার কিক থেকে সোলার গোল করলেও বক্সের মধ্যে সের্হিয়ো বুশকেৎসকে ফাউল করায় ভিএআরে গোলটি বাতিল হয়।

ইনজুরি সময়ের দ্বিতীয় মিনিটে মেসির ফ্রি কিক গোলবারের অনেক ওপর দিয়ে যায়। পরের মিনিটে তারই শট দারুণভাবে রুখে দেন ডোমেনেখ। তাতে গত বছরের ২ নভেম্বরের পর লিগে প্রথম ম্যাচ হারে বার্সা, ওইদিন লেভান্তে জিতেছিল ৩-১ গোলে।

/এফএইচএম/

লাইভ

টপ