মশাল হস্তান্তর, কিন্তু ‘অভিশপ্ত’ টোকিও অলিম্পিক হবে?

Send
স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত : ২২:০৪, মার্চ ১৯, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ২২:০৯, মার্চ ১৯, ২০২০

টোকিও ২০২০ অলিম্পিকের মশাল হস্তান্তরঅলিম্পিকের ধাত্রীভূমি গ্রিসে অলিম্পিক মশাল হস্তান্তর অনুষ্ঠান হয়ে গেলো আজ। খুবই সাদামাটা এক অনুষ্ঠানে গ্রিসের ক্রীড়ামন্ত্রী স্পাইরোস ক্যাপরোলাস মশাল তুলে দিলেন জাপানের সাবেক সাঁতারু ইমোতো নাওকার হাতে। তার মানে ২৪ জুলাই থেকে ৯ আগস্ট পর্যন্ত অনুষ্ঠেয় টোকিও ২০২০ অলিম্পিকের ঘণ্টাটা বাজলো।

কিন্তু করোনা-ভাইরাস সারা বিশ্বে যে ভয়াল থাবা বাড়িয়েছে তাতে প্রশ্নচিহ্ণটা ক্রমেই বড় হয়ে উঠছে। সময়মতো টোকিওতে ‘দ্য গ্রেটেস্ট শো অন আর্থ’ হবে তো? চারদিকে উড়ে বেড়াচ্ছে সংশয়ের মেঘ- মহামারিতে রূপ নেওয়া করোনাভাইরাসের কারণে স্থগিত হয়ে যেতে পারে এবারের গ্রীষ্মকালীন অলিম্পিক।

সংশয় প্রকাশ করেছেন জাপানের খোদ উপপ্রধানমন্ত্রী তারো আসো। তিনি তো টোকিও অলিম্পিককে ‘অভিশপ্ত’ই বলে দিয়েছেন। তারো আসোর অবশ্য উল্টোপাল্টা মন্তব্য করার ব্যাপারে একটা ‘খ্যাতি’ আছে আগে থেকেই। তবে গত বুধবার সংসদীয় কমিটির কাছে টোকিও অলিম্পিককে অভিশপ্ত বলার পেছনে একটি যুক্তিও তিনি দাঁড় করিয়েছেন। ‘এটা একটা সমস্যা আর এমনটা ঘটে প্রতি ৪০ বছরে। এটা অভিশপ্ত অলিম্পিক যা সত্য’-বলেছেন তিনি। যুক্তি দিতে গিয়ে তিনি ফিরে গেছেন পেছনে। ১৯৪০ সালে টোকিও আয়োজক হয়েছিল গ্রীষ্মকালীন ও শীতকালীন অলিম্পিকের। কিন্তু দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের কারণে তা অনুষ্ঠিতই হতে পারেনি। এর চল্লিশ বছর পর ১৯৮০ সালে মস্কো যখন আয়োজক হলো অলিম্পিকের, সোভিয়েত ইউনিয়নের আফগানিস্তান আক্রমণের প্রতিবাদে সেই অলিম্পিক বর্জন করলো যুক্তরাষ্ট্র, চীন, জাপান এবং আরও কিছু দেশ।

জাপানের সব ক্রীড়াকর্মকর্তার সঙ্গে সুর মিলিয়ে আন্তর্জাতিক অলিম্পিক কমিটিও (আইওসি) যখন বারবার বলে যাচ্ছে, অলিম্পিক পূর্বসূচি ও পরিকল্পনা অনুযায়ী অনুষ্ঠিত হবে, তখনই কিন্তু টোকিও আয়োজক কমিটিই করোনা-বাস্তবতার মুখোমুখি। টোকিও ২০২০ আয়োজক কমিটির প্রধান ইয়োশিরো মোরি সম্প্রতি এমন একজন সিনিয়র ক্রীড়া কর্মকর্তার সঙ্গে বৈঠক করেছেন যিনি নিজেই করোনাভাইরাস পজিটিভ। তিনি টোকিও ২০২০ আয়োজক কমিটির উপপ্রধান কোজো তাশিমা। জাপানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী মোরি গত বছরের রাগবি বিশ্বকাপ আয়োজন নিয়ে তাশিমার সঙ্গে আলোচনা করেছেন গত ১০ মার্চ। বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানিয়েছে, ৮২ বছর বয়সী মোরি ভুগছেন ফুসফুসের ক্যান্সারে, যদিও তার শরীরে করোনার উপসর্গ নেই,  করোনার পরীক্ষাও তাকে করতে হয়নি, কিন্তু তিনি যথেষ্টই ঝুঁকির মধ্যে আছেন। প্রায় ৬০ জনের ওই বৈঠকে মোরি করেনা-আক্রান্ত তাশিমার ১০ মিটার দূরে উল্টো পাশের টেবিলে বসে কথা বলেছেন। মোরির অফিসের এক কর্মকর্তার দেওয়া তথ্য, ‘তিনি (মোরি) সপ্তাহে তিনবার ডায়ালাইসিস করান। সুতরাং তার শরীরে যদি জ্বর-জ্বর ভাবের সঙ্গে অন্য উপসর্গ দেখা দেয় তাহলে অবশ্যই ডাক্তার তাকে করোনাভাইরাসের পরীক্ষা-নিরীক্ষা করাবেন।’

জাপানের মুখ্য মন্ত্রীপরিষদ সচিব ইয়োশিদো সুগা  সাংবাদিকদের জানিয়েছেন যে প্রধানমন্ত্রী শিনজো আবে সোমবার মোরির সঙ্গে সাক্ষাৎ করেছেন। তবে তিনি সরাসরি এটা জানাননি যে আবের করোনাভাইরাসের পরীক্ষা  হয়েছে কি হয়নি। একইসঙ্গে অর্থমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করা তারো আসো বলেছেন, অন্য দেশগুলি যদি তাদের ক্রীড়াবিদদের না পাঠায় তাহলে এই গ্রীষ্মে অলিম্পিক আয়োজনের কোনও অর্থ থাকবে না।

এদিকে বিশ্ব অ্যাথলেটিকসের প্রধান সেবাস্তিয়ান কো স্বীকার করেছেন যে কেউই বলতে পারেন না যাই ঘটুক না কেন গেমস হবে। ২০১২ লন্ডন অলিম্পিক গেমসের দায়িত্বে থাকা কো বলেছেন, ‘এই মুহূর্তে যেকোনও কিছুই সম্ভব। ক্রীড়াঙ্গন এখন যে অবস্থায় এসে দাঁড়িয়েছে, আর সেদিন আইওসি ও অন্য ফেডারেশনগুলোর আলোচনায় যে উত্তাপ অনুভব করলাম, তাতে কেউই বলতে পারেন না যাই হোক না কেন গেমস হবে।’

অলিম্পিক পিছিয়ে ২০২১ সালে চলে যেতে পারে কি না সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নে সাবেক চ্যাম্পিয়ন অ্যাথলেট বলেন, ‘এমন প্রস্তাব নেওয়াটা খুবই সহজ কাজ। কিন্তু সদস্য ফেডারেশনগুলো সাধারণত তাদের বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপের জন্য অলিম্পিকের বছরটা এড়িয়ে চলে। আপনারা যে সময়ের কথা বলছেন, আগামী বছর ঠিক এই সময়েই (৬-১৫ আগস্ট) যুক্তরাষ্ট্রে হবে বিশ্ব অ্যাথলেটিকস চ্যাম্পিয়নশিপ। ইউরোপিয়ান ফুটবল চ্যাম্পিয়নশিপও পিছিয়ে চলে গেছে আগামী বছর। সুতরাং যত সহজে পেছানোর কথা বলা যায়, তত সহজ কাজ এটি নয়। ক্রীড়াপঞ্জি আসলেই একটি জটিল বিষয়।’

অলিম্পিক ও বিশ্ব অ্যাথলেটিকস চ্যাম্পিয়নশিপ একসঙ্গে আয়োজন সম্ভব কি না এমন প্রশ্নে রেডিও ফোরের অনুষ্ঠানে কো বলেছেন, ‘এমন কিছুর সম্ভাবনা মোটেও নেই, এটা যদি আমি বলি তা হবে হাস্যকর। আমরা এমন এক পরিবেশের মধ্যে আছি যেখানে দ্রুতই সবকিছু বদলে যাচ্ছে।’

 

/পিকে/

লাইভ

টপ