সৌরভের কথায় আরও অনিশ্চিত আইপিএল

Send
স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত : ২৩:২৬, এপ্রিল ২২, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ০১:৪০, এপ্রিল ২৩, ২০২০

সৌরভ গাঙ্গুলী

আগামী অক্টোবর-নভেম্বরে অস্ট্রেলিয়ায় অনুষ্ঠেয় ২০২০ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আগে সংক্ষিপ্ত আকারে এবং দর্শকশূন্য স্টেডিয়ামে হলেও ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ (আইপিএল) হবে, এই আশায় যারা বসে আছেন, তাদের খানিকটা আশাহতই করলেন সৌরভ গাঙ্গুলী। ভারতীয় ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ডের (বিসিসিআই) বাঙালি সভাপতি বলে দিয়েছেন, বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাস মহামারির বর্তমান পরিস্থিতিতে অদূর ভবিষ্যতে ভারতে কোনও খেলাধুলা হওয়ার সম্ভাবনাই তিনি দেখছেন না। তার কাছে খেলাধুলার চেয়ে মানুষের সুস্থ থাকাটাই বেশি গুরুত্বপূর্ণ।

শুধু ভারতীয় ক্রিকেটারই তো নয়, পুরো বিশ্বের বহু পেশাদার ক্রিকেটারের রুজি-রোজগারের একটা বড় জায়গা ভারতের ২০ ওভারের ক্রিকেট লিগ, আইপিএল। এটি প্রথমে শুরু হওয়ার কথা ছিল ২৯ মার্চ। এরইমধ্যে করোনাভাইরাস এসে সারা বিশ্বকেই উথালপাথাল করে দেওয়ায় সেটি আপাতত স্থগিত করা হয় ১৫ এপ্রিল পর্যন্ত। ততদিনে করোনা আরও ভয়ঙ্কর হয়ে ওঠে, আর বিসিসিআই এটি অনির্দিষ্টকালের জন্য স্থগিত করে দেয়। বিশ্বব্যাপী প্রায় সব খেলাই বন্ধ বা স্থগিত, কবে আবার শুরু হবে বলা যায় না।

কিন্তু আইপিএল নিয়ে অনেক সাবেক-বর্তমান ক্রিকেটার কথা বলছেন। তাদের বক্তব্যের সারমর্ম, ১৮ অক্টোবর থেকে ১৫ নভেম্বর পর্যন্ত অস্ট্রেলিয়ায় অনুষ্ঠেয় টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আগে আইপিএল প্রয়োজনে দর্শকশূন্য স্টেডিয়ামে হলেও হোক। বিসিসিআইয়ের আনুষ্ঠানিক বক্তব্য পাওয়া না গেলেও শোনা যাচ্ছে যে তারা টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আগে আইপিএলের জন্য একটা সময় বের করে নেওয়ার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। আর টাকার এমনই টান যে কেউ কেউ এমন কথাও বলছেন, টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ পিছিয়ে গেলেও আইপিএলটা যেন এ বছর হয়!

করোনাভাইরাসের লড়াইয়ে ইউরোপের মধ্যে জার্মানি খানিকটা এগিয়ে গেছে। দেশটিতে আবার খেলাধুলা মাঠে ফেরানোর চেষ্টা চলছে। এই জার্মানির প্রসঙ্গ টেনেই মঙ্গলবার সৌরভ গাঙ্গুলী টাইমস অব ইন্ডিয়াকে বলেছেন, ‘জার্মানি ও ভারতের সামাজিক বাস্তবতা ভিন্ন। অদূর ভবিষ্যতে ভারতে কোনও ক্রিকেট হবে না। অনেক যদি বা কিন্তু জড়িয়ে আছে। গুরুত্বপূর্ণ হলো, যেখানে মানুষের জীবন ঝুঁকিতে রয়েছে, সেখানে খেলাধুলা আয়োজনে আমি বিশ্বাসী নই।’

এদিকে সময়মতো টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপই আয়োজিত হবে কিনা সেটি নিয়েই বড় প্রশ্ন জেগেছে। কারণ, অস্ট্রেলিয়া সরকার সে দেশে ৩১ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে। মঙ্গলবারই আইসিসির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মনু সনি বলেছেন, ‘টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপসহ আইসিসির ইভেন্টগুলোর ব্যাপারে আমরা বিশেষজ্ঞ ও কর্তৃপক্ষের সঙ্গে পরামর্শ করবো। পরামর্শ করবো অস্ট্রেলীয় সরকারের সঙ্গে। এই খেলাটির সবচেয়ে ভালোর জন্য প্রাপ্ত সব তথ্য ও উপাত্ত ব্যবহার করে যথোপযুক্ত সময়েই আমরা দায়িত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত নেবো।’

/পিকে/এমওএফ/

লাইভ

টপ