আবারও ‘ভুল কারণে’ খবরে সাব্বির

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ২৩:৪০, মে ৩১, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ২৩:৫২, মে ৩১, ২০২০

সাব্বির রহমানএবার রাজশাহী সিটি করপোরেশনের কর্মচারীকে পিটিয়েছেন বলে জাতীয় দলের বাইরে থাকা ক্রিকেটার সাব্বির রহমানের বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছে। যদিও সাব্বির দাবি করছেন, তিনি গায়ে হাত তোলেননি, সামান্য কথা কাটকাটি হয়েছে।

রাজশাহীর বোয়ালিয়া থানার ওসি নিবারণ চন্দ্র বর্মণের বরাতে জানা গেছে, রবিবার বিকেল পৌনে পাঁচটার দিকে ক্রিকেটার সাব্বির রহমান প্রাইভেট কারে চড়ে তার বাড়ির কাছে পৌঁছেন। এ সময় বাড়ির রাস্তায় সিটি করপোরেশনের পরিচ্ছন্নতা বিভাগের গাড়ি দেখে তিনি গাড়িটি সরাতে বলেন। তখন পরিচ্ছন্নতাকর্মী বাদশা প্রতিউত্তরে বলেন, ‘আমাদের কাজই ময়লা সরানো। ময়লা নিয়েই চলে যাবো।’

এই ময়লার ভ্যানের কারণেই বাড়িতে ঢুকতে পারছিলেন না সাব্বির। তিনি বাদশাকে দ্রুত সরতে বলেন। সাব্বিরের দাবি, বাদশা তার কথায় কর্ণপাত না করে উল্টো আড্ডায় মশগুল থাকেন। এ নিয়ে কথা কাটাকাটির জের ধরে পরিচ্ছন্নতাকর্মী বাদশার সঙ্গে ধাক্কাধাক্কিতে জড়িয়ে পড়েন। পরে অন্য পরিচ্ছন্নতা কর্মীরা খবর পেয়ে ছুটে এলে উত্তেজনার সৃষ্টি হয়। পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। স্থানীয়রা দাবি করেন, রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের (রাসিক) পরিচ্ছন্নতাকর্মী বাদশার গয়ে হাতও তুলেছেন সাব্বির। যদিও সাব্বির বাংলা ট্রিবিউনকে বলেছেন এ কথা সত্য নয়, ‘আমার বাড়ির সামনে ময়লার ভ্যান দাঁড় করিয়ে আড্ডা দিচ্ছিল বাদশা নামের এক পরিচ্ছন্নতা কর্মী। আমি বার বার হর্ন দিলেও সে কর্ণপাত করেনি। কিছুক্ষণ পর সে আমার গাড়ির সামনে এসে বলে আপনি এত হর্ন দিচ্ছেন কেন? আমি বললাম, আপনি কেন আমার রাস্তা আটকে দাঁড়িয়ে আছেন? আমি কেবল জোরে জোরে ওকে শাসিয়েছি, গায়ে হাত তুলিনি। কিন্তু স্থানীয়রা বলছে আমি নাকি গায়ে হাত তুলেছি।’

এর আগে রাজশাহী বিভাগীয় স্টেডিয়ামে এক দর্শককে পিটিয়ে ছয় মাসের জন্য বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দল থেকে বহিষ্কার হয়েছিলেন সাব্বির। নিজেই বিষয়টি উল্লেখ্য করে বললেন, ‘আমি একবার এ কাজ করে নিষিদ্ধ হয়েছি। আমার কি ক্যারিয়ার নিয়ে চিন্তা নেই, আমি কেন ওকে মারতে যাবো? শুধুমাত্র কথা কাটাকাটি নিয়ে এতদূর গড়াবে মানতেই পারছি না।’ সন্ধ্যায় সিটি করপোরেশনের স্থানীয় ওয়ার্ড কাউন্সিলর বিষয়টি মীমাংসা করে দিয়েছেন বলে সাব্বির নিজে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন, ‘ইতিমধ্যে বিষয়টির নিষ্পত্তি হয়ে গেছে। তারপরও এটা নিয়ে অনেক আলোচনা হচ্ছে। সত্যিই খুব হতাশ লাগছে।’

 

/আরআই/পিকে/

লাইভ

টপ