‘ভার’ নিয়ে হৈচৈ, সুবিধা পাচ্ছে রিয়াল মাদ্রিদ?

Send
স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত : ২০:১৪, জুলাই ০৬, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ২০:২০, জুলাই ০৬, ২০২০

রবিবার ভার-সিদ্ধান্তে বাতিল হয়েছে মেসির গোলসার্জি রবার্তোর পাস থেকে মেসি গোল করেছিলেন ৬৯ মিনিটে। দারুণ উদযাপন হলো গোলটির। স্কোরবোর্ডে উঠে গেল সেটি, ভিয়ারিয়াল ১ : ৪ বার্সেলোনা। ধারাভাষ্যকারেরা বলে দিলেন, বিশ্বসেরা ফুটবলারটি আজ যে খেলা খেলছেন তাতে একটা গোল তার প্রাপ্যই ছিল। লা লিগায় এটি তার ২৩তম গোল!

খানিক পর বুদবুদের মতো সবকিছু উড়িয়ে দিয়েছে ভিডিও অ্যাসিস্ট্যান্ট রেফারি বা ‘ভার’। ক্যামেরায় ধরা পড়েছে গোলটির বিল্ডআপের সময় আর্তুরো ভিদালের অ্যাঙ্কেল ছিল অফ-সাইডে। গোল বাতিল! বিমর্ষ মেসির মুখটা ধরেছে ক্যামেরা, রেফারিকে বার্সা খেলোয়াড়দের মৃদু প্রতিবাদের ছবিটাও। ওই সময়ই দূরে রক্ষণভাগে দাঁড়িয়ে হাতের মুদ্রায় কিছু একটা ফুটিয়ে তোলেন বার্সেলোনা ডিফেন্ডার জেরার্ড পিকে। আঙুল দিয়ে একটা লাইন টেনেছেন, তারপর কম্পিউটারের কী-বোর্ডে কী যেন টাইপ করে বার্তা দিয়েছেন। সবসময়ই উচ্চকণ্ঠ ও প্রতিবাদমুখর কাতালান ফুটবলার আসলে কী বলতে চেয়েছিলেন?

রবিবার ভিয়ারিয়ালের মাঠে বার্সেলোনা-ভিয়ারিয়াল ম্যাচে ঘটা এই ভার-সিদ্ধান্ত আবার হইচই তুলেছে স্প্যানিশ ফুটবলে। ভারের বিরুদ্ধে সোচ্চার বার্সেলোনা সভাপতি জোসেফ মারিয়া বার্তোমেউ। তার মনে হয়েছে ভারের সুবিধা পাচ্ছে তাদের চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী রিয়াল মাদ্রিদ। এ নিয়ে এমনিতে চুপচাপ থাকা জিনেদিন জিদানকে কথা বলতে হয়েছে আবার।

মাঠে হাতের মুদ্রায় ফুটিয়ে তোলা ভঙ্গিতে আসলে কী বোঝাতে চেয়েছিলেন পিকের কাছে পরে তা জানতে চাইলে কৌশলে এড়িয়ে যেতে চেয়েছেন। ‘আমি তো মনে করতে পারছি না কী করেছি। আসলে খেলার সময় অ্যাড্রেনালিন ক্ষরণের প্রভাবে আপনি হয়তো অনেক কিছুই করতে পারেন… আমি ঠিক জানি না কোন বিষয়টি জানতে চাইছেন’-বলেছেন পিকে।

গত কয়েক সপ্তাহের ঘটনা বিশ্লেষণ করে দেখা যায় ‘ভার’ থেকে আসা কয়েকটি বিতর্কিত সিদ্ধান্তের কেন্দ্রবিন্দু রিয়াল মাদ্রিদ। গত মাসে পিকেই প্রথম ভার নিয়ে প্রশ্ন তোলেন এই বলে, ‘প্রথম কয়েকটি ম্যাচে যা ঘটতে দেখলাম তাতে, রিয়াল মাদ্রিদের পয়েন্ট যাওয়া মুশকিল।’

গত রবিবারে স্যান ম্যামেসের ম্যাচে ভার-সিদ্ধান্তে একটি পেনাল্টি পায় রিয়াল মাদ্রিদ, সেই পেনাল্টি থেকে গোল করে দলকে জিতিয়েছেন সার্জিও রামোস। অথচ প্রায় একই ধরনের ঘটনায় পেনাল্টির আবেদন করেও তা পায়নি স্বাগতিক আথলেতিক বিলবাও। ম্যাচ শেষেই আথলেতিক কোচ গাইজকা গ্যারিতানো বলেন, ‘আমরা একটা পেনাল্টি গোলে হেরেছি, অথচ একটি পেনাল্টি আমরা পাইনি। ভারের আরও অনেক উন্নতি করার আছে। আমি সবসময়ই বলে এসেছি এটা অনেক সাহায্য করে, কিন্তু যখন এটা আপনার বিরদ্ধে যায় আপনি বিরক্ত তো হবেনই।’

মার্সেলোকে অবৈধভাবে যার বাধা দেওয়ার কারণে পেনাল্টি পায় রিয়াল, সেই আথলেতিক ডিফেন্ডার দানি গার্সিয়া মনে করেন তার যদি অপরাধ হয় তাহলে পরে নিজেদের বক্সে রাউল গার্সিয়াকে পায়ে মাড়িয়ে আরও বড় অপরাধ করেছেন রামোস। ‘আপনি বলতে পারেন না একটি ইচ্ছাকৃত, আরেকটি অনিচ্ছাকৃত। আর আমি মনে করি না সে আমার আগে বল পেয়েছিল। ভারই এখন ফুটবলের নিয়ন্ত্রণ নিচ্ছে’-টুইট করেছেন গার্সিয়া। ম্যাচ শেষেই আথলেতিক অধিনায়ক ইকার মুনিয়াইন বলে দেন, ‘আরও বেশি কিছু আমাদের প্রাপ্য ছিল। গত কয়েকদিন ধরে তো দেখছি কী চলছে, কোন দল সিদ্ধান্তগুলো নিজেদের অনুকুলে পাচ্ছে।’

এতদিন ভার-সিদ্ধান্ত নিয়ে কোনও কথা না বললেও রবিবার দিনের প্রথমভাগে রিয়াল-আথলেতিক ম্যাচ আর রাতে ভিয়ারিয়াল-বার্সেলোনা ম্যাচ দেখার পর বার্সেলোনা সভাপতি বার্তোমেউ তীব্র প্রতিক্রিয়া দেখিয়েছেন, ‘এটি ঠিক নয়। যে মানটা আমাদের প্রত্যাশিত ছিল, সেটি দেখতে পাচ্ছি না।’ ক্রীড়া দৈনিক মার্কা তাকে আরও উদ্ধৃত করেছে এভাবে, ‘লকডাউন পরবর্তী ফুটবলে দেখা যাচ্ছে অনেক ম্যাচই ভারসাম্যপূর্ণ বিচার পাচ্ছে না। কোনও বিশেষ দল আনুকূল্য পাচ্ছে এবং অনেক দলকে দুর্ভাগ্যবরণ করতে হচ্ছে।’

ভিয়ারিয়াল ম্যাচের পর বার্সেলোনা কোচ কিকে সেতিয়েনকেও প্রশ্ন করা হয়েছিল ভার নিয়ে। ‘ক্লাব সভাপতিই যখন এ নিয়ে কথা বলেন, আমার কথা বলা সাজে না’-এই বলে এড়িয়ে গেছেন তিনি, তবে সূক্ষ্মতর একটা কটাক্ষ তার কথায় আছে, ‘আমি ভার কম বুঝি, খুব কম বুঝি।’

রিয়াল মাদ্রিদ কোচ জিনেদিন জিদান ভার-বিতর্কে ঢুকতে চাননি। এ নিয়ে যদিও নিজের বিরক্তিটা লুকোননি, ‘আমরা রেফারির জোরে ম্যাচ জিতছি এমনটা শুনতে শুনতে ক্লান্ত হয়ে গেছি।’

এদিকে স্প্যানিশ ফুটবল ফেডারেশনের রেফারিজ টেকনিক্যাল কমিটি (সিটিএ) আথলেতিক-রিয়াল ম্যাচ আবার পর্যালোচনা করে দেখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। সিটিএ এমন আভাসও দিয়েছে যে ভার-সিদ্ধান্তের সমালোচনা করায় বার্সেলোনা সভাপতি বার্তোমেউ ও আথলেতিক অধিনায়ক মুনিয়াইনের ১৮ হাজার ইউরো পর্যন্ত জরিমানা হতে পারে।

/পিকে/

লাইভ

টপ