ছয় উইকেট তুলে হোল্ডার বললেন, প্রতিদ্বন্দ্বিতা চলবে

Send
স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত : ০৩:২৪, জুলাই ১০, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ০৩:৩১, জুলাই ১০, ২০২০

৬/৪২, হোল্ডারের ক্যারিয়ার-সেরা বোলিং। ছবি:টুইটারইংল্যান্ডের কাছে ক্রমশই বিস্ময়কর চরিত্র হয়ে উঠছেন জেসন হোল্ডার। গত বছর প্রথম ডাবল সেঞ্চুরিটি করে হোম সিরিজের সুর বেঁধে দিয়েছিলেন ক্যারিবীয় অধিনায়ক। টেস্ট সিরিজ অপ্রত্যাশিতভাবে হেরে আসতে হয়েছিল জো রুটের ইংল্যান্ডকে। ওই সাফল্যেই তিনি এখন আইসিসির র‌্যাঙ্কিংয়ে এক নম্বর অলরাউন্ডার। এক বছর পর ফিরতি সফরে এসেছেন ইংল্যান্ডে। প্রথম টেস্টেই ক্যারিয়ার-সেরা বোলিং করে ইংল্যান্ডকে হুমকির মুখে ফেলে দিয়েছেন।

৪২ রানে ৬ উইকেট- সাউদাম্পটন টেস্টের দ্বিতীয় দিনে ইংল্যান্ডের প্রথম ইনিংস ২০৪ রানে গুটিয়ে গেছে তার বোলিংয়েই। না, একটু ভুল বলা হলো। হোল্ডারকে যোগ্য সঙ্গ দিয়েছেন শ্যানন গ্যাব্রিয়েল। গতির তোড়ে ৬২ রানে চার উইকেট পেয়েছেন তিনি।  দুজনই ১০ উইকেট ভাগাভাগি করে ৬৭.৩ ওভারে মুড়ে দিয়েছেন ইংল্যান্ডকে। বৃষ্টিবিঘ্নিত প্রথম দিনে খেলা হতে পেরেছিল মাত্র ১৭.৪ ওভার।

বেশ মজার একটা প্যাটার্নে ইংল্যান্ডের ওপর খড়্গ চালিয়েছেন ক্যারিবীয় দুই পেসার। প্রথম তিন উইকেট তুলে একটু বিরতি নিয়েছেন গ্যাব্রিয়েল। পরে এসে ছয় উইকেট নিয়েছেন হোল্ডার। দশম উইকেটটি গেছে গ্যাব্রিয়েলের খাতায়।

প্রথম ইনিংস শুরু করে ওয়েস্ট ইন্ডিজ দলীয় ৪৩ রানে হারিয়েছে জন ক্যাম্পবেলকে। আরেক ওপেনার ক্রেগ ব্রাথওয়েট শেই হোপকে নিয়ে মেঘাচ্ছন্ন আকাশের নিচে আগেভাগেই খেলা শেষের আগ পর্যন্ত লড়ে গেছেন। ১৯.৩ ওভারে ১ উইকেটে ৫৭ ‍ওয়েস্ট ইন্ডিজ, ৯ উইকেট হাতে নিয়ে ১৪৭ রানে পিছিয়ে। ক্যারিবীয় অধিনায়ক বৃহস্পতিবার দ্বিতীয় দিনের খেলার শেষে প্রতিপক্ষকে হুমকি দিয়ে রেখেছেন এখন ব্যাট হাতে তার কিছু করার পালা।

অলরাউন্ডার হিসেবে ইংল্যান্ডের ভারপ্রাপ্ত অধিনায়ক বেন স্টোকসের জয়গান যেভাবে গায় ক্রিকেট বিশ্ব, তুলনায় হোল্ডার নিতান্তই উপেক্ষিত। এ নিয়ে হোল্ডারের দু:খ আছে। সেটি এই সফরে এসে বলেও ফেলেছেন। লুকোচুরি কিছু নেই, ক্যারিবীয় অধিনায়ক বলে দিয়েছেন স্টোকসের সঙ্গে প্রতিদ্বন্দ্বিতা তার চলবে। আরেকটি সিরিজে সেই প্রতিদ্বন্দ্বিতার প্রথম প্রহরে তিনি জয়ী, দলের সবচেয়ে লড়াকু ইনিংসটি ( সর্বোচ্চ ৪৩) খেলা স্টোকসকে তিনিই ফিরিয়ে দিনশেষে বলেছেন, ‘তার উইকেটটি পেয়ে খুব ভালো লাগছে। আশা করি আরও কয়েকবার তার উইকেট পাবো। আমি নিশ্চিত যে তাদের সঙ্গে পরবর্তী দুই সপ্তাহ জোরালো প্রতিদ্বন্দ্বিতা চলবে আমাদের যেমনটি অতীতেও হয়েছে।’

হোল্ডার আইসিসি র‌্যাঙ্কিংয়ে এক নম্বর অলরাউন্ডার, কিন্তু গত এপ্রিলে উইজডেনের লিডিং ক্রিকেটার অব দ্য ওয়ার্ল্ড খেতাব পেয়েছেন স্টোকস। তবে প্রতিপক্ষ অধিনায়ককে যোগ্য সম্মান দিয়েই ব্যাট হাতে তার অপেক্ষায় থাকবেন হোল্ডার, ‘সে দুর্দান্ত এক ক্রিকেটার, প্রতিদ্বন্দ্বী। আমি নিশ্চিত আমরা যখন ব্যাট করবো, আমার মুখের ওপর ঝাঁপিয়ে পড়ার অপেক্ষায় থাকবে সে।’

১৪ বলের বিস্ফোরণে ১ রানে তিন উইকেট তুলে গত ১০ টেস্টে ষষ্ঠবারের মতো ইনিংসে পাঁচ উইকেটে নিয়েছেন হোল্ডার, এই স্পেলের প্রথম শিকার স্টোকস কট বিহাইন্ড। হোল্ডার উচ্ছ্বসিত এই অর্জনে, ‘খুব ভালো লাগছে। ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ৬ উইকেট পাওয়াটা আমার কাছে ছিল গর্বের এক মুহূর্ত।’

বোলিংয়ে প্রত্যাশামতো কাজ করেছেন, এখন ব্যাট হাতে কিছু করার পালা ক্যারিবীয় অধিনায়কের, ‘আমি সত্যিই কিছু রান করতে চাই। টেস্টে আমার এখনও অনেক কিছু করার বাকি। ব্যাট হাতে এখনও আমাকে বিশাল অবদান রাখতে হবে।’

সত্য স্বীকারে অবশ্য কুণ্ঠা নেই হোল্ডারের, আলোকস্বল্পতায় ২০ ওভার আগে দিনের খেলা শেষ না হলে তাদের ব্যাটিংও সন্ধ্যায় সমস্যায় পড়তো। তা যেহেতু হয়নি, ভালো অবস্থাতেই আছে দল, ‘নয় উইকেট হাতে তৃতীয় দিনে খেলতে নামাটা আমাদের জন্য খুব ভালো হবে।’

আবহাওয়ার পূর্বাভাসও বলছে শুক্রবার তৃতীয়দিনের আবহাওয়া অনেক ভালো থাকবে যা ওয়েস্ট ইন্ডিজকে দিতে পারে বাড়তি সুবিধা।  

করোনা-নির্বাসনের পর এই টেস্ট দিয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের আবার পৃথিবীতে ফেরার প্রথম দুটি দিনই দেখেছে বৃষ্টির খেলা।

সংক্ষিপ্ত স্কোর: ইংল্যান্ড ১ম ইনিংস: ২০৪ (স্টোকস ৪৩, বাটলার ৩৫, বেস ৩১*, ডেনলি ১৮, হোল্ডার ৬/৪২, গ্যাব্রিয়েল ৪/৬২)। উইন্ডিজ ১ম ইনিংস: ১৯.৪ ওভারে ৫৭/১( ক্যাম্পবেল ২৮, ব্র্যাথওয়েট ব্যাটিং ২০, হোপ ব্যাটিং ৩, অ্যান্ডারসন ১/১৭)

/পিকে/

লাইভ

টপ